সোনু কক্করের কণ্ঠে রাজুব ভৌমিকের আয়না সংগীত

বিনোদন ডেস্ক
বিনোদন ডেস্ক বিনোদন ডেস্ক
প্রকাশিত: ১২:৩৫ পিএম, ০৫ ডিসেম্বর ২০২১

বলিউডের জনপ্রিয় প্লেব্যাক সিঙ্গার সোনু কক্কর এবার গাইলেন কবি রাজুব ভৌমিকের আয়না সঙ্গীত। বলিউডের আরেক জনপ্রিয় প্লেব্যাক সিঙ্গার নেহা কক্করের দিদি সোনু কক্কর এই প্রথম কোনো বাংলাগানে কণ্ঠ দিলেন। ‘চুপিচুপি ভালোবেসে’ শিরোনামে এই আয়না সঙ্গীতের পরিচালনা করেছেন বলিউডের জনপ্রিয় সঙ্গীত পরিচালক শুভম সুন্দরম।

এই গানটির শাব্দিক রেকডিং গতমাসে আর্মেনিয়াতে সম্পন্ন হয়েছে এবং গতকাল মুম্বাইের নিও সাউন্ড স্টুডিওতে শিল্পী সোনু কক্কর গানটির ভয়েস রেকিডং শেষ করেন।

গানটির বিষয়ে সোনু কক্কর বলেন, এই প্রথমবার আয়না সঙ্গীতের একটি গান গাইলাম। আয়না সঙ্গীত নিঃসন্দেহে রাজুব ভৌমিকের এক অসামান্য সৃষ্টি। আপনারা শুনলেই বুঝতে পারবেন পুরোগানটি আসলেই আয়নার মতো। অসাধারণ লেখনী এবং সঙ্গীত পরিচালনা করেছেন আমার আরেক প্রিয়জন শুভম জি। আশা করি গানটি শ্রোতাদের বেশ ভালো লাগবে।

এই গানটি নিয়ে কবি রাজুব ভৌমিক বলেন, চুপিচুপি ভালোবেসে গানটি লিখেছি গত বছরের আগস্টে। বাংলা সাহিত্য এবং বাংলা গানকে বিশ্বের কাছে তুলে ধরার ইচ্ছে থেকেই আয়না সঙ্গীতের রচনা শুরু করি। এতে কতটুকু সফল হয়েছি তা জানি না তবে আমার এখানে থেমে যাবার ইচ্ছে নেই। বাংলা সাহিত্য এবং বাংলাগানের বিশ্বায়নের জন্য অনেকদিন ধরে কাজ করতে যেন পারি সেজন্য দোয়া সবাই করবেন।

জানা গেছে, ২০২০ সালের ভাষার মাস ফেব্রুয়ারিতে কবি রাজুব ভৌমিক আয়না সঙ্গীত লেখা শুরু করেন। আয়না সঙ্গীতের প্রথম গান ‘যায় প্রাণ গো’ গেয়েছিলেন বাংলাদেশের আরেক জনপ্রিয় শিল্পী ন্যান্সি। বাংলাসাহিত্যের জনপ্রিয় সঙ্কলন আয়না সনেট থেকে পরিবর্তিত আয়না সঙ্গীত গানের প্রতিটি লাইন দশ বর্ণের, গানের মুখ/স্থায়ী উল্টোদিক থেকে গাইলে গানের প্রথম অন্তরা হয়।

দ্বিতীয় অন্তরা দুই লাইনের, যা উল্টোদিকে গাইলে চার লাইন হয়। সর্বমোট ছয় লাইনের বা ষাট বর্ণের গান এবং দুই দিক থেকেই গানের সুর করা যাবে। যেহেতু গানগুলো আয়নার মতো এবং দুই দিক থেকেই গানের সুর করা যায়, তাই এ গানগুলোর নাম ‘আয়না সঙ্গীত’ হয়েছে।

এমআরএম/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]