যক্ষ্মা নির্মূলে বহুমুখী কর্মসূচি হাতে নিয়েছে বাংলাদেশ


প্রকাশিত: ০১:৩১ এএম, ১৭ মার্চ ২০১৭
যক্ষ্মা নির্মূলে বহুমুখী কর্মসূচি হাতে নিয়েছে বাংলাদেশ

ভারত সফররত স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, ২০৩০ সালের মধ্যে যক্ষ্মা নির্মূলের লক্ষ্যে বাংলাদেশ সমন্বিত বহুমুখী কর্মসূচি হাতে নিয়েছে। এই রোগ প্রতিরোধে দেশে উচ্চপর্যায়ের তত্ত্বাবধান নিশ্চিত করার পাশাপাশি জাতীয় যক্ষ্মা পরিকল্পনা বাস্তবায়নে বাজেট বাড়ানো হবে।

বৃহস্পতিবার ভারতের রাজধানী নয়াদিল্লিতে ‘যক্ষ্মা নির্মূলের লক্ষ্যে স্বাস্থ্যমন্ত্রীদের সম্মেলনের সমাপনী দিনে ‘কল ফর অ্যাকশন’ ঘোষণা অধিবেশনের বক্তৃতায় তিনি এ কথা বলেন। ভারতের স্বাস্থ্যমন্ত্রী জেপি নাড্ডার সভাপতিত্বে অধিবেশনে ‘কল ফর অ্যাকশন’ ঘোষণা করেন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া অঞ্চলের আঞ্চলিক পরিচালক ড. পুনম ক্ষেত্রপাল সিং’।

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের তথ্য অফিসার পরীক্ষিত চৌধুরী স্বাক্ষরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, স্বাস্থ্যমন্ত্রী যক্ষ্মা নির্মূলে বাংলাদেশ সরকারের রাজনৈতিক সদিচ্ছা এবং আন্তরিক অঙ্গীকার পুনর্ব্যক্ত করে বলেন, বাংলাদেশে যক্ষ্মা নিয়ন্ত্রণে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ও অন্যান্য সহযোগীদের সঙ্গে যৌথভাবে নেয়া কর্মসূচিগুলোর কার্যক্রম সরকার আরও জোরদার করবে।

তিনি বলেন, যক্ষ্মা কারণে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া অঞ্চলের ১৫ থেকে ৪৯ বছর বয়সীদের জীবন সবসময় হুমকির সম্মুখীন। ফলে প্রতিটি দেশের জাতীয় জীবনে অর্থনৈতিক ও উৎপাদন ক্ষমতার ব্যাপক ক্ষতি হচ্ছে।

মন্ত্রী আরও বলেন, যক্ষ্মা নিয়ন্ত্রণে বাংলাদেশে জনসচেতনতামূলক কার্যক্রম জোরদার করা হয়েছে। যক্ষ্মা সংক্রমণের কারণগুলো চিহ্নিত করে দারিদ্র বিমোচন, অপুষ্টি দূরীকরণ, স্বাস্থ্যকর জীবনযাপন উপযোগী পরিবেশ নিশ্চিত করার পাশাপাশি অন্যান্য আর্থ-সামাজিক চ্যালেঞ্জ দূর করার উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। জনগণ এরইমধ্যে গৃহীত কার্যক্রমের সুফল পেতে শুরু করেছে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী তিন সদস্যবিশিষ্ট প্রতিনিধিদলের নেতৃত্ব দিতে ১৪ মার্চ ভারত যান। তিনি শুক্রবার বিকেলে দেশে ফিরবেন।

এমইউ/এমআরএম/বিএ