এই প্রথম জন্মদিনে মা নেই : কুমার বিশ্বজিৎ

বিনোদন প্রতিবেদক
বিনোদন প্রতিবেদক বিনোদন প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১১:২২ এএম, ০১ জুন ২০২০

এখনও সমান তালে গান গেয়ে চলেছেন তিনি। ‘তোরে পুতুলের মত করে সাজিয়ে’, ‘তুমি রোজ বিকেলে’ কিংবা ‘যেখানে সীমান্ত তোমার’ এর মতো গান দিয়ে এখনও শ্রোতাদের হৃদয়ে চির সবুজ হয়ে আছেন কুমার বিশ্বজিৎ। তার জনপ্রিয় গানের তালিকাটা বেশ লম্বা। আজ সোমবার (১ জুন) জনপ্রিয় এ গায়কের জন্মদিন।

এবার এক মন খারাপের জন্মদিন কাটাচ্ছেন কুমার বিশ্বজিৎ। জন্মের পর থেকে প্রতিবছর মায়ের সঙ্গে জন্মদিন পালন করেছেন। কিন্তু এবার জন্মদিনে পাশে নেই মা। গত বছর ১২ ডিসেম্বর কুমার বিশ্বজিতের মা পৃথিবী ছেড়ে চলে গেছেন। তাই প্রথম মাকে ছাড়াই জন্মদিনের সময়টা পার করতে হচ্ছে তাকে। এছাড়া করোনার জন্যও কোনো উচ্ছ্বাস নেই জন্মদিনের।

কুমার বিশ্বজিৎ বলেন, ‘মাকে ছাড়া আমার জীবনের প্রথম জন্মদিন। এই প্রথম জন্মদিনে মা নেই। এমনিতেও ভালো কাটতো না এবং সবমিলিয়ে ভালো কাটবেও না। মাকে অনেক শ্রদ্ধা জানাই। মা ছিলেন আমার কুমার বিশ্বজিৎ হওয়ার কারিগর। মাকে খুব মনে পড়ছে।’

‘তোরে পুতুলের মতো করে সাজিয়ে’ খ্যাত গায়ক আরও বলেন, ‘অনেক শ্রদ্ধা জানাই, আন্তরিক ভালোবাসা জানাই তাদের। করোনার এ ক্রান্তিকালে সম্মুখ যুদ্ধে অংশগ্রহণ করছেন যারা। যেমন ডাক্তার, নার্স, সাংবাদিক, পুলিশ তথা আইনশৃঙ্খলা বাহিনী, বিভিন্ন সংগঠন, স্বেচ্ছাসেবী, পরিচ্ছন্নতাকর্মীসহ আরও যারা বিভিন্ন স্তরে থেকে সহযোগিতা করছেন। তাদের প্রতি ভালোবাসা ও স্যালুট।’

লকডাউনের এই দিনগুলোতেও কুমার বিশ্বজিতের সার্বিক পরিকল্পনায় ও সুরে দুটি গান প্রকাশ হয়েছে। দুটি গানই লিখেছেন লিটন অধিকারী রিন্টু এবং সঙ্গীতায়োজন করেছেন কিশোর।

দুটি গানের মধ্যে একটি হচ্ছে ‘লকডাউন’ এবং অন্যটি হচ্ছে ‘ঈদ আনন্দ’। এই গানটিতে কণ্ঠ দিয়েছেন নিশীতা, ইমরান, লিজা ও কিশোর।

১৯৬৩ সালের ১ জুন জন্মগ্রহণ করেছিলেন কুমার বিশ্বজিৎ। চট্টগ্রাম জেলায় তার শৈশব কেটেছে। ‘তোরে পুতুলের মত করে সাজিয়ে’ গান দিয়ে উচ্চ মাধ্যমিকের ছাত্রাবস্থাতেই তিনি পেয়েছিলেন জনপ্রিয় গায়কের খ্যাতি। এরপর বহুদূর এগিয়ে এসেছেন। বাংলা আধুনিক কিংবা চলচ্চিত্রের গানে দীর্ঘ চার দশক ধরে কণ্ঠ দিচ্ছেন কুমার বিশ্বজিৎ। তিনবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার জয় করেছেন।

এমএবি/পিআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]