সিনেমা হল মালিকদের নতুন কমিটি নিয়ে বিতর্ক

বিনোদন প্রতিবেদক
বিনোদন প্রতিবেদক বিনোদন প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৩:১৮ পিএম, ২১ অক্টোবর ২০১৯

ঢাকাই সিনেমার দুর্দিন চলছে। হলে নতুন সিনেমার মুক্তির হার তলানিতে ঠেকেছে। নিয়মিত প্রতি সপ্তাহে একটি করে ছবি মুক্তি পাওয়া তো দূরের কথা কোনো কোনো মাসে নতুন কোনো ছবি মুক্তি পাচ্ছে না। আবার যেসব ছবি মুক্তি পাচ্ছে তার বেশির ভাগই দর্শকপ্রিয়তা অর্জন করতে পারেছে না। এদিকে সিনেমার বিভিন্ন সংগঠনের মধ্যে ঝামেলা লেগেই আছে।

আগামী ২৫ অক্টোবর চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচন। নির্বাচন ঘিরে নানা বিতর্ক তৈরি হয়েছে। এর আগে নীরবে গঠিত হয়েছে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র প্রদর্শক সমিতির নতুন কমিটি। সংগঠনের নির্ধারিত কাগজে ‘বাংলাদেশ চলচ্চিত্র প্রদর্শক সমিতির নির্বাচন ২০১৯-২১, চূড়ান্ত ফলাফল’ শীর্ষক এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়।

নির্বাচন বোর্ডের সভাপতি সুদীপ্ত কুমার দাস, সদস্য মোজাহারুল ইসলাম ওবায়েদ ও জাহিদ হোসেনের স্বাক্ষর করা এক চিঠিতে জানানো হয়, বাংলাদেশ চলচ্চিত্র প্রদর্শক সমিতির নির্বাচনের (২০১৯-২১) সংশোধিত তফসিল অনুযায়ী বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় বাংলাদেশ চলচ্চিত্র প্রদর্শক সমিতির নতুন সভাপতি হয়েছেন কাজী শোয়েব রশিদ ও সাধারণ সম্পাদক আওলাদ হোসেন।

অন্য পদগুলো হলো- সহ-সভাপতি মিঞা আলাউদ্দিন ও আমির হামজা, সহ-সাধারণ সম্পাদক শরফুদ্দিন এলাহী ও খোরশেদ আলম, কোষাধ্যক্ষ আজগর হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক আবুল হোসেন, সাংস্কৃতিক, সমাজকল্যাণ ও আইনবিষয়ক সম্পাদক আর এম ইউনুস। কার্যনির্বাহী পরিষদের সদস্য উত্তম কুমার সিংহ রায়, রফিক উদ্দিন, রবিউল ইসলাম, ফারুক হোসেন, আশরাফুল ইসলাম ও সুমন কুমার সাহা।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ২০১৯-২১ মেয়াদের সংশোধিত তফসিল অনুযায়ী কর্মকর্তা পদে প্রাপ্ত মনোনয়নপত্রগুলো যাচাই–বাছাইয়ের পর সব মনোনয়নপত্র বৈধ বিবেচিত হওয়ায় এবং একটি পদের বিপরীতে একটি করে বৈধ মনোনয়নপত্র দাখিল হওয়ায় সবাইকে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত ঘোষণা করা হলো।

এদিকে এ সংগঠনের আগের সভাপতি ইফতেখার উদ্দিন নওশাদ বলেন, তিনি এই নির্বাচনের কিছুই জানেন না। সর্বশেষ কমিটির সভাপতি মধুমিতা প্রেক্ষাগৃহের কর্ণধার ইফতেখার উদ্দিন জাগো নিউজকে বলেন, ‘গত ছয় মাসে সমিতির কোনো কার্যক্রমে আমাকে ডাকা হয়নি, জানানো হয়নি। সমিতির কয়েকজন সদস্য নিজেদের স্বার্থ হাসিলের জন্য নিজেদের মতো কমিটি করেছেন। এর মধ্যে অনেকেই কোনো সিনেমা হলের মালিক নন। নিজেরা প্রভাব খাটিয়ে এই কমিটি গঠন করেছেন তারা।’

তবে বর্তমান কমিটির নির্বাচিতদের দাবি, তারা নিয়ম মেনেই নতুন কমিটি গঠন করেছেন।

গত ২০ জুন ‘বাংলাদেশ চলচ্চিত্র প্রদর্শক সমিতির নির্বাচন ২০১৯-২১’ তফসিল ঘোষণা করা হয়। পরে গত ২৫ সেপ্টেম্বর বাংলাদেশ ফিল্ম ক্লাবের সভাপতি ও আলিম সিনেমা হলের মালিক আতিকুর রহমান এবং লিপি টকিজের উদ্যোক্তা আবদুল আলিমসহ ১১০ জনের করা আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে চলচ্চিত্র প্রদর্শক সমিতির নির্বাচনের সব কার্যক্রম স্থগিত করে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সংশ্লিষ্ট বিভাগ।

বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের উপসচিব সৈয়দা নাহিদা হাবিবের স্বাক্ষর করা এক বিজ্ঞপ্তিতে নির্বাচন কার্যক্রম স্থগিতের নির্দেশ দেওয়া হয়। সেখানে প্রাপ্ত অভিযোগের ভিত্তিতে বেশকিছু বিষয় তদন্ত করে পত্র প্রাপ্তির ১০ কার্যদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন প্রেরণের জন্য নির্দেশ দেওয়া হয়।

বর্তমান কমিটির পক্ষ থেকে জানানো হয়, গত ১৭ অক্টোবর হাইকোর্টে এক স্টে অর্ডারের মাধ্যমে এ সমস্যার সমাধান হয়েছে। তাই বাংলাদেশ চলচ্চিত্র প্রদর্শক সমিতির নির্বাচনের (২০১৯-২১) সংশোধিত তফসিল অনুযায়ী বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত করা হয়েছে বর্তমান কমিটি।

এমএবি/এমকেএইচ

বিনোদন, লাইফস্টাইল, তথ্যপ্রযুক্তি, ভ্রমণ, তারুণ্য, ক্যাম্পাস নিয়ে লিখতে পারেন আপনিও - jagofeature@gmail.com