চলচ্চিত্র ইন্ডাস্ট্রি এখন লাশের মতো : সোহান

বিনোদন প্রতিবেদক
বিনোদন প্রতিবেদক বিনোদন প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৪:৪৭ পিএম, ২৫ মার্চ ২০১৯

‘কেয়ামত থেকে কেয়ামত’। সোহানুর রহমান সোহান পরিচালিত এই ছবিটি বাংলা ছবির ইতিহাসে একটি মাইলফলক হয়ে আছে। এই ছবি দিয়েই ঢাকাই ছবিতে যাত্রা করেছিলেন অমর নায়ক সালমান ও প্রিয়দর্শিনী অভিনেত্রী মৌসুমী।

ঈদ উল ফিতর উপলক্ষে ১৯৯৩ সালের ২৫ মার্চ মুক্তি পেয়েছিল এই ছবিটি। সেই ছবিটির আজ মুক্তির ২৬ বছর পূর্ণ হলো।

ছবিটি মুক্তির ২৬ বছরে পা দেয়ার দিনে নিজের অনুভূতি প্রকাশ করে সোহানুর রহমান সোহান জাগো নিউজকে বলেন, ‘সকাল বেলা থেকেই ফেসবুকে দেখছি এখনো মানুষ ছবিটির কথা মনে রেখেছে। এখনো ‘কেয়ামত থেকে কেয়ামত’ ছবির সালমান শাহ-মৌসুমীকে মানুষ ভালোবাসে। এইসব দেখে ভালোই লাগে।

ছবিটির জন্য ভালোবাসা এখনো মানুষের হৃদয়ে আছে। এসব দেখে আমি অতীতে হারিয়ে যাই।
কত কিছু মনে পড়ে। কোথায় কোথায় কীভাবে শুটিং করলাম সব মনে পড়ে। নিজের মনের মধ্যে একটা সুখানুভূতি অনুভব করি। সালমানকে মিস করি। ও এখনো ছবির পোস্টার বয়।’

সোহানুর রহমান সোহান বর্তমান সময়ে সিনেমার ক্রান্তিলগ্নে একটি ‘কেয়ামত থেকে কেয়ামত’ ছবির প্রাসঙ্গিকতা নিয়ে বলেন, ‘বর্তমানে আমাদের চলচ্চিত্রের অবস্থা খুব খারাপ। চলচ্চিত্র ইন্ডাস্ট্রি এখন লাশের মতো হয়ে গেছে, রুগ্ন শিল্পে পরিণত হয়েছে। মনে হয় আবার যদি সেইসব দিন ফিরে আসতো।

আমাদের ১৪০০ সিনেমা হল ছিল। সিনেমা হলে তখন উপচে পড়া দর্শক ছিল। এমন অবস্থা ফিরলে আবার সবাই ভালো ভালো চলচ্চিত্র নির্মাণ করতে পারতো। ‘কেয়ামত থেকে কেয়ামত’র মতো ছবিও আসতো।

প্রযোজক, পরিচালক, শিল্পী, টেকনিশিয়ান সবার মুখে হাসি ফুটতো। আশা করি সরকার এগিয়ে আসবে। ভর্তুকি দিয়ে হলেও চলচ্চিত্র শিল্পকে আবারও বাঁচিয়ে তুলবে। বাংলা সংস্কৃতিকে ধরে রাখতে হলে আমাদের চলচ্চিত্রকে বাঁচিয়ে রাখতে হবেই।’

এদিকে কয়েক বছর আগে দুটি ছবির শুটিং শুরু করেছিলেন সোহানুর রহমান সোহান। শুটিংয়ের পরে প্রযোজক পিছিয়ে যাওয়ার কারণে আটকে আছে ছবি দুইটি। পাচ্ছেন নতুন প্রযোজকও। প্রযোজকরা এগিয়ে আসলেই ছবি দুটিরে শুটিং শেষ হবে। সেই রকমই বললেন সোহান।

এমএবি/এলএ/পিআর

বিনোদন, লাইফস্টাইল, তথ্যপ্রযুক্তি, ভ্রমণ, তারুণ্য, ক্যাম্পাস নিয়ে লিখতে পারেন আপনিও - jagofeature@gmail.com