ই-কমার্সে শৃঙ্খলা আনতে অথরিটি গঠনে ১৬ সদস্যের কমিটি

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৮:৪৮ পিএম, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১

ই-কমার্সে শৃঙ্খলা আনতে অথরিটি (কর্তৃপক্ষ) গঠন ও ডিজিটাল কমার্স আইন প্রণয়নে কারিগরি বিষয়ে পরামর্শ দেওয়ার জন্য ১৬ সদস্যবিশিষ্ট কমিটি গঠন করেছে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়।

কেন্দ্রীয় ডিজিটাল কমার্স সেলের মহাপরিচালক এবং আমদানি ও অভ্যন্তরীণ বাণিজ্য (আইআইটি) অনুবিভাগের অতিরিক্ত সচিব এএইচএম সফিকুজ্জামানকে আহ্বায়ক করে এ কমিটি গঠন করা হয়েছে। সোমবার (২৭ সেপ্টেম্বর) বাণিজ্য মন্ত্রণালয় থেকে এ সংক্রান্ত একটি প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে।

এতে বলা হয়েছে, জাতীয় ডিজিটাল কমার্স নীতিমালা-২০২০ (সর্বশেষ, সংশোধিত) এর পরিশিষ্ট-১ এর উল্লিখিত কর্মপরিকল্পনার নির্দেশনা অনুযায়ী, ডিজিটাল কমার্স সংক্রান্ত যাবতীয় কার্যক্রম তথা ডিজিটাল কমার্সের মাধ্যমে ব্যবসা-বাণিজ্য সংঘটন, লেনদেন সৃষ্ট ভোক্তা বা বিক্রেতা অসন্তোষ, প্রযুক্তিগত সমস্যা নিরসনের লক্ষ্যে নিম্ন লিখিত সদস্যের সমন্বয়ে একটি কারিগরি কমিটি গঠন করা হলো।

কমিটিতে আহ্বায়কের বাইরে অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের একজন করে প্রতিনিধি সদস্য হিসেবে থাকবে। এসব প্রতিষ্ঠান হলো- তথ্য ও প্রযুক্তি বিভাগ, অর্থ মন্ত্রণালয়ের অর্থ ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগ, স্থানীয় সরকার ও সমবায় বিভাগ, বাংলাদেশ পুলিশ, সাইবার ক্রাইম ইন্টেলিজেন্স শাখা, র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব), বাংলাদেশ ব্যাংক, জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর, বাংলাদেশ প্রতিযোগিতা কমিশন, এটুআই ও বেসিস এবং ই-কমার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের সভাপতি বা সাধারণ সম্পাদক। কমিটির সদস্য সচিব হিসেবে থাকবেন বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের কেন্দ্রীয় ডিজিটাল কমার্স সেলের একজন উপ-সচিব।

প্রজ্ঞাপনে আরও বলা হয়, গঠিত কমিটি বাণিজ্য মন্ত্রণালয়কে সময়ে সময়ে কারিগরি বিষয়ে পরামর্শ দেবে। প্রতি মাসে একবার বা যখন প্রয়োজন হয় তখনই কমিটি সভা আহ্বান করতে পারবে। কমিটি প্রয়োজন মনে করলে যে কোনো মন্ত্রণালয়, বিভাগ বা দপ্তর থেকে প্রয়োজনীয় সংখ্যক কর্মকর্তাকে সদস্য হিসেবে অন্তর্ভুক্ত করতে পারবে।

এ বিষয়ে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব ও ডব্লিউটিও সেলের মহাপরিচালক মো. হাফিজুর রহমান জাগো নিউজকে বলেন, বর্তমান অবস্থা থেকে উত্তরণের জন্য তারা ১৫ দিনের মধ্যে রিকমেন্ডেশন দেবেন। এছাড়া কমিটি বিধিমালা অনুসারে নতুন করে আইন প্রণয়ন ও অথরিটি গঠনে কাজ করবে। আগামী দু’মাসের মধ্যে তারা এ বিষয়ে সুপারিশ করবে, সেই সুপারিশ অনুসারে পরবর্তী পদক্ষেপ নেওয়া হবে বলে জানান তিনি।

আইএইচআর/এআরএ/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]