ভিকারুননিসার শিক্ষার্থী-অভিভাবকদের হাতে হাতে ‘উপহার’

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০১:৫৩ পিএম, ২১ অক্টোবর ২০১৯

রাজধানীর ভিকারুননিসা নূন স্কুল, আজিমপুর শাখায় আজ (সোমবার) বেলা ১১টা ৫০ মিনিটে তৃতীয় শ্রেণির শিক্ষার্থীদের ছুটি হয়। ছুটি শেষে সন্তানদের বাসায় নেয়ার জন্য স্কুল গেটে অপেক্ষমাণ অভিভাবকরা। স্কুল গেটের কয়েকজন তরুণ-তরুণীসহ বিভিন্ন বয়সী লোকজনকে হাসিমুখে অভিভাবক ও শিক্ষার্থীদের হাতে হাতে একটি করে ‘উপহার’ তুলে দিয়ে একজনের পক্ষে ভোট ও দোয়া চাইতে দেখা যায়। ‘উপহার’ হাতে সবাইকেই খুশি হতে দেয়া যায়। একটু খেয়াল করতেই দেখা যায় আসলে এটি মূলত জুতার আদলে তৈরি চাবির রিং।

আগামী ২৫ অক্টোবর (শুক্রবার) রাজধানীর বেইলি রোডসহ ভিকারুননিসার চার শাখায় একযোগে অভিভাবক প্রতিনিধিসহ গভর্নিং বডির নির্বাচনকে কেন্দ্র করে একজন প্রার্থীর পক্ষে শুভেচ্ছা উপহারস্বরূপ শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের হাতে ‘জুতার চাবির রিং’ তুলে দেয়া হচ্ছিল। যিনি প্রার্থী তিনি নিজে দাঁড়িয়ে হাসিমুখে শুভেচ্ছা বিনিময়ের পাশাপাশি কর্মীদের শুভেচ্ছা উপহার কার্যক্রম মনিটরিং করছিলেন।

Viqarunnisa

অন্য প্রার্থীরাও পিছিয়ে নেই, তারা নিজেরা ও তাদের সমর্থক কর্মী এবং অভিভাবকরা স্কুল গেটের বাইরে দাঁড়িয়ে ঘুরে ঘুরে অন্যান্য অভিভাবক ও শিক্ষার্থীদের সঙ্গে হাসিমুখে শুভেচ্ছা বিনিময়ের পাশাপাশি ব্যালট নম্বরসহ ছোটখাটো উপহার (মিনা কার্টুন, ডোরেমন, মটু-পাতলুসহ বিভিন্ন স্টিকার, ফুল ইত্যাদি) তুলে দিচ্ছিলেন। কেউ কেউ প্রার্থীর পক্ষে একাধিক ব্যানার নিয়ে দাঁড়িয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করছিলেন।

Viqarunnisa

নির্বাচনের আর মাত্র চারদিন বাকি। আসন্ন এ নির্বাচনে রাজনীতিবিদ, ব্যবসায়ী, পুলিশ কর্মকর্তা, আইনজীবীসহ সমাজের বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার প্রার্থীরা অংশগ্রহণ করছেন। নির্বাচন উপলক্ষে গত ১ থেকে ৩ অক্টোবর মনোনয়নপত্র বিতরণ করা হয়। মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার অনেক আগে থেকেই স্কুলের আশেপাশের রাস্তা ও দেয়াল ব্যানার ও পোস্টারে ছেয়ে যায়। প্রতিদিনই চলে জনসংযোগ। তবে নির্বাচন যত ঘনিয়ে আসছে প্রার্থী ও তাদের সমর্থকদের ব্যস্ততা আরও বেড়ে যাচ্ছে। ঘনঘন ক্ষুদেবার্তা পাঠানোর পাশাপাশি স্বশরীরে উপস্থিত থেকে প্রাথীদের গুণগান গাইছেন। অভিভাবক প্রতিনিধি হিসেবে নির্বাচিত হলে শিক্ষার্থীদের ন্যায্য দাবি-দাওয়া আদায়ে সর্বোচ্চ প্রচেষ্টা চালাবেন বলে প্রতিশ্রুতি দিচ্ছেন।

আজ সরেজমিনে আজিমপুর শাখায় সুপ্রিম কোর্টের অ্যাডভোকেট রীনা পারভীনের শুভেচ্ছা ‘জুতার চাবির রিং’ হাতে হাতে দেখা যায়। এটা কেন দেয়া হচ্ছে? এ প্রশ্নের জবাবে তিনি জানান, আইনপেশার পাশাপাশি তিনি একজন উদ্যোক্তা ব্যবসায়ী। তিনি পাট দিয়ে বিভিন্ন পণ্যসামগ্রী তৈরি করেন। দেশে-বিদেশে এ পণ্যের চাহিদা রয়েছে। তাই নির্বাচন উপলক্ষে তার প্রতিষ্ঠানের তৈরি পণ্যসামগ্রী (পাটের জুতার বিশেষ ধরনের চাবির রিং) উপহার দিচ্ছেন।

Viqarunnisa

বিএম আলম সিদ্দিকী নামের এক প্রার্থী নিজেকে স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতা পরিচয় দিয়ে বলেন, অতীতের নির্বাচনে অভিভাবকদের অনেকেই ভুল নেতা নির্বাচন করেছেন। এবার যেন তারা সেই ভুল না করেন যোগ্য প্রার্থীকে বেছে নেন সে ব্যাপারে সতর্ক থাকার পরামর্শ দিচ্ছেন। ডিএমপি হেড কোয়ার্টারে কর্মরত একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তার পক্ষেও বেশ প্রচারণা চালাতে দেখা যায়।

ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের গভর্নিং বডির নির্বাচন ঘিরে অভিভাবক ও শিক্ষকদের মধ্যে বিভেদ সৃষ্টি হয়েছে। প্রতিষ্ঠানপ্রধান যথাসময়ে নির্বাচনের কথা বললেও অভিভাবকরা বলছেন, এখনই নির্বাচন হলে শিক্ষার্থীদের পড়াশোনা ব্যাহত হবে।

Viqarunnisa

অভিভাবকদের দাবি, ২ নভেম্বর জেএসসি এবং ১৭ নভেম্বর প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষা শুরু হবে। ১৪ অক্টোবর থেকে চলছে এসএসসি টেস্ট, নভেম্বরে শুরু হবে এইচএসসি টেস্ট পরীক্ষা। এ অবস্থায় নির্বাচন কার্যক্রম চললে শিক্ষার্থীদের পড়াশোনা ব্যাহত হবে।

অভিভাবকরা জানান, কলেজের বিরুদ্ধে নিয়োগ বাণ্যিজ্যসহ সব দুর্নীতির বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ গ্রহণ, শিক্ষার্থীদের পড়াশোনার সুষ্ঠু পরিবেশ ফেরানো এবং সব পরীক্ষা শেষে নির্বাচন করতে হবে। অভিভাকরা এ-সংক্রান্ত একটি চিঠি ঢাকা শিক্ষা বোর্ডে জমা দিয়েছেন।

Viqarunnisa

জানতে চাইলে ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের কলেজ পরিদর্শক অধ্যাপক হারুন অর রশিদ বলেন, নির্বাচন স্থগিত রাখতে অভিভাবকরা একটি আবেদন করেছেন। আবেদনের প্রেক্ষিতে অধ্যক্ষের কাছে জবাব চাওয়া হয়েছে। অধ্যক্ষের জবাব পাওয়ার পর এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত হবে।

এ বিষয়ে ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ ফওজিয়া আক্তার বলেন, শিক্ষা বোর্ডের কাছে জবাব পাঠানো হয়েছে। যথাসময়ে নির্বাচন হলে কোনো সমস্যা নেই।

এমইউ/বিএ/পিআর