বেকারি খাদ্যে পটাশিয়ামের ব্যবহার বন্ধের প্রতিশ্রুতি

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৯:৪৪ পিএম, ১৩ সেপ্টেম্বর ২০২১

পাউরুটিতে ক্ষতিকর পটাশিয়াম ব্যবহার বন্ধ ও নিরাপদ খাদ্য সরবরাহে সর্বাত্মক সহযোগিতার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন পাউরুটি মালিক সমিতি ও বেকারি কোম্পানির প্রতিনিধিরা।

সোমবার (১৩ সেপ্টেম্বর) বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের (বিএফএসএ) সঙ্গে এক সভায় এ প্রতিশ্রুতি দেন তারা। সভায় সভাপতিত্ব করেন নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান।

সম্প্রতি বুয়েট ও নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষণায় ৬৭ শতাংশ পাউরুটিতে ক্ষতিকর পটাশিয়াম ব্রোমেটের উপস্থিতি পাওয়া গেছে। এ কারণে গণবিজ্ঞপ্তি জারি করে বেকারি খাদ্যে পটাশিয়াম ব্রোমেট ও পটাশিয়াম আয়োডেট ব্যবহার নিষিদ্ধ করে বিএফএসএ।

গণবিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, রুটি, পাউরুটি ও বেকারি খাদ্যপ্রস্তুতকারী/ব্যবসায়ীদের জানানাে যাচ্ছে- রুটি, পাউরুটি ও বেকারি খাদ্যে সংযােজক দ্রব্য হিসেবে পটাশিয়াম ব্রোমেট ও পটাশিয়াম আয়ােডেট ব্যবহার সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ।

মানবশরীরে পটাশিয়াম ব্রোমেট থাইরয়েড গ্রন্থির রােগ সৃষ্টি করে, এমনকি ক্লাস টুবি কারসিনোজেন যা ক্যান্সার সৃষ্টি করে। এটি একটি জেনোটক্সিক কারসিনোজেন, যা জিনগত রােগ ও মিউটেশন ঘটাতে পারে। পাশাপাশি ডায়রিয়া, বমিভাব, পেটের পীড়াসহ অন্যান্য উপসর্গ দেখা দিতে পারে।

এ জন্য বেকারি খাদ্য উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানকে তাদের উৎপাদিত খাবারে এসব ব্যবহার অনতিবিলম্বে বন্ধের নির্দেশনা প্রদান করা হলাে। পাশাপাশি পটাশিয়াম ব্রোমেট ও পটাশিয়াম আয়োডেটযুক্ত রুটি, পাউরুটি ও বেকারি পণ্য মোড়কহীন কিংবা মোড়কে মজুত, পরিবহন ও বিক্রি থেকে বিরত থাকার নির্দেশনা দেওয়া হয়।

জানা গেছে, এই সতর্কতামূলক বিজ্ঞপ্তি প্রচারের পর নির্দেশ অমান্যকারীর বিরুদ্ধে নিরাপদ খাদ্য আইন-২০১৩ অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। শিগগিরই এসব ক্ষতিকারক রাসায়নিক পুরোপুরি বন্ধে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে অভিযান পরিচালনা করা হবে বলে জানায় সংস্থাটি।

এনএইচ/বিএ/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]