চীনে অধ্যয়নরত বাংলাদেশিরা সিনোফার্মের টিকা পাবেন

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৩:৩৭ পিএম, ২০ জুন ২০২১

চীনে অধ্যয়নরত বাংলাদেশি শিক্ষার্থী, যারা করোনাকালে দেশে ফিরে এসেছিলেন তারা কি চীন সরকারের উপহার হিসেবে দেয়া সিনোফার্মের টিকা অগ্রাধিকার ভিত্তিতে পাচ্ছেন নাকি পাচ্ছেন না— এ নিয়ে সংশয় তৈরি হয়েছে।

চীনে অধ্যয়নরত বাংলাদেশি শিক্ষার্থীরা বলছেন, তাদেরকে অগ্রাধিকার তালিকা থেকে বাদ দেয়া হয়েছে। টিকা পাওয়ার দাবিতে আগামীকাল সোমবার (২১ জুন) জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে মানববন্ধন কর্মসূচির ডাক দিয়েছেন আটকেপড়া শিক্ষার্থীরা।

অপরদিকে স্বাস্থ্য অধিদফতরের মুখপাত্র অধ্যাপক ডা. নাজমুল ইসলাম রোববার (২০ জুন) বলেন, তারা অবশ্যই টিকা পাবেন।

জানা গেছে, করোনার টিকা দিতে না পারায় চীনের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত পাঁচ হাজারের বেশি বাংলাদেশি শিক্ষার্থী ফিরে যেতে পারছেন না। গত দেড় বছরেরও বেশি সময় ধরে তারা দেশে আটকে আছেন। বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ সাফ জানিয়ে দিয়েছে, বিশ্ববিদ্যালয়ে ফিরে যেতে হলে তাদেরকে করোনার দুই ডোজ টিকা নিয়েই ফিরতে হবে। এসব শিক্ষার্থীরা অগ্রাধিকার ভিত্তিতে টিকা পাওয়ার জন্য স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয় এবং স্বাস্থ্য অধিদফতরের কর্মকর্তাদের কাছে সশরীরে দেখা করে সমস্যার কথা জানিয়ে আবেদন এবং সমস্যা তুলে ধরে সংবাদ সম্মেলন করলেও তাদেরকে অগ্রাধিকার তালিকায় রাখা হয়নি বলে তারা অভিযোগ করেন।

গতকাল ১৯ জুন থেকে রাজধানীসহ সারাদেশে চীনের উপহার হিসেবে দেয়া ১১ লাখ ডোজ সিনোফার্মের টিকাদান কর্মসূচি শুরু হলেও চীনে অধ্যয়নরত বাংলাদেশি শিক্ষার্থীরা এ তালিকায় নেই বলে অভিযোগ উঠেছে। এজন্য আগামীকাল সোমবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে মানববন্ধন করবে তারা।

রোববার দুপুরে এ প্রতিবেদকের সঙ্গে আলাপকালে ফজলে রাব্বী নামে এক শিক্ষার্থী জানান, তারা দফায় দফায় স্বাস্থ্য অধিদফতরের দায়িত্বশীল কর্মকর্তাদের সঙ্গে সরাসরি দেখা করে আবেদনপত্র জমা দিলেও দুই সপ্তাহ আগে অধিদফতরের কর্মকর্তারা জানিয়ে দেন, তারা অগ্রাধিকার ভিত্তিতে টিকা পাবেন না।

তিনি জানান, এক বছর সাত মাস ধরে চীনের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত পাঁচ সহস্রাধিক বাংলাদেশি শিক্ষার্থী দেশে আটকে আছেন। ২০১৯ সালের শেষের দিকে এবং ২০২০ এর শুরুতেই এসব শিক্ষার্থী শীতকালীন অবকাশে এবং পরবর্তীতে মহামারি ছড়িয়ে পড়লে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সহযোগিতায় এবং অনেকের ব্যক্তি উদ্যোগে দেশে ফিরে আসেন। কিন্তু গত দেড় বছর কেটে গেলেও আজ পর্যন্ত তাদের কারো ফিরে যাওয়া সম্ভব হয়নি এবং ফেরার ব্যাপারে সরকারের পক্ষ থেকে কোনো পদক্ষেপ নেয়া হয়নি বলে তিনি অভিযোগ করেন।

তিনি আরও জানান, এখন পর্যন্ত স্বাস্থ্য অধিদফতরে কয়েকবার এ ব্যাপারে চিঠি দেয়া হলে তারা আমাদের কাছে শিক্ষার্থীদের তালিকা চান। এরপর পাঁচ হাজার শিক্ষার্থীর একটি তালিকা দেয়া হলেও টিকা দেয়ার ক্ষেত্রে আমাদের অগ্রাধিকার দেয়া হয়নি। চীন সরকারের বিবৃতি মতে, চীনা ভ্যাকসিন ছাড়া কোনো স্টুডেন্ট প্রবেশ করতে পারবে না। স্বাস্থ্য অধিদফতর চীনে অধ্যায়নরত শিক্ষার্থীদের টিকা প্রদান না করায় এবং অগ্রাধিকার ভিত্তিতে টিকা দেয়ার দাবিতে আমরা ২১ জুন (সোমবার সকাল) ১০ টায় জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে মানববন্ধন করবো।

এমইউ/এআরএ/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]