সোহেল রানাকে দ্রুত দেশে এনে শাস্তির দাবি ই-অরেঞ্জ গ্রাহকদের

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৬:৪৭ পিএম, ০৬ সেপ্টেম্বর ২০২১

গ্রাহকের টাকা আত্মসাতের দায়ে অভিযুক্ত ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান ই-অরেঞ্জের কথিত পৃষ্ঠপোষক বনানী থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সোহেল রানাকে দ্রুত দেশে এনে শাস্তির আওতায় আনা ও অর্থ ফেরত দেওয়ার দাবি জানিয়েছেন প্রতিষ্ঠানটির প্রতারিত গ্রাহকরা।

সোমবার (৬ সেপ্টেম্বর) বিকেল ৩টায় প্রতিষ্ঠানটির কয়েকশ গ্রাহক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে একত্রিত হন। পরে তারা টিএসসি হয়ে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে মানববন্ধন করেন। তারা ‘সোহেল রানা পালালো কেন প্রশাসন জবাব দাও, ই-অরেঞ্জের দালালেরা হুঁশিয়ার সাবধান, ই-অরেঞ্জের প্রতারণা মানি না, মানবো না’ স্লোগান দেন।

মানববন্ধনে আশিক মাহমুদ নামে এক গ্রাহক বলেন, ‘প্রশাসনের নজরদারির পরও ওসি সোহেল কীভাবে দেশত্যাগ করলেন? তার বিরুদ্ধে মামলা ও অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ রয়েছে, তা সত্ত্বেও তিনি কীভাবে দেশত্যাগ করার সুযোগ পেলেন। নিশ্চয়ই এর পেছনে প্রশাসনের সহযোগিতা রয়েছে। আমরা সেই প্রশাসনের দুর্নীতিবাজ লোকদের চিহ্নিত করতে সরকারের প্রতি দাবি জানাই।’

jagonews24

তিনি আরও বলেন, ‘ভুক্তভোগীদের টাকা কীভাবে ফেরত দেওয়া হবে সেটা আমাদের জানাতে হবে। ভুক্তভোগীদের টাকা দ্রুত দেওয়ার পাশাপাশি ওসি সোহেলকে দ্রুত দেশে ফিরিয়ে এনে শাস্তির আওতায় আনতে হবে।’

বক্তারা বলেন, ‘এখন প্রশাসন বলছে, তারা ওসি সোহেলের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবে। তারা আগে কী করেছেন? তিনি (ওসি সোহেল) আমাদের টাকা কোথায় রেখেছেন, সেটা আমাদের বুঝিয়ে দিতে হবে। মালয়েশিয়া, সিঙ্গাপুরে তার সম্পদ আছে, সেগুলো এনে আমাদের টাকা আমাদের বুঝিয়ে দেওয়া হোক।’

এর আগে ই-অরেঞ্জের গ্রাহকের টাকা আত্মসাতের অভিযোগের মধ্যে দেশ ছেড়ে পালিয়ে গত ৩ সেপ্টেম্বর ভারত-নেপাল সীমান্তে বিএসএফের হাতে আটক হন বনানী থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সোহেল রানা।

jagonews24

রোববার (৫ সেপ্টেম্বর) দুপুরে ডিএমপি কমিশনার সাংবাদিকদের বলেন, গ্রাহকের টাকা আত্মসাতের দায়ে অভিযুক্ত ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান ই-অরেঞ্জের কথিত পৃষ্ঠপোষক বনানী থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সোহেল রানাকে দেশে ফিরিয়ে আনা হবে। সোহেল রানার বিরুদ্ধে ই-অরেঞ্জ নামে অনলাইন মার্কেটপ্লেসের সঙ্গে যোগসাজশ থাকার অভিযোগ উঠেছে।

প্রতিষ্ঠানটি পণ্য দেওয়ার কথা বলে অগ্রিম নেওয়া এক হাজার ১০০ কোটি টাকা আত্মসাৎ করার অভিযোগে ই-অরেঞ্জের পৃষ্ঠপোষক বনানী থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সোহেল রানাসহ ১০ জনের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। মামলার অন্য আসামিরা হলেন- প্রতিষ্ঠানটির মালিক সোনিয়া মেহজাবিন, তার স্বামী মাসুকুর রহমান, চিফ অপারেটিং অফিসার (সিওও) আমান উল্লাহ, নাজনিন নাহার বিথি, কাওসার, কামরুল হাসান, আব্দুল কাদের, নূরজাহান ইসলাম সোনিয়া ও রুবেল খান।

এসএম/ইউএইচ/এআরএ/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]