‘অনলাইন শিক্ষা কার্যক্রমে শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণ আশাব্যঞ্জক নয়’

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৮:৪৮ পিএম, ২৩ নভেম্বর ২০২০
ফাইল ছবি

বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) চেয়ারম্যান ড. কাজী শহীদুল্লাহ বলেছেন, ‘অনলাইনভিত্তিক শিক্ষা কার্যক্রমে বেশিরভাগ শিক্ষার্থীর অংশগ্রহণ আশাব্যঞ্জক নয়। এক্ষেত্রে শিক্ষকদের আরও বেশি সচেতন হতে হবে।’

সোমবার (২৩ নভেম্বর) ইউজিসির স্ট্র্যাটেজিক প্ল্যানিং, কোয়ালিটি অ্যাসুরেন্স (এসপিকিউএ) বিভাগ আয়োজিত ‘অনলাইন পাঠদানে শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণ’ শীর্ষক কর্মশালার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন।

তিনি দেশের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে অনলাইনে পাঠদান অংশগ্রহণমূলক, আকর্ষণীয় ও কার্যকরভাবে সম্পাদন করার আহ্বান জানান।

ইউজিসি চেয়ারম্যান বলেন, ‘বেশিরভাগ শিক্ষার্থীর অনলাইনভিত্তিক শিক্ষা কার্যক্রমে অংশগ্রহণ আশাব্যঞ্জক নয়। এক্ষেত্রে শিক্ষকদের আরও বেশি সচেতন হতে হবে। অনলাইনে পাঠদান আরও আনন্দময় ও আকষর্ণীয় করতে হবে। শিক্ষকদের আন্তরিকতার সাথে ও উপযুক্ত পরিবেশে ক্লাস নিতে হবে। পাঠে শিক্ষার্থীদের কার্যকর অংশগ্রহণ নিশ্চিত করতে হবে এবং শিক্ষার্থীরা যাতে অনলাইন পাঠে উপকৃত হয় সেদিকে লক্ষ্য রাখতে হবে।’ এ সময় অনলাইন পাঠে শিক্ষার্থীদের মনোযোগ ধরে রাখতে শিক্ষকদের আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহারের পরামর্শ দেন তিনি।

তিনি আরও বলেন, অনলাইন শিক্ষা কার্যক্রমের প্রধান দু’টি সমস্যা (ডিভাইস ও ইন্টারনেট) সমাধান ইতোমধ্যে করা হয়েছে। অনলাইন শিক্ষা কার্যক্রম সুষ্ঠভাবে পরিচালনার জন্য পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে ইনস্টিটিউশনাল কোয়ালিটি অ্যাসিউরেন্স সেল (আইকিউএসি) ও সেন্টার অব এক্সিলেন্স ইন টিচিং অ্যান্ড লার্নিংকে (সিইটিএল) কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণের আহ্বান জানান।

ইউজিসি সদস্য প্রফেসর ড. বিশ্বজিৎ চন্দ্রের সভাপতিত্বে কর্মশালায় ইউজিসি সদস্য প্রফেসর ড. মো. আবু তাহের, এসপিকিউএ বিভাগের পরিচালক ড. সুলতান মাহমুদ ভূঁইয়া, জনসংযোগ ও তথ্য অধিকার বিভাগের পরিচালক ড. শাসমুল আরেফিন উপস্থিত ছিলেন। কর্মশালায় রিসোর্চপারসন হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ইন্ডিপেন্ডেন্ট ইউনিভার্সিটি, বাংলাদেশের (আইইউবি) স্কুল অব ইঞ্জিনিয়ারিং অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. ইউসুফ মাহবুবুল ইসলাম।

উদ্বোধনী দিনে কর্মশালায় ২৩টি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের আইকিউএসি ও সিইটিএল-এর ৫২ জন পরিচালক এবং অতিরিক্ত পরিচালকরা অংশগ্রহণ করেন। কর্মশালার দ্বিতীয় ধাপে ২৬ নভেম্বর ২৩টি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় এবং ৩য় ধাপে ২৯ নভেম্বর ৬০টি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের আইকিউএসি ও সিইটিএল পরিচালক এবং অতিরিক্ত পরিচালকরা অংশগ্রহণ করবেন।

উল্লেখ্য, করোনাভাইরাস সংক্রমণের কারণে ১৭ মার্চ থেকে দেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানসমূহ বন্ধ রয়েছে। করোনা সংক্রমণের প্রথম পর্যায়ে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে অনলাইনে শিক্ষা কার্যক্রম চালিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেয় ইউজিসি। এ লক্ষ্যে ইউজিসির পক্ষ থেকে শিক্ষার্থীদের সাশ্রয়ী মূল্যে ইন্টারনেট ডাটা প্যাকেজ ও স্মার্টফোন ক্রয়ে সফটলোন দেয়ার ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

এমএইচএম/এআরএ/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]