বেসরকারি মেডিকেল কলেজ নীতিমালা দ্রুত আইনে রূপান্তরের নির্দেশ

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৯:৩৪ পিএম, ১৮ জানুয়ারি ২০১৮

বেসরকারি মেডিকেল কলেজ স্থাপন ও পরিচালনা নীতিমালাকে আইনে রূপান্তরিত করার প্রয়োজনীয় প্রক্রিয়া দ্রুত সম্পন্ন করতে নির্দেশ দিয়েছেন স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম।

হস্পতিবার সচিবালয়ে বেসরকারি মেডিকেল কলেজ স্থাপন ও পরিচালনা নীতিমালা সংক্রান্ত সভায় সভাপতিত্বের সময় তিনি এই নির্দেশ দেন।

কলেজ পরিচালনা নীতিমালা যথাযথভাবে পূরণ না করায় ২০১৭-২০১৮ শিক্ষাবর্ষের জন্য কয়েকটি কলেজে শিক্ষার্থী ভর্তি স্থগিত করার সরকারি সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আপিল বিভাগের রায় রিভিউ করার প্রস্তুতি নিতে সংশ্লিষ্টদের এই নির্দেশ দিয়েছেন মন্ত্রী।

এসময় নাসিম বলেন, চিকিৎসা শিক্ষার মান উন্নত করার জন্য দেশের সব পর্যায় থেকে প্রায়ই মতামত দেয়া হয়। সব স্তরের জনমতের পরিপ্রেক্ষিতে চিকিৎসা শিক্ষার মান উন্নত করতে সরকার নানাবিধ উদ্যোগ নিয়েছে।

তিনি বলেন, সরেজমিন পরিদর্শনে গিয়ে দেখা যায়, কয়েকটি কলেজে মানসম্মত হাসপাতাল নেই, হাসপাতালে পর্যাপ্ত শয্যা এবং লাইব্রেরি ও ল্যাবরেটরি নেই। পর্যাপ্ত প্রয়োজনীয় শিক্ষক নেই, এমনকি কোনো কোনো কলেজে পূর্ণাঙ্গ ভবনও নেই। এমন কয়েকটি কলেজকে বারবার সতর্ক করা সত্ত্বেও নীতিমালার শর্ত পূরণ করার ক্ষেত্রে কোনো অগ্রগতি পাওয়া যায়নি। ফলে এসব কলেজে গত ২০১৬-২০১৭ এবং ২০১৭-২০১৮ শিক্ষাবর্ষে শিক্ষার্থী ভর্তি কার্যক্রম স্থগিত করা হয়েছে।

তিনি বলেন, এ ধরনের মানহীন কলেজগুলো কোনো না কোনো উপায়ে যদি ছাত্রছাত্রী ভর্তি কার্যক্রম শুরু করার সুযোগ পায় তবে জাতি ভালোমানের চিকিৎসক পাওয়া থেকে বঞ্চিত হবে। তাই সরকারের এই কঠোর পদক্ষেপকে সহায়তা করার জন্য মন্ত্রী সব মহলের সহায়তা কামনা করেন।

আগামী শিক্ষাবর্ষের জন্য আসন বৃদ্ধির আবেদন বিবেচনা করতে আবেদনকারী কলেজ পরিদর্শন করতে স্বাস্থ্য অধিদফতর, বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন এবং বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যান্ড ডেন্টাল কাউন্সিলকে (বিএমডিসি) নির্দেশ দিয়েছেন তিনি। এজন্য পৃথক পৃথক টিম পাঠিয়ে আগামী এক মাসের মধ্যে সুপারিশ প্রদানের কথা বলেছেন মন্ত্রী।

সভায় স্বাস্থ্য, শিক্ষা বিভাগের সচিব ফয়েজ আহম্মেদ, স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদ, বিএমডিসির সভাপতি অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ সহিদুল্লা, স্বাচিপ সভাপতি অধ্যাপক ডা. ইকবাল আর্সলানসহ মন্ত্রণালয়, স্বাস্থ্য অধিদফতরের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

এমইউ/জেডএ/আইআই

আপনার মতামত লিখুন :