শুটিংয়ে ঘনিষ্ঠ দৃশ্য-চুম্বন না থাকায় চিন্তিত তারকারা

বিনোদন ডেস্ক
বিনোদন ডেস্ক বিনোদন ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৪:১২ পিএম, ০৩ জুন ২০২০

করোনাভাইরাসের সংক্রমণের এই দিনে সবাইকে সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে চলতে বলা হচ্ছে। লকডাউনের পরবর্তী দিনগুলোতে কীভাবে শুটিং হবে? সেসব নিয়ে ভাবছে এই অঙ্গণের মানুষেরা। সবার অজানা কী হবে নাটক ও ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির ভবিষ্যৎ? এরই মধ্যে শুটিংয়ে বেশ কিছু পরিবর্তনও আনা হয়েছে।

সম্প্রতি ভারত, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং ইংল্যান্ড সহ আরো কয়েকটি দেশের বিষেজ্ঞরা এক মিটিংয়ে সিন্ধান্ত নিয়েছিলেন করোনাকালে শুটিং সেটে একজন ভাইরোলজিস্ট রাখা হবে। চুম্বন দৃশ্যের বা কোনো ঘনিষ্ঠ দৃশ্যের শুটিং হলে সেই ভাইরোলজিস্ট এর মতামত নিয়েই ওই দৃশ্যের শুটিং হবে।

এরই মধ্যে বলিউডে ৬৫ বছরের বেশি অভিনেতাদের শুটিং ফ্লোরে যাওয়ার ব্যাপারে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে মহারাষ্ট্র সরকার। মঙ্গলবার ইন্ডিয়ান ফিল্ম অ্যান্ড টেলিভিশন ডিরেক্টর্স অ্যাসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে লিখিত আবেদন করা হয়েছে ওই সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনার জন্য।

টালিউডে শুটিংয়ের নতুন নিয়মাবলি ঠিক করতে মঙ্গলবার টেকনিশিয়ান স্টুডিওয় আলোচনায় বসেন চ্যানেল প্রযোজক, টেকনিশিয়ান, শিল্পীদের ফোরামের প্রতিনিধিরা। প্রযোজকরা প্রস্তাব দেন, শুটিং ফ্লোরে একসঙ্গে ৬ জন শিল্পীকে নিয়ে শুটিং হবে। অর্থাৎ ৩৫ জনের ইউনিটে শিল্পীর সংখ্যা হবে ৬। ঘনিষ্ঠতা এবং চুম্বন নিয়েও সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত হয়।

ফ্লোরে থাকা শিল্পীর প্যাক-আপের পর মেকআপ রুম স্যানিটাইজ করে পরবর্তী শিল্পীদের ডাকা হবে। শুটিংয়ে কস্টিউম, উইগ ইত্যাদি ব্যবহার করার ক্ষেত্রে সাবধানতা অবলম্বন করার কথা বলা হয়।

শুটিংয়ে ঘনিষ্ঠ দৃশ্য-চুম্বন না থাকায় চিন্তিত হয়েছেন অনেক তারকা। এই বিষয়ে কথা বলেছেন শ্রীলেখা মিত্র ও ঋতুপর্ণা ঘোষ।

ভারতীয় এক গণমাধ্যমের সূত্রে অনুযায়ি এক ভিডিও বার্তায় ঋতুপর্ণা বলেছেন, ‘করোনা কত দিন থাকবে আমরা কেউ জানি না। এক বছর থাকলে তত দিন সিনেমাতে কোনও ঘনিষ্ঠ দৃশ্যের শুটিং হবে না, সেটা তো হয় না।’

তিনি আরও বলেন, ‘শিল্পীদের টেস্ট করে নিতে হবে, কোভিড পজিটিভ হওয়ার কোনও লক্ষণ আছে কি না। লক্ষণ না থাকলে ঘনিষ্ঠ দৃশ্য করতে পারেন তারা। তবে এটাও বলব, অন্তরঙ্গ দৃশ্য ছাড়াও ছবি হয়। পরিচালকরা কতটা অন্য ভাবনা ভাবতে পারবেন, এ বার তার পরীক্ষা।’

‘কোড়া পাখি’ ধারাবাহিকের নায়ক ঋষি কৌশিক বলেন, ‘বাংলা ধারাবাহিকে চুম্বন দৃশ্য থাকে না। তবে ঘনিষ্ঠ দৃশ্য থাকে। শুটিং শুরু হলেও সব শিল্পীর মনে করোনার ভয় থাকবে। সে ক্ষেত্রে ঘনিষ্ঠ দৃশ্য ছাড়া শুটিং করতে পারলেই ভালো হয়।’

এমএবি/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]