শাহরুখপুত্র আরিয়ান খাবার খেতে পারছেন না, চিন্তায় কারা কর্তৃপক্ষ

বিনোদন ডেস্ক
বিনোদন ডেস্ক বিনোদন ডেস্ক
প্রকাশিত: ০২:০৯ পিএম, ১৮ অক্টোবর ২০২১

তিনি বলিউড বাদশাহ’র পুত্র। সোনার চামচ মুখে নিয়ে জন্মেছেন। বাবা-মায়ের প্রথম সন্তান হিসেবে আদরেরও কমতি হয়নি কখনো। দেশে বিদেশে ঘুরেফিরে বড় হয়েছেন। পড়াশোনা করেছেন লন্ডনের বিখ্যাত প্রতিষ্ঠানে। দামি পোশাক, দামি খাবারে অভ্যস্ত আরিয়ান খান এখন কারাগারে।

নিয়তির এক করুণ পরিহাস বটে। তবে তাকে নিয়ে বেশ বেকায়দায় আছে মুম্বাইয়ের আর্থার রোড কারা কর্তৃপক্ষ। কারণ হলো তিনি কারাগারের নিয়মিত খাবার খেতে পারছেন না। এর ফলে তার স্বাস্থ্য ভেঙে পড়ছে। দুর্বল হয়ে পড়ছেন শাহরুখপুত্র।

মুম্বাইয়ের প্রমোদতরীর মাদক পার্টি থেকে গ্রেফতার হওয়ার পর থেকে হাজতই আরিয়ানের ঠিকানা। আর পাঁচ জন অভিযুক্তের মতো দিন কাটছে তার। নেই বিশেষ কোনো আয়োজন। সকলের মতো সকাল উঠে পড়তে হচ্ছে তাকে। খেতে দেওয়া হচ্ছে জেলের সাদামাঠা খাবার।

কিন্তু এই জীবনযাপনে অভ্যস্ত হতে পারছেন না ২৩ বছরের আরিয়ান। ভারতীয় গণমাধ্যম আনন্দবাজার জানাচ্ছে, জেলের খাবার খেতে পারছেন না আরিয়ান। সেখানকার নিয়মকানুনের সঙ্গেও মানিয়ে নিতে অসুবিধা হচ্ছে তার। শাহরুখ-পুত্রের স্বাস্থ্য এবং পরিচ্ছন্নতা নিয়ে চিন্তিত জেল কর্তৃপক্ষ।

ইতিমধ্যেই আরিয়ানকে জেলের অন্য ব্যারাকে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। বাকি অভিযুক্তদের সঙ্গে রাখা হচ্ছে না তাকে। পরতে হচ্ছে না জেলের পোশাক। আরিয়ান কারও সঙ্গে কথা বলছেন না। মাদক-কাণ্ডে গ্রেফতার হওয়া সঙ্গীদের সঙ্গেও দেখা করতে চাইছেন না তিনি।

বর্তমানে তার নিরাপত্তা বাড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। হাজতের কর্মীরা বিশেষ নজর রাখছেন তার উপর।

আরিয়ানের খাওয়া দাওয়ার খরচ বাবদ মানি অর্ডারে সাড়ে চার হাজার টাকা পাঠিয়েছেন শাহরুখ। এই মুহূর্তে জেলে বাড়ির খাবার খাওয়ার অনুমতি পাননি তিনি। আপাতত সেখানকার ক্যান্টিনের খাবার খেয়ে দিন কাটছে শাহরুখ-তনয়ের।

যেহেতু বিশেষ কিছু মুখে তুলছেন না, তাই তার শরীর নিয়ে চিন্তায় আর্থার রোড জেল কর্তৃপক্ষ।

এলএ/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]