বিএসএমএমইউতে শিশু কিডনি রোগ বিষয়ক সেমিনার

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৬:০৬ পিএম, ০৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) শনিবার পেডিয়াট্রিক নেফ্রোলজি সোসাইটি অব বাংলাদেশ (পিএনএসবি)-এর উদ্যোগে শিশু কিডনি রোগ বিষয়ক সেমিনার অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

পিএনএসবি-এর দুদিনব্যাপী পঞ্চম আন্তর্জাতিক এ বৈজ্ঞানিক সম্মেলন শেষ হবে আগামীকাল রোববার।

সম্মেলনের প্রথম দিন শনিবার ভারত, ইতালি, সিঙ্গাপুরসহ ছয় দেশের ফ্যাকাল্টি প্রবন্ধ উপস্থাপন করা হয়। সেমিনারে প্রধান অতিথি হিসেবে এদিন উপস্থিত ছিলেন বিএসএমএমইউ উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কনক কান্তি বড়ুয়া। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপ-উপাচার্য (শিক্ষা) অধ্যাপক ডা. সাহানা আখতার রহমান, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ আতিকুর রহমান।

সম্মানিত অতিথি হিসেবে ইন্টারন্যাশনাল পেডিয়াট্রিক নেফ্রোলজি অ্যাসোসিয়েশনের প্রেসিডেন্ট এবং সিঙ্গাপুরের প্রফেসর হুই কিম অংশগ্রহণ করেন। সভাপতিত্ব করেন পিএনএসবি-এর সভাপতি অধ্যাপক ডা. গোলাম মাঈন উদ্দিন। স্বাগত বক্তব্য রাখেন পিএনএসবি-এর মহাসচিব অধ্যাপক ডা. আনোয়ার হোসেন খান। আরও উপস্থিত ছিলেন শিশু কিডনি বিভাগের (অবসরপ্রাপ্ত) অধ্যাপক ডা. মো. হাবিবুর রহমান, অধ্যাপক ডা. রণজিত রঞ্জন রায়, সহযোগী অধ্যাপক ডা. আফরোজা বেগম, সহযোগী অধ্যাপক ডা. সৈয়দ সাইমুল হক প্রমুখ।

গুরুত্বপূর্ণ এ বৈজ্ঞানিক কনফারেন্সে বিদেশি অংশগ্রহণকারীর মধ্যে ছিলেন অধ্যাপক ফ্রান্সিসকো ইমা (ইতালি), সহযোগী অধ্যাপক রুপেসরাইনা (ইউএসএ), অধ্যাপক অরবিন্দ (ভারত), অধ্যাপক অরপনা এ. আইনজার (ভারত), সিনিয়র কনসালটেন্ট ডা. সিদ্ধার্থ সেট্টি (ভারত), সিনিয়র কনসালটেন্ট ডা. মোহাম্মদ এস. আল রিয়ামু (ওমান)।

jagonews24

২০০৪ সালে পেডিয়াট্রিক নেফ্রোলজি সোসাইটি অব বাংলাদেশ (পিএনএসবি) প্রতিষ্ঠিত হয়। এরপর থেকে প্রতি দুই বছর পরপর এ আন্তর্জাতিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে।

পিএনএসবি-এর পঞ্চম আন্তর্জাতিক বৈজ্ঞানিক কনফারেন্সে দেশি-বিদেশি চিকিৎসকগণ অংশগ্রহণ করেন। প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিএসএমএমইউ উপাচার্য অধ্যাপক কনক কান্তি বড়ুয়া বলেন, পিএনএসবি-এর উদ্যোগে আয়োজিত দুদিনব্যাপী পঞ্চম আন্তর্জাতিক এ বৈজ্ঞানিক সম্মেলন শিশু কিডনি রোগ বিষয়ক বিশেষজ্ঞগণ, শিক্ষক ও সংশ্লিষ্ট মেডিকেল শিক্ষার্থীদের অভিজ্ঞতা ও জ্ঞানের বিনিময়, জ্ঞান ও দক্ষতা বৃদ্ধিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। একই সঙ্গে শিশু কিডনি রোগীদের আধুনিক ও উন্নত চিকিৎসাসেবায় অবদান রাখে।

সম্মেলনে শিশু কিডনি রোগের সাধারণ ও জটিল উপসর্গ নিয়ে আলোচনা করা হয়। কিডনি রোগের প্রাথমিক উপসর্গ নিয়েও আলোচনা হয়। এ রোগের জরুরি চিকিৎসা গ্রহণের প্রয়োজনীয়তার কথা সেমিনারের প্রথম দিন উল্লেখ করা হয়। এছাড়া বাংলাদেশে শিশু কিডনি রোগের বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধার কথাও বক্তারা এদিন তুলে ধরেন।

বাংলাদেশে শিশুদের কিডনি ডায়ালাইসিস, কিডনি ট্রান্সপ্লান্টেশন নিয়েও আলোচনা হয়। ঢাকার বাইরের সদর হাসপাতাল ও মেডিকেল কলেজগুলোতে শিশু কিডনি রোগের চিকিৎসায় সুব্যবস্থার প্রয়োজনীয়তা কথাও বলা হয় সম্মেলনে।

সম্মেলনে আরও জানানো হয়, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে ২০০৬ সালের পর থেকে এখন পর্যন্ত ১১ শিশুর সফল কিডনি ট্রান্সপ্ল্যান্ট সম্পন্ন হয়েছে এবং বর্তমানে বছরে প্রায় দেড় হাজার শিশু কিডনি রোগীর ডায়ালাইসিস সেবা দেয়া হচ্ছে।

এমইউ/এমএআর/এমকেএইচ