৭৫ লাখ টাকা পর্যন্ত গৃহঋণ পাবেন ইউজিসির কর্মকর্তা-কর্মচারীরা

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৭:০৬ পিএম, ১০ জুন ২০২১

বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) কর্মকর্তা-কর্মচারীরা ৭৫ লাখ টাকা পর্যন্ত গৃহঋণ সুবিধা পাবেন। ইউজিসি এবং জনতা ব্যাংকের মধ্যে এ বিষয়ে একটি চুক্তি হয়েছে।

কমিশনের সচিব (অতিরিক্ত দায়িত্ব) ড. ফেরদৌস জামান এবং জনতা ব্যাংক লিমিটেড, ইউজিসি ভবন কর্পোরেট শাখার ব্যবস্থাপক মো. সাজ্জাদ হোসেন নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের পক্ষে বৃহস্পতিবার (১০ জুন) এ চুক্তিতে সই করেন।

ইউজিসি থেকে বলা হয়েছে, কর্পোরেট গ্যারান্টির আওতায় হোলসেল রিভলভিং সাধারণ গৃহ নির্মাণে ১০০ কোটি টাকার একটি ঋণ চুক্তি সই হয়েছে। যার আওতায় ইউজিসির কর্মকর্তা-কর্মচারীরা কর্পোরেট গ্যারান্টির বিপরীতে জমি ও ফ্ল্যাট কেনার জন্য ২০ থেকে ৭৫ লাখ টাকা পর্যন্ত ঋণ পাবেন।

২০ বছর মেয়াদী সরল সুদে এই ঋণ সহজ কিস্তিতে পরিশোধ করা যাবে। ঋণ গ্রহণের ছয় মাস পর থেকে এর কিস্তি আদায়যোগ্য হবে।

কমিশনের সদস্য প্রফেসর ড. মুহাম্মদ আলমগীরের সভাপতিত্বে চুক্তি সই অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন ইউজিসি সদস্য প্রফেসর ড. মো. আবু তাহের, জনতা ব্যাংক লিমিটেডের মহাব্যবস্থাপক আবদুর রব খান এবং উপ- মহাব্যবস্থাপক রুহুল কবির। অনুষ্ঠানে ইউজিসি সচিব (অতিরিক্ত দায়িত্ব) ড. ফেরদৌস জামান স্বাগত বক্তব্য রাখেন।

অনুষ্ঠানে প্রফেসর আলমগীর বলেন, এ ঋণ চুক্তি কমিশনে কর্মরতদের জন্য একটি সুযোগ। এ সুবিধার মাধ্যমে ইউজিসির কর্মকর্তা, কর্মচারীরারা বাড়ি বা ফ্ল্যাট কেনার স্বপ্ন পূরণ করতে পারবেন।

এ সময় জনগণের করের টাকার সর্বোত্তম ব্যবহারের জন্য তিনি অনুরোধ জানান।

প্রফেসর আবু তাহের বলেন, সবচেয়ে কম সুদের হারের এই ঋণে কোনো ধরনের গোপনীয় চার্জ থাকবে না। তিনি জনতা ব্যাংক কর্তৃপক্ষকে হোলসেল রিভলভিং ঋণের জন্য ধন্যবাদ জানান। এই ঋণের জন্য ইউজিসির কেউ ঋণখেলাপী হবেন না বলে তিনি ব্যাংক কর্তৃপক্ষকে আশ্বাস দেন।

আবদুর রব খান বলেন, ইউজিসির আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে শর্তসাপেক্ষে ১০০ কোটি টাকার ঋণ অনুমোদন করা হয়েছে। এই ঋণ চুক্তির মাধ্যমে ইউজিসির সঙ্গে জনতা ব্যাংক লিমিটেডের নতুনভাবে সম্পর্কের দ্বার উন্মোচিত হবে।

চুক্তি সই অনুষ্ঠানে ইউজিসির বিভাগীয় প্রধান, অফিসার্স এসোসিয়েশন, কর্মচারী ইউনিয়নের প্রতিনিধিসহ উভয় প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন।

এমএইচএম/এসএস/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]