১৭ ক্যাটাগরিতে ৫৫ কোম্পানি পাচ্ছে আইসিএমএবি অ্যাওয়ার্ড

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০২:২৪ পিএম, ২৮ নভেম্বর ২০২২

১৭ ক্যাটাগরিতে ৫৫ কোম্পানি পাচ্ছে ইনস্টিটিউট অব কস্ট অ্যান্ড ম্যানেজমেন্ট অ্যাকাউন্ট্যান্টস অব বাংলাদেশের (আইসিএমএবি) বেস্ট করপোরেট অ্যাওয়ার্ড। আগামী ১ ডিসেম্বর অনুষ্ঠান করে এই অ্যাওয়ার্ড দেওয়া হবে।

সোমবার (২৮ নভেম্বর) ক্যাপিটাল মার্কেট জার্নালিস্ট ফোরাম (সিএমজেএফ) অডিটোরিয়ামে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান আইসিএমএবির প্রেসিডেন্ট মো. মামুনুর রশিদ।

এ সময় আইসিএমএবি অ্যাওয়ার্ড কমিটির চেয়ারম্যান মো. আব্দুল আজিজ, সাফা উপদেষ্টা ও সাবেক সাফার প্রেসিডেন্ট একেএম দেলোয়ার হোসেন, আইসিএমএবি সেক্রেটারি এ.কে.এম. কামরুজ্জামান, কোষাধ্যক্ষ মো. আলী হায়দার চৌধুরীসহ অন্যান্য কর্মকর্তা উপস্থিত ছিলেন।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, আইসিএমএবি বেস্ট করপোরেট অ্যাওয়ার্ড আগামী ১ ডিসেম্বর রাজধানীর হোটেল ইন্টার কন্টিনেন্টালে অনুষ্ঠিত হবে। এ সময় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি।

এছাড়া বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত থাকবেন বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) চেয়ারম্যান অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়া-উল-ইসলাম।

১৭ ক্যাটাগরিতে ৫৫ কোম্পানি পাচ্ছে আইসিএমএবি অ্যাওয়ার্ড

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, এবার আইসিএমএবি বেস্ট করপোরেট অ্যাওয়ার্ডের জন্য ১৬৫টি কোম্পানি আবেদন জানিয়েছিল। আইসিএমএবি বেস্ট করপোরেট অ্যাওয়ার্ড দেওয়ার ক্ষেত্রে ২৮টি মানদণ্ড আমলে নেওয়া হয়েছে। ১৭টি ক্যাটাগরিতে, ৫৫টি কোম্পানিকে ব্রোঞ্জ, সিলভার ও গোল্ড পুরস্কার দেওয়া হবে।

অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে আইসিএমএবির প্রেসিডেন্ট মো. মামুনুর রশিদ বলেন, অ্যাওয়ার্ড দেওয়ার ক্ষেত্রে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত কোম্পানিকে বিবেচনায় নেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি এনজিও প্রতিষ্ঠানকেও এবার অ্যাওয়ার্ড দেওয়া হচ্ছে।

তিনি বলেন, তালিকাভুক্ত কোম্পানির মধ্যে যেসব কোম্পানির মার্কেট ক্যাপিটাইলাইজেশন বেশি, আমরা ওই সব কোম্পানিকে প্রাধান্য দেয়। এখানে তথ্যের গ্রহণযোগ্যতা এবং বিশ্বাসযোগ্যতা একটি ব্যাপার। আমরা দেখি যেগুলো ভালো কাঠামোর কোম্পানি তাদের ডিসক্লোজার বা তথ্যের বিশ্বাসযোগ্যতা বেশি। অনেকগুলো মানদণ্ড বিবেচনায় নিয়ে আমরা এ পর্যন্ত ১৭টি সেক্টরকে নির্বাচন করেছি।

তিনি আরও বলেন, আমরা প্রতি বছর নতুন সেক্টর সংযুক্ত করি। শুরু করেছিলাম ১০টি সেক্টর দিয়ে। এরপর ১২, ১৩টি করে এবার ১৭টি সেক্টকরকে নির্বাচিত করেছি। আশাকারি সামনে ২০ সেক্টর হতে পারে। এগ্রো, গার্মেন্টস, সিমেন্ট, বহুজাতিক কোম্পানি, পাওয়ার সেক্টর, টেলিকম সেক্টর, ব্যাংক, আর্থিক প্রতিষ্ঠান, বিমা, ওষুধ, টেক্সটাইল এগুলোকে আমরা বিশেষ গুরুত্ব দেয়।

এমএএস/এমআরএম/জেআইএম

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।