বিনিয়োগকারীদের পছন্দের শীর্ষে ইউনিয়ন ইন্স্যুরেন্স

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৪:৩৭ পিএম, ২৮ জানুয়ারি ২০২২

বছরের প্রথম তিন সপ্তাহ ঊর্ধ্বমুখী থাকার পর গেল সপ্তাহ কিছুটা পতনের মধ্যদিয়ে পার করেছে দেশের শেয়ারবাজার। লেনদেন কমার পাশাপাশি দাম কমার তালিকায় নাম লিখিয়েছে বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের। সপ্তাহজুড়ে প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) দাম বাড়ার তালিকায় নাম লিখিয়েছে ৯৯টি প্রতিষ্ঠান। বিপরীতে দাম কমেছে ২৬৮টির।

বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম কমলেও গেল সপ্তাহজুড়ে দাম বাড়ার ক্ষেত্রে দাপট দেখিয়েছে সাধারণ বিমা খাতের কোম্পানি ইউনিয়ন ইন্স্যুরেন্স। গত সপ্তাহে বিনিয়োগকারীদের কাছে পছন্দের শীর্ষে ছিল কোম্পানিটির শেয়ার। ফলে প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে দাম বাড়ার শীর্ষ স্থানটি দখল করেছে এ প্রতিষ্ঠানটি। এমনকি সপ্তাহের প্রতিটি কার্যদিবসেই দাম বাড়ার সর্বোচ্চ সীমা স্পর্শ করেছে ইউনিয়ন ইন্স্যুরেন্স।

গেল সপ্তাহজুড়ে কোম্পানিটির শেয়ার দাম বেড়েছে ৬০ শতাংশ। টাকার অংকে বেড়েছে ৯ টাকা ৬০ পয়সা। সপ্তাহের শেষ কার্যদিবস শেষে কোম্পানিটির শেয়ারের দাম দাঁড়িয়েছে ২৫ টাকা ৬০ পয়সা, যা আগের সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসে ছিল ১৬ টাকা।

শেয়ারের এমন দাম বাড়া কোম্পানিটি গত ১৬ জানুয়ারি থেকে শেয়ারবাজারে লেনদেন শুরু হয়েছে্। লেনদেন শুরুর আগে কোম্পানিটি ২০২১ সালের প্রথম নয় মাসের আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।

ওই আর্থিক প্রতিবেদনের তথ্যানুযায়ী, ২০২১ সালের প্রথম তিন প্রান্তিকে (২০২১ সারের জানুয়ারি থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত) শেয়ারপ্রতি মুনাফা করেছে ১ টাকা ৪৮ পয়সা। আইপিও পরবর্তী শেয়ার হিসাবে কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি মুনাফা হয়েছে ৮৯ পয়সা।

ফিক্সড ডিপোজিট, শেয়ারবাজারে বিনিয়োগ, ফ্লোর ক্রয় এবং আইপিও খরচ খাতের ব্যয়ের জন্য কোম্পানিটিকে শেয়ার ইস্যুর মাধ্যমে পুঁজিবাজার থেকে ১৯ কোটি ৩৬ লাখ ৯ হাজার ৪০ টাকা উত্তলনের সুযোগ দেয় পুঁজিবাজারের নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)।

নিয়ন্ত্রক সংস্থার অনুমোদ পেয়ে এ বিমা কোম্পানিটি প্রতিটি ১০ টাকা মূল্যে ১ কোটি ৯৩ লাখ ৬০ হজার ৯০৪ টি শেয়ার ইস্যুর মাধ্যমে প্রাথমিক গণপ্রস্তারের (আইপিও) মাধ্যমে ১৯ কোটি ৩৬ লাখ ৯ হাজার ৪০ টাকা উত্তোলন করেছে।

অন্যদিকে, শেয়ার দাম বাড়ার পরও বিনিয়োগকারীদের একটি অংশ কোম্পানিটির শেয়ার বিক্রি করতে চাননি। ফলে সপ্তাহজুড়ে কোম্পানিটির শেয়ার লেনদেন হয়েছে মাত্র ৮৪ হাজার টাকা। আর প্রতি কার্যদিবসে গড়ে লেনদেন হয়েছে ১৬ হাজার ৮০০ টাকা।

গেল সপ্তাহে দাম বাড়ার শীর্ষ তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে কুইন সাউথ টেক্সটাইল। গেল সপ্তাহজুড়ে এ কোম্পানিটির শেয়ারের দাম বেড়েছে ২৭ দশমিক ৩৪ শতাংশ। এর পরের স্থানটিতে রয়েছে বাংলাদেশ ল্যাম্প। সপ্তাহজুড়ে এ কোম্পানিটির শেয়ার দাম বেড়েছে ২৫ দশমিক ২৯ শতাংশ।

এছাড়া দাম বাড়ার শীর্ষ ১০ প্রতিষ্ঠানের তালিকায় থাকা ইয়াকিন পলিমারের ২৩ দশমিক ৭৮ শতাংশ, সোনারগাঁও টেক্সটাইলের ১৮ দশমিক ৩২ শতাংশ, বিচ হ্যাচারির ১৫ দশমিক ৪১ শতাংশ, মালেক স্পিনিংয়ের ১৪ দশমিক ৯২ শতাংশ, প্রাইম ইন্স্যুরেন্সের ১৪ দশমিক ৭৭ শতাংশ, ন্যাশনাল টি’র ১৪ দশমিক শূন্য ৩ শতাংশ এবং বাংলাদেশ বিল্ডিং সিস্টেমের ১৩ দশমিক ৮০ শতাংশ দাম বেড়েছে।

এমএএস/এমএএইচ/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]