মাদরাসা শিক্ষক-কর্মচারীদের এমপিওভুক্তির আবেদন ২১ থেকে ২৯ মে

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০২:৫৬ পিএম, ১৭ মে ২০২০

মাদরাসার শিক্ষক-কর্মচারীদের দ্বিতীয় দফায় এমপিওভুক্তির জন্য আবেদন কার্যক্রম শুরুর সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। এ ধাপে আগামী ২১ থেকে ২৯ মে পর্যন্ত অনলাইনে এমপিওভুক্তি ও কোড নম্বরের জন্য আবেদন করতে পারবেন শিক্ষক-কর্মচারীরা।

রোববার মাদরাসা শিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালক সফিউদ্দিন আহমেদ স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ১ থেকে ৪ মে পর্যন্ত প্রথম ধাপে অনেক মাদরাসা শিক্ষক-কর্মচারী বিদ্যমান পরিস্থিতিতে আবেদন করতে পারেননি। এতে এমপিও পাওয়ার যোগ্যতা থাকা অনেক শিক্ষক-কর্মচারী রয়েছেন। আবার অনেক শিক্ষক-কর্মচারীর আবেদন অসুম্পূর্ণ/ক্রটিপূর্ণ হওয়ায় আবার অনেকের কাগজপত্র/সংযুক্তি ঘাটতি থাকার কারণ তা সফলভাবে নিষ্পত্তি করা সম্ভব হয়নি। এ পরিপ্রেক্ষিতে নতুন এমপিওভুক্ত এমপিওস্তর পরিবর্তনকৃত বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের (মাদরাসা-কারিগরি) শিক্ষক-কর্মচারীরা আগামী ২১ মে থেকে ২৯ মে পর্যন্ত আবেদন করতে পারবেন।

প্রতিষ্ঠান প্রধানদের ২৯ মে’র মধ্যে তার প্রতিষ্ঠানের যোগ্য শিক্ষক-কর্মচারীর স্বয়ংসম্পূর্ণ এমপিও আবেদন অনলাইনে সংশ্লিষ্ট উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তাদের নিকট পাঠাতে বলা হয়েছে। কর্মকর্তাদের এমপিওর আবেদনগুলো নিষ্পত্তি করতে বলা হয়েছে ৪ জুনের মধ্যে। ৮ জুনের মধ্যে জেলা শিক্ষা কর্মকর্তাদের আবেদনগুলো নিষ্পত্তি করতে বলা হয়েছে। ১৫ জুনের মধ্যে এমপিও আবেদন আঞ্চলিক উপ-পরিচালকদের কাছে পাঠাতে বলা হয়েছে। আবেদনের জন্য শেষ সময় পর্যন্ত অপেক্ষা না করে দ্রুত সময়ের মধ্যে তা সম্পন্ন করতে অনুরোধ জানানো হয়েছে।

এদিকে কারিগরি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ১২১ জন শিক্ষক-কর্মচারীকে নতুন করে এমপিওভুক্ত করা হয়েছে। গতকাল শনিবার (১৬ মে) কারিগরি শিক্ষা অধিদফতর এক বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

অধিদফতরে আসা নতুন এমপিওভুক্ত প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকদের ৩০৯টি আবেদন পড়েছিল। সেখান থেকে যাচাই শেষে ১২১ শিক্ষক-কর্মচারীকে এমপিওভুক্ত করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

এর আগে শনিবার দুপুরে নতুন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারীদের বেতন-ভাতা প্রদান বিষয় মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতরের জরুরি সভা অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে ঈদের আগে শিক্ষক-কর্মচারীদের বেতন-ভাতা প্রদানের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

এমএইচএম/বিএ/পিআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]