দুই হাত হারিয়েও যেভাবে প্রতিষ্ঠিত রায়হান

মোশারফ হোসাইন
মোশারফ হোসাইন মোশারফ হোসাইন , ফিচার লেখক
প্রকাশিত: ০২:৪০ পিএম, ০৮ ডিসেম্বর ২০২১

লালিত স্বপ্ন নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছেন বাহার উদ্দিন রায়হান। স্বপ্ন দেখেন আরও সফল উদ্যোক্তা হওয়ার। শারীরিক প্রতিবন্ধকতা যে কোনো প্রতিবন্ধকতা নয়, সেটিই প্রমাণ করে দিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া এই তরুণ।

আলাপচারিতায় কেমনে যাবো ডট কমের প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক রায়হান জানান, ২০১৫ সালের দিকে আমি একাই ঢাকায় যাওয়ার পরিকল্পনা করি, যেহেতু আমি চট্টগ্রাম থেকে প্রথমবার ঢাকায় যাচ্ছি সেহেতু পরিচিত মানুষদের কাছে ভালো বাস সম্পর্কে জানতে চাই, অনেকে অনেক বাসের কথা বলে।

ইন্টারনেট ঘেটেও বিশ্বস্ত কোনো বাসের তথ্য পাইনা। ঢাকায় যাওয়ার পথে বাসে বসে পরিকল্পনা করি প্রযুক্তি নির্ভর দেশে ভ্রমণকে আরও সহজ করতে আমিই দিতে পারি প্রযুক্তির মাধ্যমে পরিবহন খাতে একটি বিশ্বস্ততা। যেই পরিকল্পনা সেই অনুযায়ী কাজ এরপর জনসাধারণ ও পর্যটকদের ভ্রমণকে সহজতর করার লক্ষ্যে ২০১৬ সালে তার যাত্রা শুরু হয় কেমনে যাবো ডটকমের।

jagonews24

ভ্রমণ সম্পর্কীয় চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় প্রযুক্তি নির্ভর সমাধানের উন্নতি সাধনই আমাদের লক্ষ্য, কেমনে যাবো ডট কম বাংলাদেশের প্রতিটি উপজেলা ভিত্তিক স্থান গুলোতে কীভাবে যাবে, কোথায় রাত্রি যাপন করবে, ঐ এলাকার ইতিহাস, স্থানীয় খাবার ও প্রসিদ্ধ শপিংমল গুলো সহ বিনামূল্যে বিস্তারিত তথ্যসেবা দিচ্ছে।

২০০৪ সালের ৩০ অক্টোবর রায়হানের জীবনে নেমে আসে এক কালো অধ্যায়, রায়হান তখন পঞ্চম শ্রেণির ছাত্র। জহিরপাড়ায় পল্লী বিদ্যুত সরবরাহের জন্য নতুন লাইন টানা হয়েছে তখনো গ্রাহকদের বিদ্যুৎ-সংযোগ দেওয়া হয়নি। বাড়ির পাশে বৈদ্যুতিক খুঁটিতে বসানো ট্রান্সফরমারে একটি ছোট পাখি ঢুকে পড়ে।

রায়হান অপেক্ষা করতে থাকেন পাখিটির জন্য। কিন্তু কিছুক্ষণ অপেক্ষার পরও দেখেন পাখি বেরোচ্ছে না। এরপর নিজেই পাখির অবস্থা দেখার জন্য খুঁটি বেয়ে ওপরে উঠতে থাকেন। ট্রান্সফরমারের কাছে এসে তারে হাত দিতেই বিকট শব্দে ছিটকে পড়েন নিচে। ঝলসে যায় তার দুই হাত, আত্মীয়স্বজন তাকে উদ্ধার করে ভর্তি করেন চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে।

পাঁচ দিনের মধ্যে কেটে ফেলা হয় রায়হানের এক হাত ও আরেক হাতের কনুই পর্যন্ত। হাসপাতাল থেকে ফিরে কিছুদিন ঘরে কাটিয়েছেন রায়হান। একদিন খালাতো বোন বললেন, ‘তুই তো পায়ে কিংবা মুখে লিখতে পারিস, চেষ্টা করে দেখ। এরপর মুখে কলম নিয়ে লেখার চেষ্টা করেন রায়হান। কয়েক দিনে অক্ষর লেখাটা আয়ত্ত হয়ে যায়।

রায়হানের শৈশব কাটে কক্সবাজার জেলার চকরিয়া উপজেলার জহিরপাড়া গ্রামে। চকরিয়া সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি, চকরিয়া সরকারি কলেজ থেকে এইচএসসি শেষ করেন। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইতিহাস বিভাগ নিয়ে এবছর অনার্স শেষ করবেন রায়হান।

jagonews24

মামা নানা নানির কল্যাণে এতদূর আসতে পেরেছেন বলে কৃতজ্ঞতা প্রকাশও করেন তিনি। তবে বাধা অবশ্য কম পেরোতে হয়নি রায়নাকে, সহ্য করতে হয়েছে তুমি করতে যেওনা, পারবেনা এসব কথাও।

রায়হান বলেন, শারীরিক প্রতিন্ধকতা কোনো বাধা নয়, মানসিক ও সামাজিক বাধাই বড় প্রতিবন্ধকতা। মানুষ ভালো কিছু করতে গেলের প্রতিবন্ধকতার মুখে পরবেই। যেই ব্যক্তি যেটা পারে বা করতে পছন্দ করে তাকে সেটা করতে উৎসাহিত করা উচিৎ, উৎসাহ পেলে সে সফল হবেই।

রায়হানের বাবা মারা গিয়েছেন অনেক আগেই পরিবারে আছেন শুধু মা। অসুস্থ মায়ের চিকিৎসার জন্য একমাত্র ভরসা তার কেমনে যাবো ডটকমই। মাসিক লক্ষাধিক ভিজিটরের এই সাইট থেকে আয় মাত্র ১০ হাজার টাকা, তথ্যসেবার এই মাধ্যমকে শক্তিশালী বাতায়ন হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করার স্বপ্নই এখন তার প্রধান লক্ষ্য।

তবে সরকারি বেসরকারিভাবে পৃষ্ঠপোষকতা ও সহযোগিতা পেলে খুব সহজে লক্ষ্যে পৌছতে পারবেন, সেই সাথে সঠিক দিকর্নিদেশনা নিয়ে তার পাশে থাকার আহবানও জানান এই উদ্যোক্তা।

কেএসকে/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]