৩১ ডিসেম্বরের পর সয়াবিন বলে পাম অয়েল বিক্রি নয়: বাণিজ্যসচিব

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৪:২৭ পিএম, ০৬ অক্টোবর ২০২২
ফাইল ছবি

আগামী ৩১ ডিসেম্বরের পর পাম অয়েল সয়াবিন তেল বলে বিক্রি করা যাবে না। একইসঙ্গে খোলা সয়াবিন বিক্রি বন্ধে শিগগির পদক্ষেপ নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব তপন কান্তি ঘোষ।

বৃহস্পতিবার (৬ অক্টোবর) দুপুরে সচিবালয়ে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে এক সভা শেষে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা জানান।

পাম অয়েল খোলাবাজারে পাওয়া যায় না, সয়াবিন তেল হিসেবে বিক্রি হয়ে থাকে, সেটা নিয়ন্ত্রণে কোনো উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে কি না, জানতে চাইলে বাণিজ্যসচিব বলেন, এক্ষেত্রে শিল্প মন্ত্রণালয়ের একটা আইন আছে। সেই অনুযায়ী শিল্প মন্ত্রণালয় এটা দেখে থাকে, পাম অয়েল প্যাকেটে বিক্রি হবে নাকি খোলা বিক্রি হবে। সয়াবিনের জন্য চলতি বছরের ৩১ জুলাই ছিল শেষ তারিখ। ৩১ ডিসেম্বর হচ্ছে পাম অয়েলের জন্য।

তিনি বলেন, যেহেতু ওই সময়ে তেলের দাম অনেক বেশি ছিল। সেজন্য উচ্চপর্যায়ে সিদ্ধান্ত হয় সয়াবিনের ক্ষেত্রে একটু পিছিয়ে দেওয়া। কারণ প্যাকেট সবাইকে করতে হলে একটু দাম বেশি পড়বে। যেহেতু তেলের দাম কমে যাচ্ছে, তাই কিছুদিনের মধ্যে এটা কঠোরভাবে বাস্তবায়ন করতে পারবো। সেক্ষেত্রে সয়াবিন খোলা পাওয়া যাবে না। আর পাম অয়েলের জন্য সময় আছে ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত। আমরা দেখবো ৩১ ডিসেম্বরের মধ্যে বাস্তবায়ন করা যায় কি না।

ট্যারিফ কমিশনের মাধ্যমে ৯টি পণ্যের মূল্য নির্ধারণ প্রসঙ্গে তপন কান্তি ঘোষ বলেন, তার অংশ হিসেবে আজকে এ মূল্য নির্ধারণ করে দেওয়া হলো। রড-সিমেন্টের দামের কথা বেশি আলোচিত হয়েছিল। সেটা নিয়ে তারা কাজ করছে। বিভিন্ন তথ্য নিতে হয়। চাল, আটাসহ অন্য সব পণ্য নিয়ে কৃষিপণ্য বিপণন আইন ২০১৮ রয়েছে। সেই অনুযায়ী কৃষি মন্ত্রণালয় দাম নির্ধারণ করবে। এ বিষয়ে কৃষি মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে কথা বলেছি।

তিনি আরও বলেন, ১৯৫৬ সালের আইন অনুযায়ী কিছু পণ্যের দাম নির্ধারণ করে দেওয়ার ক্ষমতা সরকারের আছে। কিন্তু ২০১৮ সালের আইন অনুযায়ী- এ ৯টি পণ্যসহ অন্যান্য পণ্যের দাম কৃষি মন্ত্রণালয় নির্ধারণ করবে। এ বিষয়ে আমাদের সমন্বয় করতে হবে।

আইএইচআর/এএএইচ/জিকেএস

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।