শেষ হলো ‘টিনপ্রেনার’র ক্যারিয়ার কার্নিভাল-অন্ট্রাপ্রেনারশিপ সামিট

জাগো নিউজ ডেস্ক
জাগো নিউজ ডেস্ক জাগো নিউজ ডেস্ক
প্রকাশিত: ১২:৩৯ পিএম, ১৯ অক্টোবর ২০২১

বেকারত্ব দূরীকরণে তরুণদের নিয়ে কাজ করা ‘টিনপ্রেনার’ উদ্যোগে অনুষ্ঠিত দেশের সর্ববৃহৎ ক্যারিয়ার কার্নিভাল-অন্ট্রাপ্রেনারশিপ সামিটের প্রথম আসর শেষ হয়েছে।

সোমবার (১৮ অক্টোবর) প্রতিষ্ঠানটির পক্ষে থেকে পাঠানো এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

এতে বলা হয়, প্রোগ্রামটির মাধ্যমে গত ৩ মাস ধরে অনলাইনে অংশগ্রহণকারীদের বিভিন্ন ধরনের ক্যারিয়ার সংক্রান্ত মেন্টরশিপ গ্রুমিং দেওয়া হয়েছে। এ মেন্টরশিপ গ্রুমিংয়ের মধ্যে অন্তর্ভুক্ত ছিল ১০টি ক্যারিয়ার সংক্রান্ত সেমিনার, ৩টি মূল্যবান ওয়ার্কশপ এবং ৫টি ইন্সপায়ারিং লাইভ শো।

আর এ আয়োজনে অনলাইনে যেসব ব্যক্তিত্বরা উপস্থিত ছিলেন—তারা হলেন, কাজী এম আহমেদ, কে এম হাসান রিপন, ফারহা মাহমুদ তৃণা, ফখরুদ্দিন আসিফ, সোলাইমান আহমেদ জিশান, ড. আলমাসুর রহমান, ড. রাফিউদ্দিন আহমেদ, এসএম আরিফুজ্জামান, তাজদিন হাসান এবং দেওয়ান আদনান। এছাড়া অনলাইন লাইভ শোতে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ফজলুর রহমান বাবু, নাভিদ মাহবুব, মেকানিক্স ব্যান্ড, তানভির শাহরিয়ার রিমন এবং মহাসিন আহমেদ।

অনুষ্ঠানের শেষপর্যায়ে অনলাইনের মাধ্যমে আয়োজন করা হয় কুইজ প্রতিযোগিতা এবং পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান। এতে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে যুক্ত হয়েছিলেন বেসিসের কো-চেয়ারম্যান কে এ এম রাশেদুল মাজিদ, মডেল ও অভিনেতা অন্তু করিম, ইক্যাবের ভাইস চেয়ারম্যান ফারহা মাহমুদ তৃণা এবং জনপ্রিয় গায়ক ইমরান হোসেন। এছাড়া সেশন স্পিকার হিসেবে উপস্থিত ছিলেন এসএম আরিফুজ্জামান ও শিষ শপ্নিক। প্রোগ্রামে প্রধান অতিথি ছিলেন প্রফেসর এইচএম জহিরুল হক।

সামিটে অংশ নিয়েছেন দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চল থেকে শুরু করে রাজধানীর বিভিন্ন নামকরা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের প্রায় ১০ হাজারেরও অধিক শিক্ষার্থী। প্রাইমারি, হায়ার সেকেন্ডারি ও সিনিয়র ক্যাটাগরির মধ্য থেকে কুইজ প্রতিযোগিতার মাধ্যমে ৩০জনকে নমিনেট করা হয় এবং বিচারক প্যানেল প্রত্যেক ক্যাটাগরি থেকে বেছে নিয়েছিলেন সেরা তিনজনকে। সারাদেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে প্রায় দুই শতাধিক ইয়ুথ অ্যাম্বাসেডর আমরা পেয়েছিলাম, তাদের মধ্যে থেকে বাছাই করে ১০০ জনকে নেওয়া হয়েছিল। পরবর্তীতে মূল অনুষ্ঠানে অংশ নেওয়ার জন্য ৩১ জনকে নমিনেট করা হয় এবং তাদের মধ্যে থেকে সেরা তিনজনের নাম ঘোষণা হয়।

আর এ সামিটে টাইটেল স্পন্সর হিসেবে ছিল মার্সেল, পাওয়ার স্পন্সর করেছে ব্রোনেক্স কালারস এবং কো-পাওয়ার স্পন্সর হিসেবে ছিল জয়কলি পাবলিকেশন্স লিমিটেড। ইভেন্ট পার্টনার হিসেবে ছিল কানাডিয়ান ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ। প্লাটিনাম স্পন্সর হিসেবে ছিল রকমারি ডট কম। গোল্ড স্পন্সর হিসেবে ছিল এসএএফ আইটি ইনস্টিটিউট, আইটার্স ও বইঘর। এছাড়া অনলাইন মিডিয়া পার্টনার হিসেবে ছিল জাগোনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম।

টিনপ্রেনারের প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ইমাম হোসেন আলিফ বলেন, ‘দেশের বেকারত্ব সমস্যা কমিয়ে আনতেই আমাদের এ প্রচেষ্টা। দেশের তরুণসমাজের মধ্যে উদ্ভাবনী মনোভাব তৈরি করতে ও ক্যারিয়ার বিষয়ক ডিপ্রেশন দূর করতেই আমাদের এ প্লাটফর্ম।’

এমএএইচ/

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]