এফডিসির এমডি হতে যাচ্ছেন মুশফিকুর রহমান গুলজার!

বিনোদন প্রতিবেদক
বিনোদন প্রতিবেদক বিনোদন প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৪:৩৭ পিএম, ১২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

নতুন মন্ত্রিসভা গঠনের পর তথ্য মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব নিয়েছেন আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ। তথ্যমন্ত্রী হিসেবে অন্তর্ভূক্তির পরপরই তার বেশকিছু ইতিবাচক কার্যক্রম চলচ্চিত্র পাড়ায় আলোচিত হচ্ছে।

প্রথমত বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সেন্সর বোর্ডের পুরনো কমিটি নতুন করে গঠন করা হয়েছে। নামও বদলে যাচ্ছে এই প্রতিষ্ঠানটির। সেন্সর বোর্ডের পরিবর্তে এটি সার্টিফিকেশন বোর্ড নামে পরিচিত হবে।

পাশাপাশি জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারের ক্ষেত্রে এক বছরের জের দীর্ঘদিন ধরেই। সেটিও মিটিয়ে আনা হচ্ছে চলতি বছরে। এবার একসঙ্গে দুই বছরের জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার প্রদান করবে তথ্য মন্ত্রণালয়।

এবার শোনা যাচ্ছে চলচ্চিত্রের কারখানা বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন করপোরেশনে রদবদল আনছে তথ্য মন্ত্রণালয়। বর্তমানে এফডিসির ব্যবস্থাপনা পরিচালকের দায়িত্ব পালন করছেন আমির হোসেন। খুব শিগগিরই তিনি সচিবালয়ে নতুন পদে ফিরে যাবেন।

আর এফডিসির এমডি হিসেবে চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ দেয়া হতে পারে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতির সভাপতি মুশফিকুর রহমান গুলজারকে। গেল কয়েকদিন ধরেই বেশ জোরেশোরে এই খবর উড়ে বেড়াচ্ছে চলচ্চিত্রের আকাশে বাতাসে।

নয়া এমডি হিসেবে গুলজারের পাশাপাশি শোনা গেছে দুই চিত্রনায়ক রিয়াজ ও ফেরদৌসের নামও। তবে এই খবরটিকে সম্পূর্ণ গুজব বলে দাবি করলেন চিত্রনায়ক রিয়াজ। তিনি বলেন, ‘আমি মোটেও এমন কিছু শুনিনি। আর এত বড় দায়িত্ব নেয়ার কথা আমি ভাবিওনি।

এফডিসির নতুন এমডি কে হবেন, তিনি চলচ্চিত্রেরই কেউ হবেন না কী কোনো সরকারি আমলাকেই দায়িত্ব দেয়া হবে সেটা বলতে পারবো না। যেই আসুক, প্রত্যাশা থাকবে তিনি চলচ্চিত্র বান্ধব হবেন। চলচ্চিত্রের স্বার্থে নিয়োজিত থাকবেন।’

এদিকে ‘গাঙচিল’ ছবির শুটিংয়ে দুর্ঘটনার শিকার নায়ক ফেরদৌস গুরুতর আহত হয়ে পূর্ণ বিশ্রামে রয়েছেন। এফডিসির এমডি পদে ফেরদৌসকে নিয়ে প্রচার হওয়া খবর প্রসঙ্গে তার মন্তব্য মিলেনি।

তবে পরিচালকদের নেতা গুলজার সম্পর্কে শোনা যাচ্ছে তিনি প্রায় চূড়ান্ত হয়ে আছেন এই পদের জন্য। আনুষ্ঠানিক ঘোষণা ও দায়িত্ব গ্রহণেরই অপেক্ষা চলছে কেবল। যদিও জাগো নিউজকে গুলজার বলেন, ‘এখন পর্যন্ত বলার মতো কিছু আমিও জানি না। নতুন সরকার ক্ষমতায় বসেছে। চারদিকেই রদবদল হচ্ছে। এফডিসিতেও হতে পারে। কে এমডি হবে সেটা বলতে পারবো না।’

এমডি হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণে আগ্রহ আছে কী না এই প্রশ্নের জবাবে মুশফিকুর রহমান গুলজার বলেন, ‘এটা গুরু দায়িত্ব। অনেক কঠিন এবং সম্মানের। অনেকদিন ধরেই চলচ্চিত্রের মানুষদের এমন একটা দাবি আছে যে এফডিসির এমডি হিসেবে চলচ্চিত্রের কাউকে যেন দায়িত্ব দেয়া হয়।

সেদিক থেকে রাষ্ট্র যদি আমার উপর নির্ভর করে তাহলে চলচ্চিত্রের জন্য কিছু কাজ করতে চাই। দোয়া করেন।’

টানা দুই মেয়াদে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতির সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন মুশফিকুর রহমান গুলজার। বেশ কয়েক বছর সেন্সর বোর্ডের সদস্য হিসেবেও কাজ করার অভিজ্ঞতা রয়েছে তার।

সম্প্রতি তথ্য মন্ত্রণালয় কর্তৃক গেজেট আকারে প্রকাশিত দুই বছরের জন্য জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার প্রদানের জুরি বোর্ডের কমিটিতেও দেখা গেছে এই পরিচালক নেতার নাম।

সাংগনিক দক্ষতা ও চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্ট অভিজ্ঞতার আলোকে চলচ্চিত্র পাড়ায় নিশ্চিতভাবেই গুলজারের নাম উচ্চারিত হচ্ছে এফডিসির নতুন এমডি হিসেবে। এখন অপেক্ষার পালা, শেষ পর্যন্ত সিনেমার জন্য গুরুত্বপূর্ণ এই পদটিতে কী চমক আসে।

এলএ/পিআর

বিনোদন, লাইফস্টাইল, তথ্যপ্রযুক্তি, ভ্রমণ, তারুণ্য, ক্যাম্পাস নিয়ে লিখতে পারেন আপনিও - [email protected]