সাংবাদিকদের হেনস্থা, পরিবেশ শান্ত করলেন অনন্ত জলিল

বিনোদন প্রতিবেদক
বিনোদন প্রতিবেদক বিনোদন প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০২:২৪ পিএম, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১

একটি সিনেমা রয়েছে মুক্তির অপেক্ষায়। আরেকটি সিনেমা নতুন শুরু করতে যাচ্ছেন। তাই বেশ জমকালো আয়োজনে পরিকল্পনা করেছিলেন সংবাদ সম্মেলনের। সেখানে উপস্থিত হয়েছিলেন তুরস্ক, ভারতসহ বাংলাদেশের অনেক তারকা।

ঢাকাই সিনেমার জনপ্রিয় চিত্রনায়ক ও প্রযোজক অনন্ত জলিলের আমন্ত্রণে সাড়া দিয়ে গতকাল ২৭ ফেব্রুয়ারি রাজধানীর লা মেরিডিয়ান হোটেলে হাজির হয়েছিলো নানা প্রজন্মের এক ঝাঁক সংবাদকর্মীও।

তবে ব্যবস্থাপনার দুর্বলতায় চমৎকার আয়োজনটিতে লাগলো সমালোচনার ছিটা। শুরু থেকেই চোখে পড়ে সাংবাদিকদের প্রবেশের বেলার বিড়ম্বনা। আমন্ত্রণপত্রে কোথাও উল্লেখ ছিলো না সেটি অনুষ্ঠানে নিয়ে আসতে হবে। তাই অনেকেই এসেছিলেন আমন্ত্রণপত্রটি ছাড়াই। কিন্তু তার ফলে প্রবেশে বাঁধার মুখে পড়তে হয়েছে তাদের। এ বিড়ম্বনা থেকে সাংবাদিকদের উদ্ধার করেন অনন্ত জলিলের লোকজন।

একই ঘটনার সূত্র ধরে অনুষ্ঠানটির ইভেন্টের দায়িত্বে থাকা প্রতিষ্ঠানের ‘বাউন্সার’রা হেনস্থা করেন কয়েকজন গণমাধ্যমকর্মীকে। এতে চটে গিয়ে অনুষ্ঠানস্থল ত্যাগ করতে চাইলে অনন্ত জলিল নিজে এসে গণমাধ্যমকর্মীদের নিকট দুঃখ প্রকাশ করেন। তিনি ‘সরি’ বলে পরিবেশ শান্ত করেন।

জানা গেছে, আমন্ত্রণপত্র না নিয়ে আসায় একজন গণমাধ্যমকর্মীর সঙ্গে লা মেরিডিয়ান হোটেলেরই ইভেন্ট ম্যানেজমেন্টের এক নিরাপত্তাকর্মী বাজে ব্যবহার করে। একপর্যায়ে সাংবাদিককে ‘দেখে নেওয়া’র হুমকি দেন। এতে উপস্থিত গণমাধ্যমকর্মীরা ক্ষিপ্ত হয়ে অনুষ্ঠান বর্জনের ঘোষণা দিলে অনন্ত জলিল নিজেই ছুটে আসেন। ভুক্তভোগী গণমাধ্যমকর্মীদের ‘সরি’ বলেন।

অনন্ত জলিল দুঃখপ্রকাশ করে বলেন, ‘আপনারা ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট-এর লোকদের ওপর রাগ করে চলে যাবেন এটা হতে পারে না। ওরা ইভেন্টের দায়িত্বে ছিল, ওরা আমাদের পার্টনার নয়, ওরা ছবির মালিকও নয় প্রোডিউসারও নয়। আমি সবচেয়ে বেশি সাংবাদিকদের সম্মান করি। এটা সবাই জানে যে, অনন্ত ভাই কত শ্রদ্ধা করে সাংবাদিকদের।

আমি কোনো অনুষ্ঠানে গেলে কখনো আগে বসি না, আগে সাংবাদিকদের সঙ্গে দেখা করি। আমি এতোটাই শ্রদ্ধা করি সাংবাদিকদের। একটা ইভেন্ট কোম্পানির জন্য তো আমি দায়ী হতে পারি না।’

অনন্ত জলিলের এই কথার রেশ ধরে গণমাধ্যমকর্মীরা বলে ওঠেন, ‘আপনি কেন এদের দায়িত্ব দেন যারা আপনার সম্মান নষ্ট করে?’ এই প্রশ্নের জবাবে অনন্ত বলেন, ‘আসলে আমরা একটা কোম্পানিকে ভাড়া করি। কাজ দেখে ভালো না লাগলে আর কখনোই তাদের সঙ্গে কাজ করি না। ভবিষ্যতে এই কোম্পানি আর কাজ পাবে কি না, ইউ গাইজ আর নো'জ।

আমরা অনুষ্ঠান করতেছি এটার নামই হলো প্রেস কনফারেন্স ইনক্লুডিং ওপেনিং সেরেমোনি। এখানে ওই কোম্পানি যদি খারাপ করে থাকে ভবিষ্যতে তারা কাজ পাবে কি না, আই ডোন্ট নো। এটা আপনারাই ভালো বলতে পারবেন।’

এরপর তাৎক্ষণিকভাবে অনন্ত জলিল ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট কর্তৃপক্ষকে অভিযুক্ত কর্মীকে ‘ক্লোজ’ করার নির্দেশ দেন। দুর্ব্যবহারের শিকার একজন গণমাধ্যমকর্মীকে বুকে টেনে নিয়ে বলেন, ‘গোটা বাংলাদেশে আমার বদনাম নাই। কেউ যদি ইচ্ছাকৃতভাবে বদনাম করার চেষ্টা করে তাহলে সেটা পারবে না। কারণ আমি মিডিয়ার সঙ্গে খারাপ ব্যবহার করি না।’

এই ঘটনার পর কিছু গণমাধ্যমকর্মী অনুষ্ঠানস্থল ত্যাগ করলেও স্বাভাবিকভাবেই ‘দিন- দ্য ডে’ ও ‘নেত্রী-দ্য লিডার’ চলচ্চিত্রের কুশীলবদের পরিচয় পর্ব সংবাদ সম্মেলন সম্পন্ন হয়।

সেখানে জানানো হয়, ‘দিন : দ্য ডে’ চলচ্চিত্রটি এশিয়া, ইউরোপ, আফ্রিকা, আমেরিকা ও অস্ট্রেলিয়া- এ পাঁচটি মহাদেশের প্রায় ৮০টি দেশে একসঙ্গে মুক্তি দেওয়া হবে। এ ছবিটি পাঁচটি ভাষায় মুক্তি পাবে। মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলো যেখানে বাংলাদেশিরা কাজ করেন, সেখানে বাংলা ভাষাতেই মুক্তি পাবে এ ছবি।

অন্যদিকে ‘নেত্রী : দ্য লিডার’র চলচ্চিত্রে অনন্ত বর্ষা ছাড়াও অভিনয় করবেন ভারতের তিন জনপ্রিয় খল অভিনেতা। আজ ২৮ ফেব্রুয়ারি থেকেই সিলেটে এ ছবির শুটিং শুরু হ ওয়ার কথা। এ ছবিতে নেত্রীর ভূমিকায় থাকবেন বর্ষা। অনন্ত থাকবেন তার বডিগার্ড হিসেবে।

ছবিটি পরিচালনা করবেন ভারতের উপেন্দ্র মাধব। পাশাপাশি অনন্ত জলিল ও তুরস্কের একজন পরিচালকও পরিচালনার সঙ্গে সম্পৃক্ত থাকবেন। এ ছবিটি তুরস্কের সঙ্গে যৌথ প্রযোজনায় নির্মিত হচ্ছে।

এলএ/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]