বিনয় মজুমদারের জন্ম ও যতীন্দ্রনাথ সেনগুপ্তের প্রয়াণ

ফিচার ডেস্ক
ফিচার ডেস্ক ফিচার ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৮:০৪ এএম, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২২

মানুষ ইতিহাস আশ্রিত। অতীত হাতড়েই মানুষ এগোয় ভবিষ্যৎ পানে। ইতিহাস আমাদের আধেয়। জীবনের পথপরিক্রমার অর্জন-বিসর্জন, জয়-পরাজয়, আবিষ্কার-উদ্ভাবন, রাজনীতি-অর্থনীতি-সমাজনীতি একসময় রূপ নেয় ইতিহাসে। সেই ইতিহাসের উল্লেখযোগ্য ঘটনা স্মরণ করাতেই জাগো নিউজের বিশেষ আয়োজন আজকের এই দিনে।

১৭ সেপ্টেম্বর ২০২২, শনিবার। ০২ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

ঘটনা
১৯০৩- মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের রাইট ভ্রাতৃদ্বয় অরভিল রাইট ও উইলবার রাইট সাফল্যের সঙ্গে উড়োজাহাজের উড্ডয়ন ঘটান।
১৯২৪- হিন্দু মুসলমান সম্প্রীতির জন্য মহাত্মা গান্ধীর অনশন।
১৯৭৪- বাংলাদেশ, গ্রানাডা এবং গিনি-বিসাউ জাতিসংঘে যোগদান করে।
১৯৮৮- সিউলে ১৬০টি দেশের অংশ গ্রহণে ২৪তম অলিম্পিক গেমসের উদ্বোধন হয়।
২০০৫- বাংলাদেশে বড়পুকুরিয়া কয়লাখনি থেকে বাণিজ্যিক ভাবে কয়লা উত্তোলন শুরু।

জন্ম
১৯১৫- চিত্রশিল্পী মকবুল ফিদা হুসেন।
১৯১৮- প্রখ্যাত বাঙালি সংগীতশিল্পী ও সুরকার সত্য চৌধুরী।
১৯২২- বাংলাদেশি কৃষক, হরি ধানের উদ্ভাবক হরিপদ কাপালী।
১৯৩৪- কবি বিনয় মজুমদার। মায়ানমারের মিকটিলা জেলার টোডো শহরে জন্ম। ১৯৪৮ সালে দেশভাগের সময় তারা সপরিবারে ভারতের কলকাতায় চলে আসেন। ছাত্রজীবন শেষ হওয়ার কয়েকমাস পরেই এনবিএ থেকে প্রকাশিত হয় ‘অতীতের পৃথিবী’ নামক একটি অনুবাদ গ্রন্থ। এই বছরেই গ্রন্থজগত থেকে বের হয় তার প্রথম কাব্যগ্রন্থ ‘নক্ষত্রের আলোয়’। ১৯৫৩-৫৭ সাল পর্যন্ত রুশ ভাষা শিক্ষা গ্রহণ করে কিছু রুশ সাহিত্য বাংলা ভাষায় অনুবাদ করেন। বৌলতলি হাই-ইংলিশ স্কুলের ম্যাগাজিনে প্রথম কবিতা প্রকাশিত হয়। ত্রিপুরা গভর্নমেন্ট কলেজে অল্পকিছুদিন শিক্ষকতা করার পর স্থির করেন শুধুই কবিতা লিখবেন। লেখা শুরু করেন ‘ফিরে এসো চাকা’। বিশটির কাছাকাছি কাব্যগ্রন্থ লিখেছিলেন। যার মধ্যে ‘ফিরে এসো চাকা’ তাকে সবচেয়ে বেশি খ্যাতি দিয়েছে। এছাড়াও নক্ষত্রের আলোয়, গায়ত্রীকে, অধিকন্তু, ঈশ্বরীর, বাল্মীকির কবিতা, আমাদের বাগানে, আমি এই সভায়, এক পংক্তির কবিতা, আমাকেও মনে রেখো-ইত্যাদি রচনা করেছিলেন। ২০০৬ সালের ১১ ডিসেম্বর তিনি মৃত্যুবরণ করেন। মৃত্যুর কয়েক বছর আগে রবীন্দ্র পুরস্কার এবং সাহিত্য অকাদেমি পুরস্কার পান।
১৯৫০- ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

মৃত্যু
১৯৪৮- জার্মানির খ্যাতনামা জীবনীকার এমিল লুধউইক।
১৯৫৪- বাংলা ভাষার কবি যতীন্দ্রনাথ সেনগুপ্ত। পশ্চিমবঙ্গের পূর্ব বর্ধমান জেলার পাতিলপাড়ায় মাতুলালয়ে জন্ম। পেশাগত জীবনে তিনি ছিলেন প্রকৌশলী এবং নদীয়া জেলা বোর্ড ও কাশিমবাজার স্টেটে তিনি ওভারসীয়ার হিসেবে কাজ করেন। বাংলা কাব্যকে তিনি সনাতন ভাবালুতা ও রহস্যময়তার নিগড় থেকে মুক্ত করতে যত্নবান ছিলেন। তার উল্লেখযোগ্য কবিতাগুলো হলো-অনুপূর্বা, মরুমায়া, সায়ম, ত্রিযামা, কাব্য পরিমিতি, মরীচিকা, মরুশিখা, নিশান্তিকা প্রভৃতি। শেষ বয়সে ম্যাকবেথ, হ্যামলেট, ওথেলো, শ্রীমদ্ভগবদগীতা, কুমারসম্ভব ইত্যাদির অনুবাদ কাজে আত্মনিয়োগ করেছিলেন।
১৯৬৪- সাহিত্যিক নরেশচন্দ্র সেনগুপ্ত।
১৮৭৭- ইংরেজ উদ্ভাবক ও ফটোগ্রাফির পুরোধা উইলিয়াম টলবোট।
১৯৮০- মার্কিন লেখিকা ক্যাথরিন পোর্টার।

দিবস
ঐতিহাসিক শিক্ষা দিবস।
আন্তর্জাতিক সফটওয়্যার স্বাধীনতা দিবস।

কেএসকে/এমএস

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।