একাদশে ভর্তি: আবেদনকারীদের দ্বিতীয় দফা সতর্ক করলো বোর্ড

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৮:১০ পিএম, ১৬ জানুয়ারি ২০২২
ফাইল ছবি

একাদশ শ্রেণিতে ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের ভুয়া আবেদন থেকে সর্তক থাকার আহ্বান জানিয়েছে ঢাকা শিক্ষা বোর্ড। পাশাপাশি এ ধরনের প্রতারণায় জড়িত কোনো ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে প্রমাণ পাওয়া গেলে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানানো হয়েছে।

শিক্ষার্থীর অনুমতি ছাড়াই কিছু কলেজ থেকে আবেদন হওয়ায় রোববার (১৬ জানুয়ারি) দ্বিতীয় দফায় এ সতর্কীকরণ বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়েছে।

এতে বলা হয়, ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষে একাদশ শ্রেণিতে অনলাইন মাধ্যমে ভর্তি কার্যক্রমে কিছু প্রতারকচক্র সংশ্লিষ্ট শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের থেকে সুকৌশলে এসএসসি পরীক্ষার তথ্য সংগ্রহ করে তাদের অনুমতি ছাড়াই ভর্তির আবেদন করছে। এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট সবার অবগতির জন্য গত ১১ জানুয়ারি একটি সতর্কীকরণ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়।

লক্ষ্য করা যাচ্ছে যে, এখনো কিছু প্রতারকচক্র সংশ্লিষ্ট শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের অনুমতি ছাড়াই অনলাইনে ভর্তির আবেদন করছে। তাই শিক্ষার্থী ও অভিভাবকসহ সবাইকে এ ধরনের প্রতারকচক্র থেকে সাবধান থাকার জন্য পুনরায় সতর্ক করা যাচ্ছে।

আরও বলা হয়, শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের সঙ্গে প্রতারণায় জড়িত এমন কোনো ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে প্রমাণ পাওয়া গেলে কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ক্ষেত্রে তাদের প্যানেল/সার্ভার বন্ধসহ পাঠদান স্থগিত করা হবে। বোর্ডের নির্ধারিত ভর্তি ওয়েবসাইট ছাড়া অন্য কোনো ওয়েবসাইটের বিজ্ঞাপন থেকে কোনো শিক্ষার্থী ও অভিভাবক প্রতারিত হলে বোর্ড কর্তৃপক্ষ কোনোক্রমেই এর দায় বহন করবে না।

অন্যদিকে, শনিবার (১৫ জানুয়ারি) একাদশের অনলাইন আবেদনের প্রথম ধাপের সময় শেষ হওয়ার কথা থাকলেও সেটি সোমবার (১৭ জানুয়ারি) পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে। এ পর্যন্ত ১৫ লাখেরও বেশি আবেদন জমা হয়েছে।

জানতে চাইলে ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের কলেজ পরিদর্শক আবু তালেব মো. মোয়াজ্জেম হোসেন জাগো নিউজকে বলেন, প্রথম ধাপের আবেদনের সময় আগামী ১৬ ও ১৭ জানুয়ারি পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে। এ সময়ের মধ্যে ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীরা অনলাইন আবেদন করতে পারবে।

তিনি বলেন, গত ৮ জানুয়ারি থেকে সন্ধ্যা সোয়া ৭টা পর্যন্ত ১৫ লাখ ২৮ হাজার ৭৫০ জনের আবেদন এসেছে। তারা ৮২ লাখ ৮৮ হাজার ৮৯৯টি কলেজ নির্বাচন করেছে। আরও বেশি আবেদন করার সুযোগ তৈরিতে অতিরিক্ত দুইদিন সময় বাড়ানো হয়েছে। এর মধ্যে ৫০০ মতো ভুয়া আবেদন এলেও সেগুলো সমাধান করা হয়েছে। নতুন করে যাতে কেউ ভুয়া আবেদন করতে না পারে সে জন্য দ্বিতীয় দফায় সর্তক বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়েছে।

এমএইচএম/এমএএইচ/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]