লেনদেনের শুরুতে মিউচুয়াল ফান্ডের ঝলক

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১১:১৫ এএম, ১০ অক্টোবর ২০২১

পুঁজিবাজারের নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) চেয়ারম্যানের আশ্বাসের পর রোববার লেনদেনের শুরুতেই ঝলক দেখিয়েছে মিউচুয়াল ফান্ড।

এদিন শেয়ারবাজারে লেনদেন শুরু হতেই তালিকাভুক্ত সবকটি মিউচুয়াল ফান্ডের দাম বেড়ে যায়। যার ইতিবাচক প্রভাব পড়েছে মূল্য সূচকে। সেই সঙ্গে লেনদেনও ভালো গতি দেখা যাচ্ছে।

প্রথম এক ঘণ্টার লেনদেনে প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) প্রধান মূল্য সূচক ২০ পয়েন্ট বেড়েছে। লেনদেন হয়ে গেছে ৫০০ কোটি টাকার ওপরে।

এর আগে গতকাল শনিবার এক অনুষ্ঠানে বিএসইসির চেয়ারম্যান অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াত-উল-ইসলাম বলেন, আমরা এই খাতটিকে (মিউচুয়াল ফান্ড) অনেক দূর এগিয়ে নিতে চাই। এক্ষেত্রে আমরা সেবক হিসেবে যত সুযোগ-সুবিধা দেওয়া দরকার, তার সব দিতে চাই। এই মিউচুয়াল ফান্ডকে অনেক অনেক বড় দেখতে চাই।

শিবলী রুবাইয়াত-উল-ইসলাম বলেন, মিউচুয়াল ফান্ড খাতের কোনো প্রচার নেই। ব্যক্তিগতভাবে প্রতিদিন কমপক্ষে দুজন লোক ফোন করে কোন মিউচুয়াল ফান্ডে বিনিয়োগ করবে তা জানতে চায়। যেখানে ক্ষুদ্র থেকে বৃহৎ সকল শ্রেণির মানুষ ফোন করে। তারা কোন ফান্ডে বিনিয়োগ করবে, তা জানতে চায়। এছাড়া কেমন রিটার্ন দেয়, তা জানতে চায়।

তিনি বলেন, এ বছর ফান্ডগুলো অনেক ভালো রিটার্ন দিয়েছে। তারা অনেক ভালো করছে। যাতে আমরা খুশি। আমরা চাচ্ছি এই খাতটি উন্নতি করার যে সঠিক সময় যাচ্ছে, সেই সুযোগটি নিতে।

বিএসইসির চেয়ারম্যান বলেন, গত সপ্তাহেও মিউচুয়াল ফান্ড খাত নিয়ে কমিশন সভায় বসেছিল। কীভাবে এই খাতকে সহযোগিতা ও দশগুণ আকার করা যায়, তা নিয়ে আলোচনা করতেই বসেছিল। তাই আশা করবো আপনাদের কী সহযোগিতা দরকার, তা বলবেন।

মিউচুয়াল ফান্ড ও বন্ডে সাপোর্ট দেওয়া নিয়ে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) সঙ্গে আলোচনা হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, এখন শেয়ারবাজার থেকে যে পরিমাণ রাজস্ব দেওয়া হয়, তা ১০০ গুণ বেড়ে যাবে। এজন্য মিউচুয়াল ফান্ড ও বন্ডে সহযোগিতা করা দরকার। এ বিষয়ে এনবিআর চেয়ারম্যান সম্মতি জানিয়েছেন।

তিনি আরও বলেন, একতাই বল। অতএব সবাইকে এক থাকতে হবে। নিজেদের মধ্যে ভুল বোঝাবুঝি হতেই পারে। কাজ করতে গেলে এমন হয়। তবে কথা বলে তা সমাধান করে নিতে হবে। এক থাকতে হবে। এর মাধ্যমে ফান্ড খাতকে বড় বিনিয়োগ আকারে নিয়ে আসতে চাই।

নিয়ন্ত্রক সংস্থার এমন বক্তব্যের পর রোববার শেয়ারবাজারে লেনদেন শুরু হতেই সবকটি মিউচুয়াল ফান্ডের দাম বেড়ে যায়। লেনদেনের প্রথম একঘণ্টা বাড়ার ধারা অব্যাহত রয়েছে। যার ইতিবাচক প্রভাব পড়েছে সার্বিক শেয়ারবাজারে।

এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত বেলা ১১টায় ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স আগের তুলনায় ২০ পয়েন্টে বেড়েছে। অপর দুই সূচকের মধ্যে ডিএসই শরিয়াহ্ দশমিক ৩২ পয়েন্ট কমেছে। আর ডিএসই-৩০ সূচক বেড়েছে ১ পয়েন্ট।

এসময় পর্যন্ত ডিএসইতে লেনদেনে অংশ নেওয়া ২৫০টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট দাম বাড়ার তালিকায় নাম লিখিয়েছে। বিপরীতে দাম কমেছে ৯০টির। আর ৩০টির দাম অপরিবর্তিত রয়েছে। লেনদেন হয়েছে ৫২৬ কোটি ৪৫ লাখ টাকা।

অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ৬১ পয়েন্ট বেড়েছে। লেনদেন হয়েছে ১৩ কোটি ২১ লাখ টাকা। লেনদেন অংশ নেওয়া ১৭৩ প্রতিষ্ঠানের মধ্যে দাম বেড়েছে ১০১টির, কমেছে ৫৭টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ১৫টির।

এমএএস/বিএ/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]