অবশেষে যোগদান করলেন ভিকারুননিসার অধ্যক্ষ

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৫:৪৯ পিএম, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯

অবশেষে আনুষ্ঠানিকভাবে যোগদান করলেন ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ ফওজিয়া রেজওয়ান। আদালতের নিষেধাজ্ঞা না থাকায় মঙ্গলবার (১৭ সেপ্টেম্বর) দুপুরে প্রতিষ্ঠানের আহ্বায়ক কমিটির চেয়ারম্যানের উপস্থিতিতে তাকে দায়িত্ব বুঝিয়ে দেয়া হয়।

প্রতিষ্ঠান সূত্রে জানা যায়, মঙ্গলবার দুপুরে আহ্বায়ক কমিটির সভাপতি নাজমুল হকের সঙ্গে নতুন অধ্যক্ষ ফওজিয়া রেজওয়ান ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের মূল শাখা বেইলি রোডের ক্যাম্পাসে যান। পরে সভাপতি উপস্থিত থেকে অধ্যক্ষকে তার দায়িত্ব বুঝিয়ে দেন। দায়িত্ব বুঝে পাওয়ার পর চেয়ারম্যানসহ ভিকারুননিসার সব শাখা প্রধানদের সঙ্গে বৈঠক করেন অধ্যক্ষ ফওজিয়া রেজওয়ান।

বৈঠকে উপস্থিত একাধিক শিক্ষক জানান, নতুন অধ্যক্ষের সঙ্গে শাখা প্রধান শিক্ষকদের বৈঠক হয়েছে। তিনি বিভিন্ন দিকনির্দেশনা দিয়েছেন। সম্প্রতি ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজে ভর্তি-বদলি বাণিজ্যসহ বিভিন্ন অনিয়মের বিষয় তুলে ধরে এমন কার্মকাণ্ড থেকে সবাইকে বিরত থাকার পরামর্শ দেন।

প্রতিষ্ঠানের সুনাম অক্ষুণ্ন রাখতে সব শিক্ষককে যথাযথভাবে নিজ নিজ দায়িত্ব পালন করতে বলেছেন অধ্যক্ষ ফওজিয়া রেজওয়ান। এছাড়া কোনো শিক্ষক যেন কোচিং বাণিজ্যের সঙ্গে জড়িত না থাকেন সে বিষয়েও সতর্ক করেছেন তিনি।

যোগদানের পর অধ্যক্ষ ফওজিয়া রেজওয়ান জাগো নিউজকে বলেন, সরকারি নির্দেশনায় আমি গতকাল (সোমবার) যোগদান করলেও আদালতের নিষেধাজ্ঞা থাকায় আজ (মঙ্গলবার) আনুষ্ঠানিকভাবে যোগদান করেছি। সভাপতি উপস্থিত থেকে প্রতিষ্ঠানের প্রধান হিসেবে সব দায়িত্ব বুঝিয়ে দিয়েছেন। যতদিন দায়িত্বে থাকব সততা ও দায়িত্বশীলভাবে দায়িত্ব পালন করব।

এদিকে নতুন অধ্যক্ষ যোগদানে আনন্দিত ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের অভিভাবক ফোরামের নেতারা। ফোরামের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মজিদ সুজন জাগো নিউজকে বলেন, দীর্ঘদিন পর ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজে অধ্যক্ষ নিয়োগ দেয়ায় আমরা আনন্দিত। আজ তিনি আনুষ্ঠানিকভাবে যোগদান করেছেন। আগামীকাল (বুধবার) অভিভাবক ফোরামের পক্ষ থেকে অধ্যক্ষকে ফুল দিয়ে বরণ করা হবে।

তিনি আরও বলেন, এ প্রতিষ্ঠানে আগামী দিনে উন্নয়ন করবে -এ প্রত্যশা আমাদের সবার। পাশাপাশি একটি নিরপেক্ষ নির্বাচন আয়োজনের মাধ্যমে যোগ্য ব্যক্তিরা যাতে গভর্নিং কমিটিতে সুযোগ পান সেই সুযোগ তৈরি করতে হবে।

এমএইচএম/আরএস/জেআইএম