এসএসসির দ্বিতীয় সপ্তাহের অ্যাসাইনমেন্ট প্রকাশ

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৭:৩৩ পিএম, ২০ জুন ২০২১

এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের দ্বিতীয় সপ্তাহের অ্যাসাইনমেন্টের কাজ দেয়া হয়েছে। রোববার (২০ জুন) মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদফতরের (মাউশি) ওয়েবসাইটে দ্বিতীয় সপ্তাহের অ্যাসাইনমেন্ট প্রকাশ করা হয়েছে।

অ্যাসাইনমেন্ট মূল্যায়নের নির্দেশনায় বলা হয়েছে, করোনার কারণে ২০২০ সালের ১৮ মার্চ থেকে দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে স্বাভাবিক শ্রেণি কার্যক্রম বন্ধ থাকায় ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি হওয়া শিক্ষার্থীরা নির্ধারিত পাঠ্যসূচি অনুযায়ী শিক্ষা কার্যক্রমে অংশগ্রহণ করতে পারেনি এবং তাদের মূল্যায়ন করা যায়নি। শিক্ষা মন্ত্রণালয় এর বিকল্প হিসেবে বিভিন্ন কার্যক্রম গ্রহণ করেছে।

এরই অংশ হিসেবে এনসিটিবি ২০২২ সালের এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের জন্য শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যসূচিকে পুনর্বিন্যাস করেছে। মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা পুনর্বিন্যাসকৃত পাঠ্যসূচির ভিত্তিতে শিক্ষার্থীদের শিখন কার্যক্রম সম্পৃক্তকরণ এবং ধারাবাহিক মূল্যায়নের আওতায় আনার এনসিটিবি থেকে বিষয়ভিত্তিক মূল্যায়ন নির্দেশনাসহ অ্যাসাইনমেন্ট প্রণয়ন করা হয়েছে।

বলা হয়েছে, অ্যাসাইনমেন্ট বা নির্ধারিত কাজের মাধ্যমে তাদের অর্জিত শিখন ফল নির্ণয় করা হবে। পুনর্বিন্যাসকৃত পাঠ্যসূচি অনুযায়ী সপ্তাহভিত্তিক শিক্ষার্থী মূল্যায়ন বিবেচনায় নিয়ে অ্যাসাইনমেন্ট প্রণয়ন করা হয়েছে।

অ্যাসাইনমেন্ট বা নির্ধারিত কাজের মাধ্যমে তাদের অর্জিত শিখন ফল নির্ণয় করা হবে। পুনর্বিন্যাসকৃত পাঠ্যসূচি অনুযায়ী, সপ্তাহভিত্তিক শিক্ষার্থী মূল্যায়ন বিবেচনায় নিয়ে অ্যাসাইনমেন্ট প্রণয়ন করা হয়েছে। সপ্তাহের শুরুতে অধিদফতরের ওয়েবসাইটে অ্যাসাইনমেন্ট প্রকাশ করা হবে। শিক্ষার্থীরা তাদের অ্যাসাইনমেন্ট শেষ করে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে জমা দিয়ে নতুন অ্যাসাইনমেন্ট গ্রহণ করবে।

শিক্ষার্থীদের মূল্যায়নে দেয়া নির্দেশনায় অধিদফতর আঞ্চলিক কর্মকর্তাদের বলছে, প্রতিটি প্রতিষ্ঠানে সামাজিক দূরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে কার্যক্রম পরিচালনা নিশ্চিত করতে হবে। লকডাউন চলমান থাকলে অ্যাসাইনমেন্ট গ্রহণ ও জমার ক্ষেত্রে সেই আলোকে ব্যবস্থা নেয়ার পরামর্শ দিতে হবে। অ্যাসাইনমেন্টের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের মূল্যায়নের যথার্থতা ও নির্ভরযোগ্যতা নিশ্চিত করতে হবে।

মূল্যায়ন শেষে শিক্ষার্থীদের সাফল্য ও দুর্বলতা চিহ্নিত করে শিক্ষকরা সুনির্দিষ্ট মন্তব্য করছেন তা পরিবীক্ষণ করতে হবে, প্রয়োজনে শিক্ষকদের কাছ থেকে মূল্যায়নের ব্যাখ্যা নিতে হবে। প্রতিটি প্রতিষ্ঠান মূল্যায়ন রেকর্ড নির্ধারিত ছক অনুসারে সংরক্ষণ করেছেন কি-না তাও পরিবীক্ষণ করতে বলা হয়েছে আঞ্চলিক পরিচালকদের।

অধিদফতর থেকে পাঠানো নির্দেশনায় আঞ্চলিক কর্মকর্তাদের আরও বলা হয়েছে, কোনো শিক্ষার্থী যেন অ্যাসাইনমেন্ট কার্যক্রমে অনৈতিক চাপের মুখোমুখি না হয় তা লক্ষ্য রাখতে হবে। এক্ষেত্রে কোনো ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে অভিযোগ পাওয়া গেলে দ্রুত তদন্ত করে বিধি মোতাবেক ব্যবস্থা নিতে হবে।

জানা গেছে, অনলাইনে বা সামাজিক দূরত্ব মেনে শিক্ষার্থীদের অ্যাসাইনমেন্ট দেয়া এবং গ্রহণ করতে বলা হয়েছে স্কুলগুলোকে। কোনো শিক্ষার্থী যেন অর্থনৈতিক চাপের মুখে না পড়ে সে বিষয়টিও নিশ্চিত করতে বলা হয়েছে। অ্যাসাইনমেন্ট ও নির্ধারিত কাজ ছাড়া শিক্ষার্থীদের কোনো ধরনের পরীক্ষা বা বাড়ির কাজ দেয়া যাবে না।

শিক্ষার্থীদের অতি উত্তম, উত্তম, ভালো ও অগ্রগতি প্রয়োজন ইত্যাদির মাধ্যমে অ্যাসাইনমেন্টগুলোর শাব্দিক মূল্যায়ন করতে বলা হয়েছে শিক্ষকদের। এছাড়াও শিক্ষার্থীদের সবল ও দুর্বল দিকগুলো খাতায় চিহ্নিত করে তা লিপিবদ্ধ করতে বলা হয়েছে। এদিকে শিক্ষার্থীদের নোট-গাইড দেখে অ্যাসাইনমেন্ট করতে নিষেধ করেছে অধিদফতর। নোট গাইড দেখে অ্যাসাইনমেন্ট করা হলে তা বাতিল করা হবে বলেও জানানো হয়েছে। এক্ষেত্রে আবারও সেই অ্যাসাইনমেন্ট করে জমা দিতে হবে।

এমএইচএম/এআরএ/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]