ইংল্যান্ডেও অনেক প্রকল্প ১৫-২০ বছর ঝুলে আছে: পরিকল্পনামন্ত্রী

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০২:৫৬ পিএম, ০৭ ডিসেম্বর ২০২২

‘দুনিয়ার কোনো দেশ শতভাগ প্রকল্প বাস্তবায়ন করে না। এমনকি সব থেকে উন্নত দেশ ইংল্যান্ডও বাস্তবায়ন করে না। দেশটির বিষয়ে আমার কিছু ব্যক্তিগত ধারণা আছে, পরিবার-পরিজন কেউ কেউ সেখানে বসবাস করে। মাঝে মাঝে আসা- যাওয়া করি, বই পড়ি। এই থেকে জানতে পেরেছি ইংল্যান্ডেও অনেক প্রকল্প ১৫ থেকে ২০ বছর ঝুলে আছে।’

বুধবার (৭ ডিসেম্বর) শেরে বাংলানগরের নিজ দপ্তরে এক ব্রিফিংয়ে পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান এসব কথা বলেন।

প্রকল্পের ধীরগতি প্রসঙ্গে ইংল্যান্ডের উদাহরণ টেনে মন্ত্রী বলেন, ইংল্যান্ডও এসব প্রকল্পের কাজ শেষ করতে পারছে না। আমি খোঁজ-খবর নিয়ে থাকি এটা কেন হলো? এখানেও একই সমস্যা মানুষের বসবাস ও শব্দ দূষণ। বিশেষ করে হিত্রো বিমানবন্দরের রানওয়ে ২০ বছর ঝুলে আছে। কারণ এই এলাকার মানুষ অভিযোগ দিয়েছে প্লেনের শব্দে নাকি তারা ঘুমাতে পারে না। আমাদের দেশেও একই সমস্যা আছে।

বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচি (এডিপি) বাস্তবায়নে ধীর গতির জন্য জমি অধিগ্রহণ জটিলতাকে দুষছেন। একই সঙ্গে অর্থের প্রাপ্তির ধীরগতিও দায়ী বলে মনে করেন তিনি।

একই সঙ্গে তিনি মনে করেন, প্রকল্প পরিচালকরা কেউই প্রকল্প এলাকায় থাকেন না। একই সঙ্গে একাধিক প্রকল্পের দায়িত্ব নিয়েও সরকারি কর্মকর্তারা ঢাকায় থাকেন বলেও অভিযোগ করেন তিনি এতেও প্রকল্প বাস্তবায়নের গতি কমে। প্রকল্প বাস্তবায়নে কেন ধীরগতি হয় সেই জবাব কিন্তু আমাদের কাছে আছে। এর প্রধান কারণ জমি সংক্রান্ত কারণ। এটা মাথাব্যথার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। জমির মালিকানা, মাজার মসজিদ, অনেক আবেগ জড়িত আছে। প্রকল্প বাস্তবায়নে জমি পেতে দেরি হয়।

‘প্রকল্প টাকার ওপর নির্ভর করে। প্রকল্প বাস্তবায়নের টাকার গতিবিধি স্মুথ করতে পারিনি। প্রকল্প চলাচলের গতিবিধি সঠিক নয় স্মুথ করতে পারি না। প্রকল্পের টাকা বারবার টক্কর খায়।’

প্রকল্প বাস্তবায়নে ডলারের ঘাটতি আছে কি? এমন প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, আকাশে মেঘ থাকলে সর্বোচ্চ ছায়া পড়ে। তবে আমাদের টাকার কোনো সমস্যা নেই। প্রকল্প বাস্তবায়নে যে টাকা দিয়েছি তাই খরচ করেননি প্রকল্প পরিচালকেরা। প্রকল্পে টাকার সমস্যা নেই। ফরেন এইডে টাকার বিশাল পাইপ লাইন আছে। ফরেন এইডে ছাড় ও প্রতিশ্রুতি কমেছে। এর কারণ আমরা সাশ্রয় করছি সবখাতে।

এমওএস/এমআরএম/এএসএম

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।