৬৪ দেশের চলচ্চিত্র নিয়ে ঢাকায় আন্তর্জাতিক উৎসব

বিনোদন প্রতিবেদক
বিনোদন প্রতিবেদক বিনোদন প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৫:২১ পিএম, ১১ জানুয়ারি ২০১৮

প্রতিবারের মত এবারও রেইনবো ফিল্ম সোসাইটির আয়োজনে অনুষ্ঠিত হতে চলেছে ঢাকা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব ২০১৮। ১৬তম ‘ঢাকা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব’র পর্দা উঠছে আগামীকাল শুক্রবার। চলবে ২০ জানুয়ারি পর্যন্ত।

এবারের উৎসবে স্বাগতিক বাংলাদেশসহ মোট ৬৪টি দেশের ২১৬টি চলচ্চিত্র প্রদর্শিত হবে। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য অংশগ্রহণকারী দেশের তালিকায় রয়েছে আর্জেন্টিনা, অস্ট্রেলিয়া, পর্তুগাল, চেকরিপাবলিক, মাদাগাস্কার, থাইল্যান্ড, মঙ্গোলিয়া, সার্বিয়া, তুর্কি, স্পেন, জর্ডান, প্যালেস্টাইন ইত্যাদি।

আসরে যৌথভাবে জাতীয় জাদুঘর মিলনায়তন, কেন্দ্রীয় গণগ্রন্থাগারের শওকত ওসমান স্মৃতি মিলনায়তন, বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তন, রাশিয়ান সাংস্কৃতিক কেন্দ্র, আলিয়ঁস ফ্রঁসেজ মিলনায়তন ও বসুন্ধরার স্টার সিনেপ্লেক্স হলে চলচ্চিত্র প্রদর্শিত হবে।

উৎসবের বিস্তারিত তুলে ধরতে বৃহস্পতিবার ঢাকা ক্লাবে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে উৎসব পরিচালক আহমেদ মুজতবা জামাল জানান, ‘এশিয়ান কম্পিটিশন বিভাগ, রেস্ট্রোস্পেক্টিভ, বাংলাদেশ প্যানারোমা, সিনেমা অফ দ্যা ওয়ার্ল্ড, চিলড্রেনস ফিল্ম, স্পিরিচুয়াল ফিল্মস,উইমেন ফিল্ম মেকার সেশনসহ শর্ট এন্ড ইন্ডিপেনডেন্ট- এই আটটি ক্যাটাগরিতে চলচ্চিত্র প্রদর্শিত হবে।’

এ বছর এশিয়ান কম্পিটিশন বিভাগে প্রতিযোগিতা করবে ১৫টি চলচ্চিত্র। ৫ সদস্য বিশিষ্ট আন্তর্জাতিক মানের একটি জুরি বোর্ড উক্ত চলচ্চিত্রগুলির মধ্য থেকে এক বা একাধিক চলচ্চিত্রকে শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্র বলে ঘোষণা দেবেন।

এ বছর ঢাকা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্রের জন্য পুরষ্কার হিসেবে থাকছে এক লক্ষ টাকাসহ একটি ক্রেস্ট এবং সার্টিফিকেট। এছাড়া শ্রেষ্ঠ অভিনেতা-অভিনেত্রী, শ্রেষ্ঠ চিত্র গ্রাহক এবং শ্রেষ্ঠ চিত্রনাট্যের জন্য পুরষ্কার তো থাকছেই।

ফরাসি দুই নারী চলচ্চিত্র নির্মাতার সাতটি ছবি দিয়ে সাজানো হয়েছে রেট্রোস্পেকটিভ বিভাগ। এছাড়া উৎসবের অংশ হিসেবে প্রথমবারের মত থাকছে ইন্টারন্যাশনাল ফিল্ম ক্রিটিক এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ এর আয়োজনে এবং আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র সমালোচক ফেডারেশন এর সহযোগিতায় প্রথম এশিয়ান ফিল্ম ক্রিটিকস এসেম্বেলী। এখানে এশিয়া অঞ্চলের সর্বোমোট ১২ দেশ অংশগ্রহণ করবে।

রেইনবো চলচ্চিত্র সংসদ ১৯৭৭ সাল থেকে চলচ্চিত্র সংসদ আন্দোলনের সাথে সংশ্লিষ্ট থাকলেও ১৯৯২ সাল থেকে দ্বিবার্ষিক পরিকল্পনায় আয়োজন করে চলেছে এদেশের সর্ববৃহৎ এবং জমকালো চলচ্চিত্র উৎসব। পূর্বে দ্বিবার্ষিক পরিকল্পনায় ঢাকা চলচ্চিত্র উৎসব পরিচালিত হলেও গত বছর থেকে উৎসব টি প্রতিবছরই ধারাবাহিকভাবে আয়োজনের সিদ্ধান্ত নেয় উৎসবের আয়োজক কমিটি।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন উৎসবের প্রধান পৃষ্ঠপোষক ও পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম। উৎসেবর গুরুত্ব তুলে ধরে তিনি বলেন, ‘এ ধরনেরে আয়োজনের মধ্য দিয়ে বিশ্বের কাছে বাংলাদেশের পরিচিতি আরও বাড়ছে।’ তাই চলচ্চিত্র উৎসবের ব্যাপ্তি আরও বাড়াতে সরকারের পক্ষ থেকে সহযোগিতা করার আশ্বাস দেন তিনি।

উৎসবের চিফ প্রোগ্রামার জোরেহ জামিন সহ উৎসব আয়োজক কমিটির চেয়ারম্যান কিশোওয়ার কামাল, আয়োজন কমিটির সদস্য ম. হামিদ ও উৎসব পরিচালক আহমেদ মুজতবা জামাল এ সময় সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন। সভাপতিত্ব করেন উৎসব আয়োজক কমিটির উপদেষ্টা রবিউল ইসলাম।

প্রসঙ্গত, এই উৎসবে অংশ নিতে ঢাকায় আসার কথা রয়েছে ভারতীয় অভিনেত্রী ও পরিচালক অপর্ণা সেনের। আগামী শনিবার সন্ধ্যায় তিনি ঢাকায় আসবেন। ১৪ জানুয়ারি বিকেলে রাজধানীর আলিয়ঁস ফ্রঁসেজে ‘উইমেন ফিল্মমেকার কনফারেন্স’ শীর্ষক সেমিনারে অংশ নেবেন তিনি।

কর্মশালায় অপর্ণা সেনের সঙ্গে মতবিনিময়ের মাধ্যমে বাংলাদেশের নারী নির্মাতারা অভিজ্ঞতা অর্জনের একটি সুবর্ণ সুযোগ পাবেন বলে আশা করা হচ্ছে। ১৫ জানুয়ারি ঢাকা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে জাতীয় গণগ্রন্থাগার মিলনায়তন ভেন্যুতে বিকেল ৫টা ৩০ মিনিটে প্রদর্শিত হবে অপর্ণা সেন পরিচালিত ‘সোনাটা’ ছবিটি।

এলএ/পিআর

বিনোদন, লাইফস্টাইল, তথ্যপ্রযুক্তি, ভ্রমণ, তারুণ্য, ক্যাম্পাস নিয়ে লিখতে পারেন আপনিও - jagofeature@gmail.com

আপনার মতামত লিখুন :