মিশরে বিচ থিয়েটার উৎসবে অংশ নেবেন ইসরাফিল শাহীন

বিনোদন ডেস্ক
বিনোদন ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৪:২৪ পিএম, ২৮ মার্চ ২০১৮

লোহিত সাগরের পাড়ে মিশরের সবচেয়ে জনপ্রিয় পর্যটনকেন্দ্রগুলোর অন্যতম ঐতিহাসিক শার্ম আল শেখ শহর। আগামী ১ এপ্রিল থেকে সেখানেই শুরু হতে যাচ্ছে ইয়ুথ থিয়েটার ফেস্টিভ্যাল। পৃথিবীর ৪৫টি দেশের নাটক ছাড়াও এ উৎসবে অংশ নেবেন সহস্রাধিক নাট্য ব্যক্তিত্ব, নাট্য নিদের্শক ও অভিনেতারা।

ইয়ুথ থিয়েটার ফেস্টিভ্যালে ‘বিচ থিয়েটার’ থার্ড এডিশনে ১১টি দেশের মোট ১৪ জন নাট্যনিদের্শক অংশ নেবেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের থিয়েটার এন্ড পারফরমেন্স স্টাডিজ বিভাগের অধ্যাপক ও উপমহাদেশের নন্দিত নাট্যব্যক্তিত্ব ড. ইসরাফিল শাহীন এই ফেস্টিভ্যালে বাংলাদেশ থেকে প্রথমবারের মতো অংশগ্রহণ করতে যাচ্ছেন।

বাংলাদেশ ছাড়াও অংশগ্রহণকারী অন্য দেশগুলো হলো যুক্তরাষ্ট্র, তুরস্ক, মিশর, ফ্রান্স, ইরাক, কানাডা, জার্মানি ও লেবানন। ইয়ুথ থিয়েটার ফেস্টিবেলে ‘বিচ থিয়েটার’ থার্ড এডিশনে সমুদ্র সৈকতে উম্মুক্ত স্থানে সপ্তাহব্যাপী কর্মশালা ও সেমিনার পরিচালনা করবেন ড. ইসরাফিল শাহীন। যেখানে ১১টি দেশের মোট ১৪ জন নাট্যনিদের্শক ছাড়াও বিশ্বের কয়েকশত নাট্য ব্যক্তিত্ব, নাট্য নিদের্শক, অভিনেতা, নাট্যকর্মী ও নাট্যশিক্ষার্থিরা অংশ নেবেন।

জানা গেছে, ৯ এপ্রিল পর্যন্ত এ ফেস্টিবেলে অংশ নিতে আগামী ৩০ মার্চ ঢাকা ছাড়বেন ড. শাহীন।

এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘এটি প্রথাগত কোনো থিয়েটার নয় বরং একটি নতুন ধারণা। কিছুদিন আগে কক্সবাজারের বিচ থিয়েটার নিয়ে আমার সাথে কাজ করেছিল যুক্তরাষ্ট্রের ওয়াসিংটন ডিসির জর্জটাউন বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক, গবেষক ও নির্দেশক ড. ডেরেক গোল্ডম্যান। শার্ম আল শেখে কর্মশালা ও সেমিনারে আমি দেশের বিচ থিয়েটার করার অভিজ্ঞতা যেমন ব্যক্ত করবো তেমনি ওখান থেকে অর্জিত বিভিন্ন বিষয় দেশে এসে বীচ থিয়েটারে প্রয়োগ করবো। অমাদের মূল লক্ষ্য বাংলাদেশের সমুদ্র তীরবর্তী সৈকতগুলোতে পর্যটনের যে অপার সম্ভবনা আছে তাকে আরও নান্দনিক করতে সেখানে আগত বিভিন্ন দেশের নানান শ্রেণী পেশার মানুষকে বিচ থিয়েটারের মাধ্যমে আনন্দিত-নস্টালজিক করার পাশপাশি দেশের লোকজ সংস্কৃতিকে তুলে ধরা।

এক্ষেত্রে সাকার্স, এক্রোবেটিকস, ম্যাজিক শো, জাগলারি, বানার নাচ, সাপের খেলাসহ হরেকরকম স্ট্রিট শো এবং গ্রামবাংলার ঐতিহ্যবাহী খেলা, গান, পালা উপস্থাপন করা যেতে পারে। ইতিমধ্যেই দেশের পর্যটন মন্ত্রণালয় ও পর্যটন কর্পোরেশনের সাথে এ বিষয়ে প্রাথমিক কথা হয়েছে। আশা করছি বিচ থিয়েটারের মাধ্যমে দেশের পর্যটন শিল্প দেশ-বিদেশের ট্যুরিস্টদের কাছে আরও বেশি সমাদৃত হবে এবং রাষ্ট্র বর্তমান থেকে অনেক বেশি অর্থনৈতিকভাবে লাভবান হবে।’

এলএ/এমএস

বিনোদন, লাইফস্টাইল, তথ্যপ্রযুক্তি, ভ্রমণ, তারুণ্য, ক্যাম্পাস নিয়ে লিখতে পারেন আপনিও - jagofeature@gmail.com