মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষার ফল প্রকাশ হতে পারে সোমবার

মনিরুজ্জামান উজ্জ্বল
মনিরুজ্জামান উজ্জ্বল মনিরুজ্জামান উজ্জ্বল , বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০১:৩৭ পিএম, ১৩ অক্টোবর ২০১৯
ফাইল ছবি

সরকারি ও বেসরকারি মেডিকেল কলেজের এমবিবিএস প্রথম বর্ষ (২০১৯-২০) ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণকারী প্রায় ৭০ হাজার পরীক্ষার্থীর উত্তরপত্র ইন্টেলিজেন্ট ক্যারেক্টার রিকগনিশন (আইসিআর) মেশিনের মাধ্যমে স্ক্যানিংয়ের কাজ আজ রোববার দুপুরে শেষ হচ্ছে। স্ক্যানিং শেষে রাত থেকে স্ক্যানিংকৃত প্রায় ৭০ হাজার উত্তরপত্র মূল্যায়ন শুরু হবে।

আজ রাতেই নির্ধারিত হবে ভর্তিচ্ছুদের ভাগ্য। আগামীকাল সোমবার (১৪ অক্টোবর) যেকোনো সময়ে চলতি বছরের মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশিত হতে পারে।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদ ও পরিচালক (চিকিৎসা শিক্ষা ও স্বাস্থ্য জনশক্তি উন্নয়ন) অধ্যাপক ডা. আহসান হাবিব আজ জাগো নিউজের সঙ্গে আলাপকালে সুনির্দিষ্ট দিনক্ষণ না বললেও আগামীকাল যেকোনো সময়ে মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশের সম্ভাবনা রয়েছে। তারা বলেন, পরীক্ষা কমিটির সুপারিশ অনুযায়ী ফলাফল প্রকাশিত হবে।

পরীক্ষা কমিটির সঙ্গে সংশ্লিষ্ট একাধিক কর্মকর্তা জানান, গত বছর পর্যন্ত শুধু উত্তরপত্র (এ-৪ আকারের কাগজ) স্ক্যান করা হতো। আকারে ছোট হওয়ায় এতে সময় কম লাগত। কিন্তু এবার ভিন্ন পদ্ধতিতে বড় আকারের (এ-৩ আকারের কাগজ) আইসিআর মেশিনে পরীক্ষা করা হচ্ছে। তারা জানান, এ বছর পরীক্ষা কেন্দ্র থেকে প্রশ্ন ও উত্তরপত্র দুটোই পাঠানো হয়েছে। স্বাস্থ্য অধিদফতরে আসার পর প্রশ্ন ও উত্তরপত্র আলাদা করে শুধু উত্তরপত্র স্ক্যানিং করা হচ্ছে। এতে সময় বেশি লাগছে। তাছাড়া কাগজের সাইজ বড় হওয়ায় স্ক্যানিংয়েও সময় বেশি লাগছে।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের পরিচালক (চিকিৎসা শিক্ষা ও স্বাস্থ্য জনশক্তি উন্নয়ন) অধ্যাপক আহসান হাবীব দুপুরে জাগো নিউজকে জানান, পরীক্ষার আগে থেকে গত কয়েকদিন পরীক্ষা কমিটি ও তাদের সহযোগিরা বলতে গেলে স্বাভাবিক নাওয়া-খাওয়া ছেড়ে দিয়ে টানা পরিশ্রম করে চলেছেন। সচ্ছতা ও সুষ্ঠুভাবে পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশের স্বার্থে তারা দিনরাত পরিশ্রম করছেন।

পরীক্ষা কমিটির সংশ্লিষ্টরা জানান, আজ দুপুরের মধ্যে অংশগ্রহণকারী প্রায় ৭০ হাজার পরীক্ষার্থীর উত্তরপত্র স্ক্যানিংয়ের কাজ শেষ হবে। এরপর শাহজালাল প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. জাফর ইকবাল ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. মকবুল হোসেনের নেতৃত্বে পৃথক দুটি বিশেষজ্ঞ দল উত্তরপত্র মূল্যায়ন করবেন। মূল্যায়ন শেষে তারা সন্তুষ্ট হলে ফলাফল প্রকাশে মতামত দেবেন।

গত শুক্রবার (১১ অক্টোবর) রাজধানীসহ সারাদেশের ১৯টি কেন্দ্রের ৩২টি ভেন্যুতে সরকারি-বেসরকারি মেডিকেল কলেজের এমবিবিএস প্রথম বর্ষ ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। ১০০ নম্বরের নৈর্ব্যক্তিক প্রশ্নে সকাল ১০টা থেকে ১১টা পর্যন্ত এক ঘণ্টার এ ভর্তি পরীক্ষা হয়। ভর্তি পরীক্ষায় পদার্থবিদ্যায় ২০, রসায়নে ২৫, জীববিজ্ঞানে ৩০, ইংরেজিতে ১৫ এবং বাংলাদেশের ইতিহাস ও মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক সাধারণ জ্ঞানে ১০ নম্বর ছিল। মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষায় পাস নম্বর ৪০।

এবারের এমবিবিএস ভর্তি পরীক্ষায় সরকারি চার হাজার ৬৮টি ও বেসরকারি ছয় হাজার ৩৩৬টিসহ ১০ হাজার ৪০৪টি আসনের বিপরীতে ৭২ হাজার ৯২৮ ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থী আবেদন করলেও শেষ পর্যন্ত সাড়ে তিন হাজার পরীক্ষার্থী কেন্দ্রে অনুপস্থিত ছিলেন।

জানা গেছে, পরীক্ষায় প্রাপ্ত নম্বরের ভিত্তিতে জাতীয় মেধাতালিকার ক্রমানুসারে প্রথমে সরকারি মেডিকেল কলেজে ভর্তির সুযোগ পাবেন ভর্তিচ্ছুরা।

এমইউ/এসআর/পিআর