পোশাকের জন্য দোকান নির্ধারণ করতে পারবে না ভিকারুননিসা

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৭:৫৪ পিএম, ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২১

নির্ধারিত কোনো একটি প্রতিষ্ঠানকে সুযোগ না দিয়ে বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে ন্যূনতম তিনটি প্রতিষ্ঠানকে শিক্ষার্থীদের পোশাক বানানোর কাজ দিতে রাজধানীর ভিকারুননিসা নূন স্কুলকে আদেশ দিয়েছে বাংলাদেশ প্রতিযোগিতা কমিশন।

পাঁচ সদস্যের সমন্বয়ে গঠিত কমিশন বুধবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) বেলা ১১টার দিকে এই আদেশ দেয়।

একক প্রতিষ্ঠানকে পোশাক বানানোর ব্যবস্থা করে ‘একচেটিয়া ব্যবসার সুযোগ’ দেয়ায় ভিকারুননিসা কর্তৃপক্ষকে সতর্ক করে বাংলাদেশ প্রতিযোগিতা কমিশন। একই সঙ্গে শিক্ষার্থীদের পোশাক বানানোর ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান মেসার্স চৌধুরী এন্টারপ্রাইজকে ৭৯ হাজার ৮৯৭ টাকা জরিমানা করা হয়।

আদেশে ভিকারুননিসা স্কুলের উদ্দেশে বলা হয়, ‘একক প্রতিষ্ঠানকে না দিয়ে, ভিকারুননিসা স্কুলের প্রতিটি ক্যাম্পাসের জন্য ন্যূনতম তিনটি প্রতিষ্ঠানকে দিয়ে শিক্ষার্থীদের পোশাক বানাতে হবে। দর্জির দোকান নির্বাচনের জন্য দুটি পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিতে হবে।’

এর আগে স্কুলের পোশাক, রঙ, নকশা, মনোগ্রাম সম্পর্কে অভিভাবকদের জানাতে হবে। এরপর মনোনীত পোশাক নির্বাচিত তিনটি দর্জি বা প্রতিষ্ঠানের কাছে জমা দিতে হবে।

প্রতিযোগিতামূলক বাজার তৈরির লক্ষ্যে ২০১৮ সালের ১২ ডিসেম্বর ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের বিরুদ্ধে স্বপ্রণোদিত হয়ে একটি মামলা করে বাংলাদেশ প্রতিযোগিতা কমিশন। মোট ছয় দিন এ মামলার শুনানি হয়।

এর আগে ২০০৩ সাল থেকে লালবাগের অস্তিত্বহীন প্রতিষ্ঠান মেসার্স চৌধুরী এন্টারপ্রাইজ একচেটিয়াভাবে শিক্ষার্থীদের পোশাক তৈরি করত। অন্য কোনো প্রতিষ্ঠান বা দর্জি ভিকারুননিসার পোশাক তৈরির কাজ পেত না। শিক্ষার্থীদের বাধ্যতামূলকভাবে ওই প্রতিষ্ঠান থেকেই পোশাক কিনতে হতো।

আদেশের আলোকে কী ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে, প্রতিবেদন আকারে তা আগামী ২৬ এপ্রিলের মধ্যে ভিকারুননিসা কর্তৃপক্ষকে প্রতিযোগিতা কমিশন বরাবর জমা দিতে বলা হয়েছে।

মামলার আদেশে বলা হয়, ‘মেসার্স চৌধুরী এন্টারপ্রাইজ যোগসাজশের মাধ্যমে ভিকারুননিসা স্কুলের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হয়ে এককভাবে পোশাক সরবরাহ করে। এতে স্কুল ও পোশাক প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে ২০১২ সালের প্রতিযোগিতা আইনের ১৫ (১) ধারার বিধান লঙ্ঘনের অভিযোগ প্রমাণিত হয়েছে। ব্যবসায়িক উদ্দেশ্য না থাকা সত্ত্বেও একচ্ছত্রভাবে দীর্ঘ সময় শিক্ষার্থীদের পোশাক সরবরাহের ব্যবসার সুযোগ দেয়ায় ভিকারুননিসা নূন স্কুলকে সতর্ক করা হয়েছে।’

এসএম/এসএস/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]