‘সব শিক্ষাব্যবস্থাকে জাতীয়করণ করা হবে’

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৪:২৯ পিএম, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯

শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী বলেছেন, এক সময় আমরা শিক্ষার প্রসারের ওপর গুরুত্ব দিয়ে সফল হয়েছি। এই মুহূর্তে আমরা শিক্ষার গুণগত মান এবং অবকাঠামো উন্নয়নে জোর দিচ্ছি। এ ক্ষেত্রে যখন সফল হব তখন আমরা পর্যায়ক্রমে মাদরাসা শিক্ষাসহ সব শিক্ষাব্যবস্থাকে জাতীয়করণ করব।

বুধবার রাজধানীর বসিলায় ইসলামি আরবি বিশ্ববিদ্যালয়ের আয়োজনে ‘মাদরাসায় উচ্চ শিক্ষা ব্যবস্থার উন্নয়ন’ শীর্ষক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। ইসলামি আরবি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মুহাম্মাদ আহসান উল্লাহর সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য রাখেন মাদরাসা শিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালক সফিউদ্দিন আহমদ।

উপমন্ত্রী বলেন, এই মুহূর্তে নৈতিকতার অভাব আমাদের সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ। যারা ধর্মীয় শিক্ষায় শিক্ষিত, পেশাগত জীবনে তারা নৈতিক হবেন, দেশ ও সমাজ তাই আশা করে। ধর্মীয় শিক্ষায় শিক্ষিত আলেম সমাজকে সর্বোচ্চ নৈতিক হওয়ার আহ্বান জানান তিনি।

মহিবুল হাসান বলেন, শারীরিক শাস্তি এক ধরনের ফৌজদারি অপরাধ। শৃঙ্খলা বিধান করার নাম করে কোনো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শারীরিক শাস্তি দেয়া উচিত নয়। তা কোনোভাবেই মেনে নেয়া হবে না।

মাদরাসা শিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালক সফিউদ্দিন আহমদ বলেন, বাংলাদেশের জিডিপির প্রবৃদ্ধির হার বর্তমানে ৮ শতাংশ। এই অগ্রগতি ধরে রাখতে সবাইকে ভূমিকা রাখতে হবে। মাদরাসা শিক্ষায় শিক্ষিতদের এ ক্ষেত্রে পিছিয়ে থাকলে চলবে না। মাদরাসার কেউ যেন বেকার না থাকে সেই ব্যবস্থা করছে বর্তমান সরকার।

তিনি আরও বলেন, বর্তমান সরকার ১৮০০ মাদরাসায় চারতলা ভবন নির্মাণ করেছে এবং ৬৫৩ মাদরাসায় মাল্টিমিডিয়ার ক্লাসরুম চালু করেছে। মাদরাসায়ও স্কুলের মতো উপবৃত্তি এবং স্কুল ফিডিংয়ের ব্যবস্থা করা হবে। এমপিওভুক্তির কাজ মাদরাসা অধিদফতর করবে। আগামী মাস থেকে এ কার্যক্রম অধিদফতর থেকে চালু করা হবে।

এমএইচএম/এমএসএইচ/এমকেএইচ