ক্লাসরুম দিয়ে ফিরছেন জেমস

বিনোদন প্রতিবেদক
বিনোদন প্রতিবেদক বিনোদন প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০১:২২ পিএম, ১৫ ফেব্রুয়ারি ২০২১

গুরু আসবেন! অপেক্ষমাণ হাজার হাজার পাগলা ভক্ত বিশাল খোলা মাঠে। মাইক্রোফোনে ঘোষকের ‘গুরু, নগরবাউল জেমস’ নামটি ঘোষণার সঙ্গে সঙ্গেই তিনি স্টেজে আবির্ভূত হলেন বিদ্যুৎগতিতে; যেন এক দেবদূতের ধরিত্রীতে মহাসমারোহে আগমন!

চারদিক বেষ্টিত বিশাল নিরাপত্তা প্রহরী! স্টেজে পা দিতেই ‘গুরু’ জয়ধ্বনিতে বিশাল ময়দান মুখরিত। পরনে কালো পাঞ্জাবি-চাদর, জিন্সের প্যান্ট, পায়ে কালো জুতা আর ঢেউ খেলানো লম্বা চুলে কাঁধে গিটার ঝুলানো অন্য এক নগরবাউল! শুরু করলেন গান; নেমে এলো পিনপতন নীরবতা।

গাইতে শুরু করলেন তার দুষ্টু ছেলেদের জন্য একটার পর একটা পাগল করা গান। স্মৃতির রাজ্যে একটা সময় এমনই ছিল চিরচেনা দৃশ্যপট! নব্বই দশকের অনেকের শৈশব, কৈশোর শুরু হয়েছে এই সুপার রকস্টারের মনমাতানো সব গানে। গত দুই বছর তাঁকে কনসার্টে দেখা যায়নি।

সেই বিরতি কাটিয়ে তিনি ফিরছেন। ‘ক্লাসরুম’র দুষ্টু ছেলেদের গানে গানে মাতাতে হাজির হচ্ছেন খোলা ময়দানে। আসছে ১২ মার্চ ক্লাসরুম এসএসসি-২০০১ ব্যাচের ২০ বছর পূর্তি উপলক্ষে সব বন্ধু একত্রিত হবে মিরপুর ১৪ নম্বর পিএসসি কনভেনশন হলে। সে

দিন নগরবাউল জেমসের পাশাপাশি স্টেজ মাতাবেন ডি জে রাহাত। আয়োজকদের মধ্যে রয়েছেন- ফাহিমুজ্জামান ফাহিম, মাসুদ রানা, সিরাজুল আজাদ, নিশাত, দেলোয়ার হোসেন, অ্যাডভোকেট মাশরাতসহ অনেকেই।

তারা বলেন, ‘আমাদের সবার প্রিয় নগরবাউল জেমস! আমরা যাঁর গান শুনে উন্মাতাল হয়ে যেতাম। সেই গুরু আসছেন গানে গানে মাতাতে। আসলে, সব বন্ধুকে একত্রিত করতেই আমরা মিলিত হচ্ছি এক ছাদের নিচে। বন্ধুদের নিয়ে মাতামাতি আর হারিয়ে যেতে চাই সোনালি অতীতে।’

এলএ/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]