১৫০ ননএমপিও স্কুলশিক্ষকের পাশে সংযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০২:২৫ পিএম, ১০ মে ২০২১

করোনার ধাক্কায় সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত শিক্ষাখাত। দীর্ঘ এক বছরের বেশি সময় ধরে স্কুল বন্ধ থাকায় সবচেয়ে বেশি বিপদে পড়েছেন ননএমপিও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষকরা। আয় না থাকায় পরিবার নিয়ে অসহায় দিন যাপন করছেন তারা।

শিক্ষকদের এই দুঃসময়ে আবারও নগদ অর্থ সহায়তা দিয়ে পাশে দাঁড়িয়েছে ফেসবুক ভিত্তিক গ্রুপ সংযোগ-কানেক্টিং পিপল। প্রথম ধাপে রোববার (৯ মে) সারাদেশের ননএমপিও ১৫০ জন স্কুল শিক্ষককে বিকাশ ও নগদের মাধ্যমে পাঁচ হাজার টাকা করে মোট ৭ দশমিক ৫ লাখ টাকা প্রদান করে সংযোগ। এ প্রকল্প অর্থায়নে এগিয়ে এসেছে সংযোগের নিয়মিত ডোনাররা।

প্রথম ধাপে ৫ মে পর্যন্ত মোট ২০০ জন ননএমপিও স্কুলশিক্ষক গুগল ফর্ম পূরণ করেছিলেন। সেখান থেকে ১৫০ জনের তালিকা চূড়ান্ত করা হয়। প্রথমে গুগল ফর্মে আবেদন করা শিক্ষকদের তথ্য যাচাই-বাছাই করে সংযোগ। এছাড়াও আবেদনকৃত শিক্ষকদের এলাকায় ভলান্টিয়ারদের মাধ্যমে খবর নিয়ে ১৫০ জনকে চূড়ান্ত করা হয়। যারা ৪০-৬০ শতাংশ বেতন পাচ্ছেন, তাদের অনুদান দেয়া হয়নি।

উল্লেখ্য, গত বছর দুই ঈদে সংযোগ সারা বাংলাদেশের নন এমপিওভুক্ত স্কুলের মোট ২০০০ জন শিক্ষককে ৩০০০ টাকা করে ক্যাশ হেল্প করেছিল।

সংযোগের সহ-প্রতিষ্ঠাতা ও রক্ষী (বিল্ডিং সিকিউরিটি ম্যানেজমেন্ট কোম্পানি)-এর সিইও প্রকৌশলী আবরার মাসুম শান্ত বলেন, মানবিক দায়বদ্ধতা থেকে আমরা অসহায়, দরিদ্র ও বিপদগ্রস্ত মানুষের পাশে দাঁড়াচ্ছি। দাতাদের কাছ থেকে অর্থ সংগ্রহ করে সহায়তা দিচ্ছি। স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতার জন্য প্রতিটি ক্ষেত্রে যাচাই-বাছাই করে অর্থ প্রদান করছি। সংযোগের ভালো কাজের পাশে সবাই থাকলে সমাজের অসহায় মানুষের জন্য অনেক কিছু করা সম্ভব।

তিনি বলেন, এবার আমরা প্রথম ধাপে নন এমপিওভুক্ত স্কুলের ১৫০ জন শিক্ষককে পাঁচ হাজার টাকা করে হেল্প করেছি। প্রয়োজনে দ্বিতীয় ধাপে আরও বেশি সংখ্যক শিক্ষককে অনুদান প্রদানের চেষ্টা করা হবে।

ইএআর/জেডএইচ/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]