১৪ ছাত্রের চুল কাটায় শিক্ষকের শাস্তি চায় অভিভাবক ফোরাম

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৮:৫৩ পিএম, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২১

রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ে ১৪ শিক্ষার্থীর চুল কাটার ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছেন অভিভাবক ঐক্য ফোরামের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. জিয়াউল কবির দুলু ও সাধারণ সম্পাদক আলহাজ মো. সেলিম উদ্দিন। বুধবার (২৯ সেপ্টেম্বর) এক বিবৃতিতে তারা এ দাবি জানান।

বিবৃতিতে তারা বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের সঙ্গে এমন ন্যক্কারজনক আচরণ নিন্দনীয়। সামগ্রিকভাবে দেশের বিশ্ববিদ্যালগুলোতে যে দুর্বৃত্তপনা, অগণতান্ত্রিক সংস্কৃতি ও প্রশাসনের অবাধ স্বেচ্ছাচারিতার সংস্কৃতি তৈরি হয়েছে তারই বহিঃপ্রকাশ এ ঘটনা।

তারা বলেন, দেশের কোনো আইনে শিক্ষার্থীর চুল কিংবা পরিচ্ছদের ওপর কোনো ধরনের বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়নি। অবিলম্বে রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৪ শিক্ষার্থীকে লাঞ্ছিত করার ঘটনায় জড়িতদের স্থায়ীভাবে বহিষ্কার ও আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানান তারা।

গত রোববার (২৬ সেপ্টেম্বর) সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুরের রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৪ ছাত্রের মাথার চুল কাঁচি দিয়ে কেটে লাঞ্ছিত করার অভিযোগ ওঠে এক শিক্ষিকার  বিরুদ্ধে। বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য ও বাংলাদেশ অধ্যয়ন বিভাগের প্রথমবর্ষের রাষ্ট্রবিজ্ঞান পরিচিতি বিষয়ের ফাইনাল পরীক্ষার হলে এ ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনার জেরে অভিযুক্ত শিক্ষিকা ফারহানা ইয়াসমিন বাতেন তার ওপর অর্পিত তিন পদ থেকে পদত্যাগ করেন। মঙ্গলবার (২৮ সেপ্টেম্বর) রাতে রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিচালনা বোর্ডের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী তিনি সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য ও বাংলাদেশ অধ্যয়ন বিভাগের চেয়ারম্যান পদ, সহকারী প্রক্টর পদ ও প্রক্টরিয়াল বোর্ডের সদস্যপদ থেকে লিখিতভাবে পদত্যাগ করেন।

এমএইচএম/ইএ/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]