কৃষিখাতে বিনিয়োগ আনতে সহযোগিতার আশ্বাস ডেনমার্কের

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৪:২৮ পিএম, ২৫ জানুয়ারি ২০২২

বাংলাদেশে কৃষিখাতে বিনিয়োগ আনতে সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছে ডেনমার্ক। মঙ্গলবার (২৫ জানুয়ারি) সচিবালয়ে কৃষিমন্ত্রী মো. আব্দুর রাজ্জাকের সঙ্গে সাক্ষাতের সময় বাংলাদেশে নিযুক্ত ডেনমার্কের রাষ্ট্রদূত উইনি স্ট্রাপ পিটারসেন এই আশ্বাস দেন।

পরে কৃষিমন্ত্রী সাংবাদিকদের এ কথা জানান। তিনি বলেন, ‘তারা (ডেনমার্ক) বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মসূচিতে আমাদের সহযোগিতা করেছে। বিশেষ করে কৃষিতে ডেনিশের সহযোগিতা অনেক বেশি। প্রাণিসম্পদ ও মৎস্য মন্ত্রণালয়ে, আমাদের চাষিপর্যায়ে উৎপাদনশীলতা বৃদ্ধি করে কৃষকের জীবনমান উন্নয়নের জন্য তারা অনেক সহযোগিতা করেছে।’

মন্ত্রী বলেন, ‘ভবিষ্যতে আমরা কী ধরনের সহযোগিতা করতে পারি। ইতোমধ্যে আমরা দানাজাতীয় খাদ্যে প্রায় স্বয়ংসম্পূর্ণ। এটাকে আমরা কীভাবে প্রসেস করতে পারি, এগ্রোপ্রসেসিং ভ্যালু চেইনে তারা কীভাবে সহযোগিতা করতে পারে। ডেনমার্ক খুবই অ্যাডভান্স, মিল্ক, মিট- এগুলো প্রসেসিংয়ে।’

‘বাংলাদেশ সরকারের এখন অগ্রাধিকার হলো নিরাপদ ও পুষ্টিকর খাদ্য। সেখানে আমরা তাদের সহযোগিতা চেয়েছি। ডেনমার্কের এগ্রোপ্রসেসিংয়ে অনেক অভিজ্ঞতা আছে। তারা খুবই সফল এক্ষেত্রে। তাদের উদ্যোক্তাদের বিনিয়োগের জন্য বাংলাদেশে কীভাবে আনা যায়, তারা বলেছে তারা এই বিষয়ে সহযোগিতা করবে। বাংলাদেশে কৃষিখাতে বিনিয়োগ আনতে তারা সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছে।’

আব্দুর রাজ্জাক বলেন, ‘আমরা ইউরোপীয় দেশ থেকে উদ্যোক্তাদের বাংলাদেশে আনার চেষ্টা করছি। আমরা এখানে পাইনঅ্যাপল ম্যাঙ্গো উৎপাদন করি, এটা আমরা কীভাবে প্রসেস করে ভালো জেলি করা যায়। আমরা ভুট্টা করি, ভুট্টা থেকে কীভাবে কর্নফ্লেক্স করা যায়, কীভাবে আলু থেকে আরও উন্নতমানের চিপস করা যায়- এসব প্রসেসিংয়ে তারা তাদের উদ্যোক্তাদের বাংলাদেশে আনার জন্য উৎসাহিত করবে।’

তিনি বলেন, ‘তারা ইতোমধ্যে চেষ্টা করছে। যেমন- ডানো এখানে বিক্রি হয়, ডানো কোম্পানির সঙ্গে তাদের আলাপ-আলোচনা চলছে। বাংলাদেশের দুধ দিয়ে কীভাবে পাউডার মিল্ক করা যায়। এই ধরনের ক্ষেত্রে তারা আমাদের সাহায্য করবে।’

মন্ত্রী আরও বলেন, ‘আগে আমরা নিজেদের প্রয়োজন মেটাতে উৎপাদন করতাম, এখন চিন্তা করছি বাণিজ্যিক কৃষি, এ লক্ষ্যে তারা আমাদের সহযোগিতা করবে। এখানে কীভাবে বিনিয়োগ করে বাংলাদেশের রপ্তানিকে ডাইভার্সিফাই করা যায়। এটা নিয়েই আলোচনা হয়েছে। আমরা বলেছি তাদের সরকারি-বেসরকারি বিনিয়োগকারীদের একটি প্রতিনিধি দল যাতে এখানে আসে। তারা সেখানে সহযোগিতা করবে। তারা কৃষিপণ্যের মান নিশ্চিতেও সহযোগিতা করবে। ল্যাবরেটরি করতেও তারা আমাদের সাহায্য করবে।’

ডেনিশ রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে রাজনৈতিক তেমন কোনো আলাপ হয়নি জানিয়ে কৃষিমন্ত্রী বলেন, ‘তারপরও আমি তাদের বলেছি- আমরা মানবাধিকার লঙ্ঘন করিনি। জঙ্গি ও রিলিজিয়াস এক্সট্রিমিস্ট যারা ইসলামিক...তাদের দমনের জন্য আমাদের অনেক পদক্ষেপ নিতে হয়েছে, কিন্তু সেটা আমাদের বিধিবিধান ও আইন অনুযায়ী নেওয়া হয়েছে। আমরা মানবাধিকার মেনে চলি। জ্ঞানত বাংলাদেশে এটা কেউ লঙ্ঘন করতে পারে না। আওয়ামী লীগ কোনোদিনই ধর্মী এক্সট্রিমিস্ট ও ধর্মান্ধদের সঙ্গে আপস করেনি। আমরা শক্তভাবে ধর্মীয় ও বিশ্বাসের স্বাধীনতায় বিশ্বাসী। এটা আওয়ামী লীগের মৌলিক নীতি।’

আরএমএম/বিএ/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]