বিশ্ব উচ্চ রক্তচাপ দিবস আজ

জাগো নিউজ ডেস্ক
জাগো নিউজ ডেস্ক জাগো নিউজ ডেস্ক
প্রকাশিত: ১১:০২ এএম, ১৭ মে ২০১৮

আজ বৃহস্পতিবার (১৭ মে) বিশ্ব উচ্চ রক্তচাপ দিবস। বিশ্বের অন্য দেশের মতো বাংলাদেশে বিশ্ব উচ্চ রক্তচাপ দিবস পালিত হচ্ছে। ওয়ার্ল্ড হাইপারটেশন লিগের সদস্য হিসেবে হাইপারটেনশন কমিটি অব ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন অব বাংলাদেশ ২০০৬ সাল থেকে নানা আয়োজনে এই দিবস পালন করে আসছে। দিবসটি উপলক্ষে বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি সংস্থা নানা কর্মসূচি হাতে নিয়েছে।

উচ্চ রক্তচাপ বা হাইপারটেনশন: স্বাভাবিক রক্তচাপ হলো সেই বল, যার সাহায্যে রক্ত শরীরের এক স্থান থেকে অন্য স্থানে পৌঁছায়। যদি কারও রক্তচাপ স্বাভাবিক মাত্রার চাইতে বেশি হয় এবং অধিকাংশ সময় এমনকি বিশ্রামকালীনও বেশি থাকে, তবে ধরে নিতে হবে তিনি উচ্চ রক্তচাপের রোগী।

আন্তর্জাতিক উদরাময় গবেষণা কেন্দ্র বাংলাদেশের (আইসিডিডিআরবি) পরিসংখ্যান মতে, বর্তমানে মোট জনসংখ্যার প্রায় ২০ শতাংশ উচ্চ রক্তচাপে ভুগছে। অর্থাৎ দেশে উচ্চ রক্তচাপের রোগী দেড় কোটিরও বেশি।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, উচ্চমাত্রার লবণ ব্যবহারের কারণে প্রায় শতকরা ৬০ ভাগ রোগী এই রোগে আক্রান্ত হয়। এ কারণে মস্তিষ্কের রক্তক্ষরণ, হার্ট অ্যাটাক, কিডনি বিকল ও চোখের রেটিনা নষ্ট হয়ে যেতে পারে। উচ্চ রক্তচাপ থেকে দূরে থাকতে নিয়মিত ব্যায়াম করতে হবে এবং চর্বিযুক্ত খাবার কম খেতে হবে। আবার উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে এলে ওষুধ খাওয়া বন্ধ করা যাবে না।

এক গবেষণায় দেখা যায়, উচ্চ রক্তচাপ মানুষের স্ট্রোক, হৃদরোগ, কিডনি সমস্যার অন্যতম কারণ।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তথ্য অনুযায়ী, বিশ্বে ১৫০ কোটি মানুষ উচ্চ রক্তচাপে ভুগছে। এই রোগে প্রতি বছর প্রায় ৭০ লাখ মানুষের মৃত্যু ঘটে। দেশে ১০ থেকে ২০ শতাংশ প্রাপ্তবয়স্ক মানুষ উচ্চ রক্তচাপে ভুগছে।

চিকিৎসকদের মতে, বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই উচ্চ রক্তচাপ হওয়ার সুনির্দিষ্ট কোনো কারণ নেই। তবে উচ্চ রক্তচাপকে বংশগত বিষয় হিসেবে দেখা হয়ে থাকে। এর পাশাপাশি কর্মক্ষেত্রে অত্যধিক মানসিক চাপ, শারীরিক পরিশ্রম না করা ও খাদ্যাভ্যাস পরিবর্তন বিশেষ করে ফাস্টফুডের প্রতি আসক্ত উচ্চ রক্তচাপের জন্য দায়ী।

এসআর/আরআইপি

আপনার মতামত লিখুন :