হলে নেই সিনেমা, দেয়ালে পিঠ ঠেকেছে ইন্ডাস্ট্রির

বিনোদন প্রতিবেদক
বিনোদন প্রতিবেদক বিনোদন প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০২:৪২ পিএম, ২৫ জুন ২০১৯

দেশে অনেককেই অনেক বড় বড় কথা বলতে শোনা যায় সিনেমা নিয়ে। সবাই সিনেমার স্বঘোষিত রক্ষক ও সেবক। কিন্তু গেল দশ বছর ধরে ‘সুনামি’র মতো ধেয়ে আসা সিনেমা শিল্পের পতনকে কেউই থামাতে পারছেন না।

হল মালিক ও বুকিং এজেন্টদের রাজনীতিসহ নানা রকম দ্বন্দ্ব-বিভেদ আর পরিকল্পনা-উদ্যোগের অভাবে দেয়ালে গিয়ে ঠেকেছে বাংলাদেশি সিনেমার পিঠ।

তার ভিড়েই আসছে নানা রকম ফাঁকা আওয়াজ। সরকারের কয়েক দফা সিনেমা হল নির্মাণের ঘোষণা এসেছে। ডিপজল, জাজ মাল্টিমিডিয়া, শাপলা মিডিয়ার সেলিম খান ঘোষণা দিয়েছেন ১০০টি সিনেমা হলে ডিজিটাল মেশিন বসাবেন। সেসব ঘোষণাতেই আটকে আছে।

অনেকেই শখের বশে, ঝোঁকের বশে সিনেমা প্রযোজনার ঘোষণা দিয়ে আলোচনায় এসেছেন। অনেক নির্মাতাও বিগ বাজেটে বড় বড় তারকাদের নিয়ে সিনেমার ঘোষণা দিয়ে নিউজের শিরোনাম হয়ে নিজেদের কাটতি বাড়িয়েছেন। অনেক নির্মাতা ক্যারিয়ারের প্রথম ছবিতে বাজিমাত করে অনেক স্বপ্ন দেখিয়ে এখন হাত পা গুটিয়ে বসে আছেন।

এতে করে দিনে দিনে সিনেমার সংখ্যা কমতে কমতে ‘অক্সিজেন’হীন হয়ে পড়েছে সিনেমা ইন্ডাস্ট্রি। বাড়ছে অযোগ্য লোকদের আনাগোনা ও প্রভাব। আড়ালে থাকা প্রযোজকের গোপন লগ্নিতে জনপ্রিয় তারকা ও নির্মাতারা প্রযোজক সেজে বাহবা কুড়াচ্ছেন। এতে করে তাদের অনৈতিক প্রভাব বাড়ছে ইন্ডাস্ট্রিতে। নেতিবাচকতার শিকার হচ্ছে সিনেমা।

সেইসঙ্গে আগে যেখানে সিনেমার মুক্তিকে কেন্দ্র করে উৎসব নামতো এখন সে চিত্র পাল্টে গিয়ে করুণ অবস্থা ধারণ করেছে। সিনেমাকে এখন অপেক্ষা করতে হচ্ছে উৎসবের জন্য। উৎসব ছাড়া এখন আর নতুন সিনেমা দেখা যায় না বললেই চলে। যে কয়টি সিনেমা তৈরি হয় প্রায় সবারই টার্গেট থাকে কোনো না কোনো উৎসব বা বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ কোনো দিবস।

এমনকী দেশের সেরা নায়ক শাকিব খানের ছবিও উৎসবকেন্দ্রিক। উৎসব ছাড়া তার ছবিও মুক্তি পায় না খুব একটা। তাই উৎসবের বাইরের সময়টা অনেকটা মাছি তাড়িয়েই কাটাতে হচ্ছে হল মালিকদের। সেই মাছি তাড়ানোর হাতিয়ার কখনো ফ্লপ নতুন কোনো ছবি অথবা প্রায় বিনামূলে চালানোর শর্তে পুরনো কোনো ছবি।

সেকারণে রোজা ঈদের পর তিন সপ্তাহ পেরিয়েও সিনেমা হলে নেই কোনো নতুন সিনেমা। চতুর্থ সপ্তাহে এসেও ঈদের রেশ কাটাতে পারছে না ঢাকাই ইন্ডাস্ট্রি। দেশি সিনেমার অভাবের দোহাই দিয়ে আনা হচ্ছে বিদেশি সিনেমা। 

খোঁজ নিয়ে দেখা গেল, ঈদের পর তৃতীয় সপ্তাহে গেল শুক্রবার, ২১ জুন ২১২টি হলে মুক্তি পেয়েছে শাকিব-বুবলীর ‘পাসওয়ার্ড’। আরও কিছু হলে চলছে শাকিব-ববির ‘নোলক’ ও অনন্য মামুনের ‘আবার বসন্ত’ ছবিগুলো।

কিছু হল চালানো হচ্ছে পুরনো সিনেমা দিয়ে। ‘আব্বাস’, ‘সাপলুডু’, ‘মিশন এক্সট্রিম’ ‘অবতার’সহ আরও কিছু সিনেমা তৈরি হয়ে আছে মুক্তির অপেক্ষায়। কিন্ত কোনো ছবিই জুন মাসে মুক্তি পাচ্ছে না। কেন? অনুসন্ধানে উত্তর মিললো হলগুলোতে এখনো শাকিবের ছবির প্রভাব কাটছে না।

তৃতীয় সপ্তাহেও টুকটাক দর্শক টানছে শাকিবের দুটি ছবি। যা অন্য নায়কদের বেলায় প্রথম সপ্তাহেও মিলে না। তাই হল মালিকরা নতুন ছবি চাইছেন না। সেদিক বিবেচনা করে প্রযোজকরাও ঝুঁকি নিয়ে তাদের নতুন ছবি এই সময়টাতে মুক্তি দিতে চাইছেন না।

তবে জুলাই ও আগস্ট মাসে কিছু নতুন ছবির দেখা মিলতে পারে। সে তালিকায় নিশ্চিত হয়েছে সাঈফ চন্দন পরিচালিত নিরব-সাবা জুটির ‘আব্বাস’ ছবিটি। আসছে ৫ জুলাই মুক্তি পাবে এটি। এর পর জুলাই মাসে দেখা মিলতে পারে মাহির ‘অবতার’ ছবিটির।

এদিকে তারিখ নিশ্চিত না হলেও শোনা যাচ্ছে আসছে কোরবানি ঈদের আগেই মুক্তি পাবে গোলাম সোহরাব দোদুলের ‘সাপলুডু’ ছবিটি। মিম ও আরিফিন শুভ জুটি হাজির হবেন এই ছবিতে।

ঈদের আগেই প্রেক্ষাগৃহে আসতে পারে ‘মিশন এক্সট্রিম’ ছবিটিও। পুলিশি অ্যাকশানের এই ছবিতে মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ ঐশীর সঙ্গে জুটি বেঁধেছেন আরিফিন শুভ। ছবির শুটিং এরইমধ্যে শেষ হয়েছে। চলছে সম্পাদনার কাজ।

আর সেপ্টেম্বরে ঈদ উপলক্ষে মুক্তির মিছিলে থাকবে লম্বা লাইন, এমনটাই আশা করা হচ্ছে। সেখানে শাকিব খানের একাধিক সিনেমা থাকবে। আশা করা হচ্ছে ‘শাহেনশাহ’, ‘মনের মতো মানুষ পাইলাম না’, ‘একটু প্রেম দরকার’, ‘পাসওয়ার্ড টু’ ছবিগুলো থেকেই যে কোনো দুটি ছবি ঈদে পাবেন শাকিব ভক্তরা।

শাকিবের একক রাজত্বে ঈদটা জমিয়ে তুলতে পারেন অনন্ত জলিল। দীর্ঘদিনের বিরতি কাটিয়ে ‘দিন - দ্য ডে’ ছবিটি নিয়ে আসছে ঈদুল আযহাতেই তিনি প্রত্যাবর্তন করতে পারেন বলে শোনা যাচ্ছে। ইরানের সঙ্গে যৌথভাবে নির্মিত এই ছবিতে অনন্ত জলিলের লুক এরইমধ্যে বেশ প্রশংসিত হয়েছে। ছবিটি দিয়ে আবারও ঢাকাই সিনেমার দর্শকদের মধ্যে হৈ চৈ ফেলে দেবেন অনন্ত, এমনটাই মত দিচ্ছেন চলচ্চিত্রের অনেকেই।

ঈদে ‘আনন্দ অশ্রু’ সিনেমা নিয়ে নায়ক সাইমন ও ‘২০৪০’ সিনেমা নিয়ে হাজির হতে পারেন নায়ক বাপ্পী চৌধুরীও।

এলএ/এমকেএইচ

বিনোদন, লাইফস্টাইল, তথ্যপ্রযুক্তি, ভ্রমণ, তারুণ্য, ক্যাম্পাস নিয়ে লিখতে পারেন আপনিও - [email protected]