বিনামূল্যে ইএফডি যন্ত্র দেবে না এনবিআর

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৩:৪১ পিএম, ০৬ অক্টোবর ২০২১
ফাইল ছবি

খুচরা পর্যায়ে ভ্যাট আদায়ের মেশিন ইলেকট্রনিক ফিসক্যাল ডিভাইস (ইএফডি) এখন থেকে আর বিনামূল্যে পাবে না ব্যবসায়ীরা। ২০ হাজার ৫৩৩ টাকা ব্যয়ে ব্যবসায়ীদের এ যন্ত্র কিনে নিতে হবে। এ টাকা এককালীন বা কিস্তিতে পরিশোধ করা যাবে।

জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) এতদিন এটি ব্যবসায়ীদের বিনামূল্যে দিয়ে আসছিল। এনবিআর সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

২০১৯ সালে ভ্যাট আইন চালুর সময় ব্যবসায়ীদের মধ্যে বিনামূল্যে এক লাখ ইএফডি মেশিন বিতরণের ঘোষণা দিয়েছিল এনবিআর। ২০১৯-২০ অর্থবছরের শুরু থেকেই ইএফডি মেশিন বসানোর কথা ছিল।

২০২০ সালের আগস্টে ইএফডি মেশিন বসানো শুরু হয়। তবে গত কয়েক মাসে ঢাকা ও চট্টগ্রাম শহরে মাত্র তিন হাজার ৩৯৩টি ভ্যাট নিবন্ধিত প্রতিষ্ঠানে এ মেশিন বসানো হয়েছে।

গত ১৯ সেপ্টেম্বর এক অফিস আদেশে এনবিআর জানায়, ২০ হাজার ৫৩৩ টাকায় ইএফডি মেশিন ও ২৪ হাজার ৫৯৬ টাকায় এসডিসি (সেলস ডাটা কন্ট্রোলার) মেশিন ক্রয় করতে পারবেন ব্যবসায়ীরা। তবে সেক্ষেত্রে তাদের সংশ্লিষ্ট কমিশনার রেটের রেজিস্ট্রেশন করতে হবে। ইএফডি/এসডিসি যন্ত্র ব্যবহার না করলে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া যাবে।

ইএফডি হলো আধুনিক হিসাবযন্ত্র। এটি ইলেকট্রনিক ক্যাশ রেজিস্ট্রারের (ইসিআর) উন্নত সংস্করণ। যদিও এর আগে রাজস্ব বোর্ডের কর্মকর্তারা ইএফডি মেশিন বিক্রি বিরোধী ছিল। পূর্বের ইসিআর মেশিন ব্যবসায়ীরা ঠিকমত রক্ষণাবেক্ষণ করে না, এমন অজুহাতে ইএফডি মেশিন বিক্রির বিরোধিতা করেছেন তারা।

এনবিআর বলছে, দেশে বর্তমানে আড়াই লাখের বেশি প্রতিষ্ঠানের ভ্যাট নিবন্ধন আছে। এ যন্ত্র বসানো হলে প্রতিষ্ঠানের প্রকৃত লেনদেন বা বিক্রির তথ্য জানতে পারবে এনবিআর। এরমধ্যে কত অংশ ভ্যাট তা জানা যাবে। ফলে কর ফাঁকি বন্ধ হবে এবং আদায় বাড়বে।

জানতে চাইলে বাংলাদেশ দোকান মালিক সমিতির সভাপতি হেলাল উদ্দিন জাগো নিউজকে বলে, ‘এটা খুবই ভালো উদ্যোগ। আমরা স্বাগত জানাই। আমরা মেশিনটা কিনে নিবো। কোনো সমস্যা নেই, তবে এনবিআর যেন কোনো হয়রানি না করে।’

ইএফডি মেশিনের রক্ষণাবেক্ষণের বিষয়ে তিনি বলেন, ‘ইএফডি মেশিনের রক্ষণাবেক্ষণ ওটা এনবিআর কে করতে হবে।’

এসএম/এএএইচ/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]