সংস্কৃতিকর্মীদের যেসব দাবিতে একমত শিল্পকলা একাডেমির মহাপরিচালক

বিনোদন প্রতিবেদক
বিনোদন প্রতিবেদক বিনোদন প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০১:১০ পিএম, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১

জাতীয় নাট্যশালার সম্মুখে সংস্কৃতি সংগঠনের নেতৃবৃন্দের উপস্থিতিতে ১৭ সেপ্টেম্বর বিকেলে একটি সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে মিলনায়তন ও মহড়া কক্ষ বিনা ভাড়ায় বরাদ্দ প্রদানসহ বেশকিছু দাবি নিয়ে এসেছিলেন সংস্কৃতিকর্মীরা।

বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির মহাপরিচালক এবং বাংলাদেশ গ্রুপ থিয়েটার ফেডারেশানের চেয়ারম্যান লিয়াকত আলী লাকী অধিকাংশ দাবির প্রতি সহমত পোষণ করেছেন।

তার একমত পোষণের মধ্যে অন্যতম বিষয় ছিলো বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির সকল মিলনায়তন ও মহড়াকক্ষ বরাদ্দ প্রদান। ১২ আগস্ট মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী লকডাউন তুলে নেয়ার পর ১৯ আগস্ট থেকেই একাডেমির সকল মিলনায়তন ও মহড়াকক্ষ বরাদ্দ পাওয়া যাচ্ছে।

গত বছর কোভিড-১৯ জনিত কারণে ঢাকাস্থ নাট্যসংগঠনের প্রতিনিধিদের সাথে আলোচনাক্রমে প্রণিত নীতিমালার আলোকে অক্টোবর ২০২০ থেকে মার্চ ২০২১ পর্যন্ত জাতীয় নাট্যশালাসহ একাডেমির সকল মিলনায়তন ও মহড়া কক্ষ বিনা ভাড়ায় বরাদ্দ প্রদান করা হয়। তারই ধারাবাহিকতায় বরাদ্দ প্রদান অব্যাহত রয়েছে।

জেলা শিল্পকলা একাডেমির হল ভাড়া মওকুফের বিষয়টিও বিবেচনাপূর্বক প্রশাসনিক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানান লিয়াকত আলী লাকী।

এর বাইরে শিল্পকলা একাডেমির মহাপরিচালক আরও গুরুত্বপূর্ণ ৫টি দাবির সঙ্গে একমত হন। সেগুলো হলো করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত সংস্কৃতি অঙ্গণকে পুণরুদ্ধারের লক্ষে বিশেষ প্রণোদনা প্রকল্প অনুমোদন করা, ইতোপূর্বে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি পরিষদ কর্তৃক অনুমোদিত ৩৩টি জাতীয় ও আন্তর্জাতিক উৎসবের বাজেট রাজস্ব খাতে প্রদান করা, জাতীয় পাঠ্যক্রমে সংগীত, নাটক, চারুকলা ও নৃত্যসহ অন্যান্য শিল্পমাধ্যমের সংযোজন ও বাস্তবায়ণ করা, ‘পেশাভিত্তিক শিল্পচর্চার’ সহায়তা প্রকল্প অনুমোদন করা ও দেশের বহুজাতিক সরকারি ও বেসরকারি সকল শিল্প-প্রতিষ্ঠানকে শিল্প-সংস্কিৃতির পৃষ্ঠপোষকতা প্রদান করা।

এলএ/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]