ভিশন বাস্তবায়নে দক্ষ মানবসম্পদের বিকল্প নেই

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৫:২৮ এএম, ১০ সেপ্টেম্বর ২০২১
ফাইল ছবি

দেশকে একটি উন্নত দেশে পরিণত করতে বর্তমান সরকারের ভিশন-২০২১ ও ২০৪১ বাস্তবায়নে দক্ষ মানবসম্পদের বিকল্প নেই বলে মন্তব্য করেছেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মো. জাকির হোসেন।

বৃহস্পতিবার (৯ সেপ্টেম্বর) রাজধানীর তেজগাঁওয়ে উপানুষ্ঠানিক শিক্ষা ব্যুরোর সম্মেলন কক্ষে ‘আন্তর্জাতিক সাক্ষরতা দিবস-২০২১’ উপলক্ষে আয়োজিত ‘মানবসম্পদ উন্নয়নে সাক্ষরতার ভূমিকা’ শীর্ষক গোলটেবিল আলোচনায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় প্রতিমন্ত্রী এ কথা বলেন।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মো. জাকির হোসেন বলেন, বর্তমান সরকারের গৃহীত ভিশন-২০২১ ও ২০৪১ বাস্তবায়নে দক্ষ মানবসম্পদের বিকল্প নেই। এ লক্ষ্যে সাক্ষরতা ও দক্ষতা উন্নয়নের জন্য মৌলিক সাক্ষরতার সঙ্গে প্রি-ভোকেশনালসহ জীবনব্যাপী শিক্ষার ওপর গুরুত্বারোপ করে বিভিন্ন কর্মসূচি বাস্তবায়ন করা হচ্ছে।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, বর্তমান বিশ্ব বদলে যাওয়ার নিয়মক শক্তি তথ্যপ্রযুক্তি। অদক্ষ শ্রমিককে দক্ষ করে তোলার জন্য প্রযুক্তিগত ও কারিগরি প্রশিক্ষণের প্রয়োজন। নিরক্ষর জনগোষ্ঠীকে সাক্ষরতা শিক্ষার পাশাপাশি আইসিটিভিত্তিক সেবা ও প্রি-ভোকেশনাল প্রশিক্ষণের কথা বিবেচনা করে আমরা ‘জীবনব্যাপী শিক্ষা’ কর্মসূচি নামক স্থায়ী কার্যক্রম গ্রহণ করেছি।

‘এ কর্মসূচির আওতায় নিরক্ষর জনগোষ্ঠী উন্নত প্রযুক্তি ও দক্ষতার প্রশিক্ষণ গ্রহণ করে পেশাগত দক্ষতা অর্জনের মাধ্যমে দেশ-বিদেশে কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি করবে এবং প্রচুর রেমিট্যান্স অর্জন করে দেশকে অর্থনৈতিকভাবে স্বয়ংসম্পূর্ণ করতে সহায়ক ভূমিকা পালন করবে’ বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

গোলটেবিল আলোচনায় বিশেষ অতিথির বক্তৃতা করেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব রতন চন্দ্র পণ্ডিত (বিদ্যালয়), মো. আবু বকর সিদ্দিক (প্রশাসন), মো. রুহুল আমিন (উন্নয়ন) ও মো. মোশাররফ হোসেন (বাজেট)।

উপানুষ্ঠানিক শিক্ষা ব্যুরোর মহাপরিচালক মো. আতাউর রহমানের সভাপতিত্বে বিভিন্ন বেসরকারি সংস্থা থেকে আগত প্রতিনিধি মানবসম্পদ উন্নয়নে সাক্ষরতা ও কারিগরি প্রশিক্ষণের প্রয়োজনীয়তার ওপর বিশেষজ্ঞ মতামত গোলটেবিল আলোচনা সভায় উপস্থাপন করেন।

এমএইচএম/এএএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]