পোশাকশিল্পের নিরাপত্তায় কাজ করবে আইএলও-বিজিএমইএ

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৮:২৯ পিএম, ২৩ জানুয়ারি ২০২২
পোশাক কারখানাগুলোতে নিরাপত্তা কমিটির সক্ষমতা বৃদ্ধির জন্য আইএলও-বিজিএমইএর মধ্যে চুক্তি হয়

বাংলাদেশে পোশাকশিল্পের কর্মক্ষেত্রে নিরাপত্তা কর্মসূচি অব্যাহত রাখতে একযোগে কাজ করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেছে আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থা (আইএলও) এবং বাংলাদেশ পোশাক প্রস্তুতকারক ও রপ্তানিকারক সমিতি (বিজিএমইএ)।

রোববার (২৩ জানুয়ারি) পোশাকশিল্পের কারখানাগুলোতে নিরাপত্তা কমিটির সক্ষমতা বৃদ্ধির জন্য আইএলও এবং বিজিএমইএর মধ্যে এ সংক্রান্ত একটি চুক্তি সই হয়।

রাজধানীর গুলশানে বিজিএমইএ’র পিআর অফিসে চুক্তি সই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সমিতির সভাপতি ফারুক হাসান, আইএলও’র পোশাকশিল্পে কর্মপরিবেশ উন্নয়ন কর্মসূচির প্রধান কারিগরি উপদেষ্টা জর্জ ফলার, বিজিএমইএ’র সহ-সভাপতি মো. নাসির উদ্দিন এবং আইএলও বাংলাদেশের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তারা।

বিজিএমইএ’র সঙ্গে চুক্তির আওতায় ৭৫টি পোশাক কারখানার ৭০০টি নিরাপত্তা কমিটির সদস্যদের পেশাগত নিরাপত্তা ও স্বাস্থ্য, কর্মক্ষেত্রে ঝুঁকি সনাক্তকরণ এবং ঝুঁকি মূল্যায়ন, ভবন নিরাপত্তা সংস্কৃতি, অগ্নি দুর্ঘটনা ব্যবস্থাপনা এবং কোভিড-১৯ নির্দেশিকা সম্পর্কে প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে। নিরাপত্তা কমিটিগুলোর প্রশিক্ষিত সদস্যরা পরবর্তীতে তাদের নিজ নিজ কারখানায় প্রায় ৫০ হাজার কর্মীদের মাঝে একই বিষয়ে সচেতনতা সৃষ্টি করবেন।

জর্জ ফলার বলেন, নিরাপত্তা কমিটিগুলো কারখানায় নিরাপদ ও স্বাস্থ্যকর কাজের পরিবেশ তৈরি এবং তা বজায় রাখার জন্য কারখানার ব্যবস্থাপনা পর্যায়ের কর্মকর্তারা এবং কর্মীদের একত্রিত করে। এই কমিটিগুলো সঠিকভাবে দক্ষতাসম্পন্ন হলে এবং কর্মক্ষেত্রে অনেক দুর্ঘটনা এবং পেশাগত স্বাস্থ্য ঝুঁকি এড়ানো সম্ভব।

বিজিএমইএ সভাপতি ফারুক হাসান বলেন, শ্রমিকদের নিরাপত্তাই আমাদের কাছে সবচেয়ে বড় অগ্রাধিকার। তাই নিরাপত্তা কমিটিগুলোকে আরও শক্তিশালী এবং কার্যকর করার জন্য আমরা আইএলও’র সঙ্গে এক হয়েছি।

ইএআর/জেডএইচ/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]