কেউ কেউ এফডিসি কিনে নিতে চায় : ফারুক

মাসুম আওয়াল
মাসুম আওয়াল মাসুম আওয়াল , স্টাফ রিপোর্টার
প্রকাশিত: ০৭:১৫ পিএম, ১৩ মার্চ ২০১৯

‘বিএফডিসির পেছনে লোক লেগেছে। কেউ কেউ চায় ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রি বন্ধ হয়ে যাক। দেশের চলচ্চিত্র যদি ধ্বংশ হয়ে যায় তাহলে এফডিসি নিয়ে সরকার কী করবে? এটা হয়তো বিক্রি করে দেবে। তখন কেউ এটা কিনে নিতে চাইবে। সুযোগ সন্ধানী কেউ কেউ এফডিসি কিনে নিতে চায়। তারা ওঁৎ পেতে বসে আছে।’ বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন কর্পোরেশন (বিএফডিসি) নিয়ে এমনই মন্তব্য করেছেন জনপ্রিয় চিত্রনায়ক ও এমপি আকবর হোসেন পাঠান ফারুক।

দেশে বিদেশি ছবি প্রবেশের সহজ নীতিমালা ও দেশীয় ছবি নির্মাণ বাড়ানোর দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র প্রদর্শক সমিতি। এ বিষয়ে সরকার যদি আনুষ্ঠানিক উদ্যোগ না নেয় তাহলে ১২ এপ্রিল থেকে দেশের সব প্রেক্ষাগৃহ বন্ধের ঘোষণা দিয়েছে এই সংগঠনটির সভাপতি ইফতেখারুদ্দিন নওশাদ। প্রদর্শক সমিতির এই সিদ্ধান্তের বিষয়ে মন্তব্যে এফডিসি নিয়ে এমন শংকা প্রকাশ করেছেন তিনি।

নায়ক ফারুক বলেন, ‘হঠাৎ এমন কথা বলার কোনো যৌক্তিকতা নেই। এটা ঘাড় বাঁকা লোকের মতো কথা বলেছে। সিনেমা হল বন্ধ করলে দেশের চলচ্চিত্রে কতটা ক্ষতি হবে এটা জানতে হবে। উনারা না বুঝেই হয় তো চট করে সিনেমা হল বন্ধ করে দেয়ার মতো কথা বলেছে। সিনেমা হল বন্ধ করে দেয়ার মতো পরিস্থিতি এখনো তৈরি হয়নি।’

মিঞা ভাই খ্যাত চিত্রনায়ক ফারুক আরও বলেন, ‘এ বিষয়ে তথ্য মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে বসতে হবে। তথ্য মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে না বসেই এমন ঘোষণা দেয়া ঠিক হবে না। এই যে প্রদর্শক ভাইদের জন্য এতো কথা বলি, তারা যদি এখন সিনেমা হল বন্ধের ঘোষণা দেয় তাহলে তো সব কথাই শেষ হয়ে গেল। কথা বলার জা্য়গা রাখতে হবে। হঠাৎ করেই বড় কোনো সিদ্ধান্ত নেয়া ঠিক নয়।

হুট করে একটা কথা বলে দিলে তো হলো না। আমার ব্যবসা কী সরকার এসে করে দেবে? সিনেমা হলের মালিকরা যদি বলেন ভালো ছবি দেন সরকার কী ভালো ছবি বানিয়ে দেবে? এখানে ট্যাক্সের কথা, এফডিসির সুযোগ সুবিধার কথা আসতে পারে। সিনেমার উন্নয়ন নিয়ে কথা হতে পারে সরকারের সঙ্গে। এখানে হল বন্ধের প্রসঙ্গ আসছে কেন?’

দেশে বিদেশি ছবি প্রবেশের সহজ নীতিমালা ও দেশীয় ছবি নির্মাণ বাড়ানোর উদ্যোগ না নিলে ১২ এপ্রিল থেকে দেশের সব প্রেক্ষাগৃহ বন্ধের ঘোষণা দেয় বাংলাদেশ চলচ্চিত্র প্রদর্শক সমিতি। ১২ মার্চ দুপুরে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ ঘোষণা দেন সমিতির নেতারা।

হল মালিকরা দাবি করেন, দেশীয় ছবির সংকটে ইন্ডাস্ট্রি। সাফটা চুক্তিতে সিনেমা আমদানির নীতিমালা সহজ করতে হবে। প্রয়োজনে হলিউড ছবির পাশাপাশি বলিউডের হিন্দি ও উপমহাদেশের অন্যান্য দেশের সিনেমা মুক্তির প্রথম দিই আনার সুযোগ করে দিতে হবে। সংগঠনটির সভাপতি ও মধুমিতা মুভিজের কর্ণধার ইফতেখার উদ্দিন নওশাদ এসব কথা বলেন। তবে বিদেশি ছবি আমদানি ও ইফতেখার উদ্দিন নওশাদের হল বন্ধের আলটিমেটাম সহজ ভাবে নেয়নি সিনেমার মানুষরা।

এমএবি/এলএ/এমএস

বিনোদন, লাইফস্টাইল, তথ্যপ্রযুক্তি, ভ্রমণ, তারুণ্য, ক্যাম্পাস নিয়ে লিখতে পারেন আপনিও - jagofeature@gmail.com

আপনার মতামত লিখুন :