প্রযুক্তিতে স্বয়ংসম্পূর্ণ হলে কর আদায়ে জটিলতা কমবে

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৪:৫৮ পিএম, ০৫ ডিসেম্বর ২০২২

প্রযুক্তিগতভাবে স্বয়ংসম্পূর্ণ হতে পারলে কর আদায়ে জটিলতা কমে আসবে। আর সে লক্ষ্য রাজস্ব কর্মকর্তাদের দক্ষতা বাড়ানোর কোনো বিকল্প নেই।

জাতীয় রাজস্ব বোর্ডে (এনবিআর) আইটি কর্মকর্তাদের এক প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠানে এমন অভিমত জানিয়েছেন কর বিশেষজ্ঞরা।

সোমবার (৫ ডিসেম্বর) রাজধানীর গুলশানে ম্যাংগো টেলসার্ভিসেস লিমিটেড মিলনায়তনে রাজস্ব বোর্ডের নির্বাচিত আইটি কর্মীদের জন্য মাসব্যাপী প্রশিক্ষণ কার্যক্রম উদ্বোধন করা হয়। প্রশিক্ষণ কর্মশালাটি বিশেষত রাজস্ব কর্তৃপক্ষের আইটি বিশেষজ্ঞদের কর সংগ্রহ এবং প্রশাসনের জন্য ব্যবহৃত সিস্টেমগুলোর বিকাশ ও পরিচালনায় বিশেষ প্রযুক্তিগত দক্ষতা প্রদানের লক্ষ্যে আয়োজন করা হয়েছে।

অনুষ্ঠানে রাজস্ব বোর্ডের ট্যাক্স তথ্য ব্যবস্থাপনা ও পরিষেবার সদস্য জাহিদ হাসান বলেন, বাংলাদেশের এই বিশেষায়িত কর ব্যবস্থার নকশা, নির্মাণ, স্থাপন এবং পরিচালনার ক্ষেত্রে রাজস্ব কর্তৃপক্ষের স্বয়ংসম্পূর্ণ হতে হবে। রাজস্ব বোর্ডের প্রশাসনিক কার্যক্রমকে সম্পূর্ণরূপে ডিজিটাল করে ফেলা অনেক গুরুত্বপূর্ণ।

তিনি বলেন, ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্য অনুযায়ী ২৪ ঘণ্টা করদাতাদের বিভিন্ন পরিষেবায় অধিগমনের সুযোগ করে দেওয়া হয়েছে।

ইউরোপীয় ইউনিয়নের কর্মসূচি কর্মকর্তা মিস মার্গা পিটার্স বলেন, প্রশিক্ষণের ফলে প্রযুক্তিগত রূপান্তরের সুবিধাগুলো পর্যবেক্ষণ করার জন্য আমরা উন্মুখ হয়ে বসে আছি। এ প্রশিক্ষণটিতে ব্যাপক আকারে আইসিটি কোর্সসমূহ যেমন- ক্লাসিক্যাল আইটি ট্রেনিং, একই সঙ্গে নন-আইটি ম্যানেজারদের জন্য আইটি প্রশিক্ষণ, অফিস অটোমেশন টুলস ইত্যাদি আরও অনেক কোর্স রয়েছে।

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, প্রশিক্ষণ কর্মশালাটি সিস্টেমের উন্নয়ন এবং ডাটাবেইজ তদারকিকরণ, এর সুরক্ষা এবং গুনগত মান নিশ্চিত করবে এবং নির্দিষ্ট সফটওয়্যার সম্পর্কিত ডোমেনগুলোকে কভার করবে।

রাজস্ব বোর্ডের আইটি বিভাগের কর্মীদের ভূমিকার ওপর ভিত্তি করে এ প্রশিক্ষণের জন্য নির্বাচন করা হয়েছিল। তারা তাদের দক্ষতার মাধ্যমে ভবিষ্যতে পরবর্তী কোর্সসমূহে অংশ নেওয়ার সুযোগ পাবেন।

এসএম/এমকেআর/এএসএম

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।