কার্বন ট্রেডের আওতায় বাংলাদেশে বিনিয়োগ হতে পারে: প্রতিমন্ত্রী

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৯:০৪ পিএম, ১৮ মে ২০২২

বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বলেছেন, কার্বন ট্রেডের আওতায় বাংলাদেশে বিনিয়োগ হতে পারে যাতে কম মূল্যে নবায়নযোগ্য জ্বালানি থেকে বিদ্যুৎ পাওয়া যায়।

বুধবার (১৮ মে) সচিবালয়ে বাংলাদেশে নিযুক্ত সুইডেনের রাষ্ট্রদূত আলেকজান্দ্রা বার্জ ভন লিন্ডের নেতৃত্বে সাত সদস্যের প্রতিনিধি দল সৌজন্য সাক্ষাৎ করতে এলে প্রতিমন্ত্রী এ কথা বলেন।

এ সময় তারা পারস্পারিক স্বার্থ-সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা করেন। সাক্ষাৎকালে রাষ্ট্রদূত নবায়নযোগ্য জ্বালানি ও সুইডেনের অবস্থান নিয়ে আলোচনা করেন। সুইডিশ কোম্পানি এইচঅ্যান্ডএমের গ্লোবাল হেড ইউসুফ ইল নাটুর জলবায়ু পরিবর্তন, জ্বালানি, নবায়নযোগ্য জ্বালানি, সবুজ রূপান্তর ও রিসাইক্লিনিং নিয়ে আলোচনা করেন। কার্বন ইমিউশন ও এর প্রতিকার নিয়েও আলোচনা হয়।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ ক্লিন এনার্জির প্রসারে কাজ করছে। বাংলাদেশ কার্বন ইমিউশন খুবই কম করে অথচ ক্ষতিগ্রস্ত দেশগুলোর মধ্যে অন্যতম। কার্বন ট্রেডের আওতায় এখানে বিনিয়োগ হতে পারে যাতে কম মূল্যে নবায়নযোগ্য জ্বালানি থেকে বিদ্যুৎ পাওয়া যায়।

তিনি বলেন, ফুয়েল মিক্সে ক্লিন এনার্জি গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখবে। এইচঅ্যান্ডএম এবং সুইডেন স্রেডার সঙ্গে সমন্বয় করে অংশীদারত্বের ভিত্তিতে এগোলে বাংলাদেশে নবায়নযোগ্য জ্বালানি বা সবুজ রূপান্তর আরও দ্রুত হবে।

এ সময় পরিবেশবান্ধব জ্বালানি এবং সংশ্লিষ্ট খাতে কারিগরি ও প্রযুক্তি সহায়তা নিয়েও আলোচনা করা হয়। প্রতিনিধি দলে অন্যদের মাঝে সুইডিশ দূতাবাসের প্রথম সচিব অ্যানা ভানটেসন, কান্ট্রি ম্যানেজার জিয়াউর রহমান, এইচঅ্যান্ডএমের পাবলিক অ্যাফেয়ার ম্যানেজার মাশাররাত কাদের, এইচঅ্যান্ডএমের এনভাইরনমেন্ট প্রোগ্রাম ম্যানেজার তানজিদা ইসলাম ও এইচঅ্যান্ডএমের পাবলিক অ্যাফেয়ার ম্যানেজার নুসরাত চৌধুরী উপস্থিত ছিলেন।

আরএমএম/বিএ/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]