অশ্লীলতাসহ বিতর্কিত নানা অভিযোগ নিয়ে মুখ খুললেন নায়িকা একা

বিনোদন প্রতিবেদক
বিনোদন প্রতিবেদক বিনোদন প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০২:৫১ পিএম, ১৪ মার্চ ২০১৯

বিভিন্ন সময়ে চলচ্চিত্র মাতানো অনেক নায়ক-নায়িকাই হারিয়ে গেছেন। তাদের কেউ কেউ সংসারে বেঁধেছেন মন, কেউ বা নিয়োজিত হয়েছেন অন্য ব্যবসায়ে। কেউ কেউ আবার নতুন করে ফিরেছেন। কেউ ভাবছেন ফিরবেন বলে।

অনেকটা সময় আড়ালে থেকে নতুন করে ফিরে আসাদের তালিকার নতুন নাম চিত্রনায়িকা একা। নায়ক মান্নার সঙ্গে জুটি বেঁধে তিনি সাড়া ফেলেছিলেন বাংলা সিনেমায়। অনেকের সঙ্গেই তিনি জুটি বেঁধেছেন। তবে মান্নার বিপরীতে একা ছিলেন দুর্দান্ত।

নায়ক মান্নার মৃত্যুর পর সিনেমায় বেশ বড় একটা পরিবর্তন দেখা গেল। এ নায়কের একক সাম্রাজ্যের সঙ্গে ওতপ্রোতভাবে জড়িয়ে থাকা প্রযোজক-পরিচালক ও কলাকুশলীরা কিছুটা যেন তাল হারিয়ে ফেলেছিলেন সিনেমায়। ফলস্বরূপ, তাদের বেশিরভাগের আড়ালে চলে যাওয়া। একাও তাদের একজন।

অশ্লীল ছবির নায়িকাসহ কিছু বিতর্কিত কাজে জড়ানোর অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে। নায়ক মান্নার না থাকার পাশাপাশি এইসব অভিযোগও একাকে নিয়ে গেছে শিল্পের সবচেয়ে বড় মাধ্যম চলচ্চিত্রের বাইরে।

তবে নতুন করে আবারও শোবিজে ফিরেছেন তিনি। তার দেখা মিলছে টিভি অনুষ্ঠানে, নাটক ও বিজ্ঞাপনে। এই প্রত্যাবর্তনে সিনেমা ইন্ডাস্ট্রিতে তিনি দেখছেন অনেক পরিবর্তন, অনেক যোগ-বিয়োগ।

সম্প্রতি এক আলাপচারিতায় জানালেন তিনি তার আড়ালে যাওয়া ও ফিরে আসার গল্প। জানিয়েছেন, নিজের বিরুদ্ধে উঠা সব অভিযোগের প্রতিবাদও।

নায়ক মান্নার মৃত্যুতেই কী ক্যারিয়ার শেষ হয়ে গিয়েছিলো কী না এমন প্রশ্নের জবাবে একা বলেন, ‘যেহেতু মান্না ভাইয়ের সঙ্গে আমার সফল জুটি গড়ে উঠেছিলো তাই উনার চলে যাওয়ার পর বেশ ভুগতে হয়েছে আমাকে। অনেকের সঙ্গে জুটি বেঁধে কাজ করেছি মান্না ভাই মারা যাওয়ার পর। কিন্তু তেমন করে কারো সঙ্গেই জমে উঠেনি।

সিনেমা হিট করেছে। কিন্তু দেখতে পাচ্ছিলাম চারদিকে একটা ষড়যন্ত্র চলছে। শেষ পর্যন্ত নিজেকে গুটিয়ে নিয়েছিলাম। জেদ করে চাইলে হতে থেকে যেতে পারতাম।’

তিনি বলেন, ‘মান্না ভাইয়ের মৃত্যুর পর অনেক ছবির অফার ছিলো। শাকিব খানের সাথেও ৮-১০টার মত ছবিতে কাজ করেছি। তখন প্রায় সব সিনেমাই হিট হতো। শাকিবসহ অন্য নায়কদের সঙ্গে যেসব ছবি করেছি সেগুলো কিন্তু হিট ছিলো। অনেক ছবি এখনো পড়ে আছে যেগুলো মুক্তি পায়নি। কিছু ছবি আছে যেগুলোর কাজই শেষ হয়নি।’

তবে তো মান্নার মৃত্যুর পরও ভালোই ব্যস্ততা ছিলো ক্যারিয়ারে। চেষ্টা করলেন না কেন থেকে যাওয়ার? এই প্রশ্নে একার জবাব, ‘ওই যে বললাম কিছু পলিটিক্স চলছিলো। পাশাপাশি তখন সিনেমায় অশ্লীলতা নিয়ে সংকট ছিলো চরমে। আমার মতো আরও অনেক নায়িকাই সরে গেছেন মিথ্যে অভিযোগ মাথায় নিয়ে। আমাদেরকে ইচ্ছে করেই ব্যাকফুটে রাখার চেষ্টা হয়েছে।’

কিন্তু এমন অভিযোগও কিন্তু আছে যে আপনি মাদক ব্যবসাসহ কিছু বিতর্কিত কাজের সাথে জড়িয়ে পড়েছিলেন। সেসব কারণেই সিনেমায় ব্যস্ততা থাকা সত্বেও সরে গিয়েছিলেন। এটা কী সত্যি নয়? ‘না। চলচ্চিত্রে যখন আমি কাজ করি তখন অনেক ভালো ভালো ছবিতে কাজ করছিলাম। ঠিক তখন অন্য প্রযোজক-পরিচালকরা আমাকে দিয়ে তাদের সিনেমায় কাজ করার কথা বলেন। আমার গল্প পছন্দ না হওয়ায় তাদের কাজ করতাম না।

তাদের ছবি ফিরিয়ে দেয়ায় আমার উপর জেদ করে তারা আমাকে নানাভাবে হেয় করার চেষ্টা করেছে। তারা প্রতিষ্ঠিত করতে চেয়েছে আমি অশ্লীল ছবির নায়িকা, মাদক ব্যবসায়ী ইত্যাদি ইত্যাদি। যার কোনোটাই আমি নই।

অশ্লীলতা তখন প্রায় সব ছবিতেই ছিলো। কিন্তু যারা মূল নায়ক-নায়িকা ছিলেন তারা কিন্তু সেইসব দৃশ্য করতেন না। বরং আমরা পরিচালকদের সঙ্গে প্রতিবাদ করেছি, বিদ্রোহ করেছি অশ্লীলতা নিয়ে।

মজার ব্যাপার হলো অশ্লীল ছবি করা প্রযোজক ও পরিচালকদের অনেকে এখনো ইন্ড্রাস্ট্রিতে সচল। সেইসময় আমাদের নায়ক হওয়া অনেকেই এখনো অভিনয় করে বেড়াচ্ছেন দাপটের সঙ্গে। অথচ আমার মতো অনেক অভিনেত্রী অকারণে এই অভিযোগ মাথায় নিয়ে ঘুরছি। সবাই তো ঠিকই কাজ করছে, অশ্লীল হয় শুধু নায়িকারাই!’

তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সময়ে মাদক ব্যবসায়ের দায় নিয়ে দেশ ছেড়েছিলেন একা। এই অভিযোগের জবাবে তিনি জানান, একা নোংরা রাজনীতির শিকার হয়েছেন। যার কারণে কোনো উপায় না পেয়ে দেশ ছেড়েছিলাম।

তিনি বলেন, ‘অনেকেই আজ ফিল্ম থেকে সরে গেছেন মিথ্যা অপপ্রচার মাথায় নিয়ে। জোর করে অনেক কিছুই চাপিয়ে দেয়া হয়েছে। ক্ষমতাধর প্রযোজক-পরিচালকদের জন্য অনেক জনপ্রিয় নায়িকারাই চলচ্চিত্র থেকে সরে গেছেন। তাদের অনেকে নানা কারণে মুখ খুলেন না। আবার অনেকে হয়তো আগ্রহও পায় না সেসব নিয়ে বলতে। কিন্তু তারা সিনেমার জন্য হিট ছিলো।’

তবে সবকিছু পেছনে ফেলে আবারও শোবিজে ব্যস্ত হয়ে হচ্ছেন একা। নিয়মিত থাকবেন কী না জানতে চাইলে জবাব দেন, ‘কাজই তো নেই ইন্ডাস্ট্রিতে। প্রায় সবাই বেকার হয়ে আছে। নিয়মিত কাজ কোথায়? আমি চেষ্টা করছি কিছু কাজ করতে।

টিভি অনুষ্ঠান করছি। নাটকে কাজ করছি। ফাঁকে ফাঁকে কিছু বিজ্ঞাপনেও কাজ করছি। এর মধ্যে কাসফি সুপার হোয়াইট ডিটারজেন্ট পাউডারের কাজ শেষ করলাম।’

জনপ্রিয় পরিচালক কাজী হায়াতের ‘তেজী’ এবং ‘ধর’সহ বেশ কয়েকটি ছবিতে প্রয়াত জনপ্রিয় নায়ক মান্নার বিপরীতে জনপ্রিয়তা পান একা। এরপর টানা ২০-২৫টির মতো ছবি মুক্তি পায় তার। সেগুলো ছিলো ব্যবসা সফল।

মান্নার বাইরে রুবেল, আমিন খান, অমিত হাসান, আলেকজান্ডার বো, শাকিব খান, কাজী মারুফসহ আরও অনেক নায়কের বিপরীতেই কাজ করেছেন একা।

তার সর্বশেষ সিনেমা কাজী হায়াৎ পরিচালিত ‘পাগলা হাওয়া’ মুক্তি পায় ২০১২ সালে। এরপর প্রায় ছয় বছরের বিরতি দিয়ে ২০১৮ সালে আবার কিছু সিনেমায় কাজ করেন তিনি। সেগুলো মুক্তির অপেক্ষায় রয়েছে। চলতি বছরেও একটা ছবির কাজ করবেন বলে কথা রয়েছে।

বিগত তত্ত্বাবধায়ক সরকারের আমলে দেশ ছেড়ে বিদেশে চলে গিয়েছিলেন। সেখানে পেতেছিলেন সুখের সংসার। স্বামী-সন্তান ও সংসার নিয়ে ব্যস্ত হয়ে পড়েন। সেসব সামলে নতুন করে আবারও তিনি শোবিজে।

এলএ

বিনোদন, লাইফস্টাইল, তথ্যপ্রযুক্তি, ভ্রমণ, তারুণ্য, ক্যাম্পাস নিয়ে লিখতে পারেন আপনিও - jagofeature@gmail.com

আপনার মতামত লিখুন :