জানুয়ারি থেকে হতে পারে প্রাথমিক শিক্ষক বদলি

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৭:৪০ পিএম, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১

শ্রেণিকক্ষে পাঠদান শুরু হওয়ায় আগামী জানুয়ারি থেকে শিক্ষক বদলি কার্যক্রম শুরু করতে চায় প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর (ডিপিই)। এর মধ্যে শিক্ষক বদলির সংশোধিত নীতিমালার কাজ শেষ হলে ২০২২ সালের জানুয়ারি থেকে মার্চ পর্যন্ত বদলি সংক্রান্ত কাজ করা হবে বলে জানা গেছে।

ডিপিই থেকে জানা গেছে, আগামী বছর থেকে ডিজিটাল পদ্ধতিতে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক বদলি কার্যক্রম শুরু করা হতে পারে। এ লক্ষ্যে বদলি কার্যক্রম পরিচালনা করার সফটওয়্যারের কাজ ডিসেম্বরের মধ্যে শেষ করা হবে। সেটি হলে, আগামী জানুয়ারি থেকে অনলাইনে শিক্ষক বদলি কার্যক্রম শুরু করা হবে। বদলি আগ্রহীদের নতুন করে সফটওয়্যারের মাধ্যমে আবেদন করতে বলা হবে। প্রাপ্যতা ও যৌক্তিক কারণ থাকলে সহকারী শিক্ষকদের পচ্ছন্দের বিদ্যালয়ে বদলি করা হবে।

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক বদলি নিয়ে নানা ধরনের অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ রয়েছে। এসব বন্ধে এ কার্যক্রম অনলাইনভিত্তিক করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। একটি সফটওয়্যার তৈরি করে এর মাধ্যমে শিক্ষক বদলি কার্যক্রম পরিচালনা করা হবে। সফটওয়্যার তৈরির কাজের অনেক অগ্রগতি হয়েছে। এরই মধ্যে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী মো. জাকির হোসেন ও ডিপিইর মহাপরিচালকসহ মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে এটি উপস্থাপন করা হয়েছে।

এতে কিছু ত্রুটি ধরা পড়লে সেগুলো সংশোধন করতে বলা হয়েছে। আগামী ডিসেম্বরের মধ্যে সব কাজ শেষ হলে জানুয়ারি থেকে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক বদলি কার্যক্রম অনলাইনের আওতায় করা হবে।

জানতে চাইলে ডিপিইর মহাপরিচালক আলমগীর মুহম্মদ মনসুর আলম জাগো নিউজকে বলেন, ‘আগামী ডিসেম্বরের মধ্যে সফটওয়্যারের কাজ শেষ করতে নতুন করে আবারো কাজ শুরু করা হয়েছে। করোনা পরিস্থিতির কারণে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় শিক্ষক বদলি কার্যক্রম বন্ধ রাখা হয়েছে। বর্তমানে শ্রেণিকক্ষে পাঠদান শুরু হওয়ায় জানুয়ারি থেকে শিক্ষক বদলি করা হতে পারে। মার্চ মাস পর্যন্ত বদলি কাজ চলবে। ডিসেম্বরের মধ্যে সফটওয়্যার তৈরি হলে ডিজিটাল মাধ্যমে এ কাজ করা হবে।

শিক্ষক বদলি নিয়ে অনিয়ম-দুর্নীতির অভিযোগ ওঠে। অধিদপ্তরের এক শ্রেণির কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সঙ্গে যোগসাজশে শিক্ষকদের কাছ থেকে হাতিয়ে নেয় লাখ লাখ টাকা দালালরা। এ অভিযোগ আমলে নিয়ে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় আগে থেকেই অনলাইনে শিক্ষক বদলির উদ্যোগ নেয়। করোনা পরিস্থিতির কারণে দুই বছর ধরে এ কার্যক্রম স্থগিত রয়েছে।

এমএইচএম/এমএএইচ/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]